সেকশনস

অধ্যক্ষ চাননি, ১১ বছর আটকে আছে ৩ শিক্ষকের পদোন্নতি

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২০, ১৮:৫৬




প্রাপ্যতার ভিত্তিতে তিন জন শিক্ষকের পদোন্নতির সুপারিশ করা হলেও ১১ বছর ধরে অধ্যক্ষ তা আটকে রেখেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। শিক্ষকদের অভিযোগ, একজন সিনিয়র শিক্ষককে পদোন্নতি না দেওয়ার চেষ্টায় সবার পদোন্নতি আটকে দিয়েছেন নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলার পাঁকা কলেজের অধ্যক্ষ মোছা. জাকিফা খাতুন। তবে পূজার ছুটির পর বিষয়টি সমাধান করতে পদোন্নতিযোগ্য শিক্ষকদের তালিকা ঊর্ধ্বতন পর্যায়ে পাঠাবেন বলে বাংলা ট্রিবিউনকে জানিয়েছেন অভিযুক্ত অধ্যক্ষ।

দীর্ঘ ১১ বছর পদোন্নতি বঞ্চিত হয়ে সম্প্রতি মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরে অভিযোগ করেন কয়েকজন শিক্ষক। এদের মধ্যে রয়েছেন প্রভাষক মো. মকবুল হোসেন, প্রভাষক মো. হোসেন আলী, অসীম কুমার দাস এবং মো. আশরাফুল ইসলাম।

অভিযোগে বলা হয়, ২০০৯ সালে ওই সময়ের গভর্নিং বডির সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা গৌতম চন্দ্র পাল প্রাপ্যতা অনুসারে সিনিয়র শিক্ষকদের পদোন্নতির সুপারিশ করে রেজুলেশন করেন। কিন্তু অধ্যক্ষ শিক্ষকদের জ্যেষ্ঠতার তালিকা মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরে আঞ্চলিক পরিচালকের দফতরে পাঠাননি। নাটোর জেলা শিক্ষা অফিসারের তদন্ত প্রতিবেদনে পদোন্নতি দেওয়ার সুপারিশ করা হলেও তা বাস্তবায়ন করেননি অধ্যক্ষ। এমনকি তদন্ত প্রতিবেদন অধ্যক্ষের কাছে পাঠানো হলেও তা গোপন রাখেন তিনি।

পদোন্নতির অপেক্ষায় থাকা কলেজের জ্যেষ্ঠ প্রভাষক মো. মকবুল হোসেনকে বাদ দিতে অধ্যক্ষ পদোন্নতি আটকে রাখেন বলে অভিযোগ করেন শিক্ষকরা।

অভিযোগে জানা গেছে, ২০১১ সালের ১১ জানুয়ারি অধ্যক্ষের অনুপস্থিতিতে দায়িত্বপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ জ্যেষ্ঠতা নির্ণয়ের জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরে পাঠান। তবে পরে দায়িত্ব বুঝে নিয়ে অধ্যক্ষ জাকিফা খাতুন অভিযোগ করে জ্যেষ্ঠতা নির্ধারণ বন্ধ রাখেন। বিষয়টি নিয়ে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতর তদন্তও করে। ২০১১ সালের ১০ অক্টোবরে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়, শিক্ষকরা পদোন্নতি পাবেন। কিন্তু অধ্যক্ষের অসহযোগিতার কারণে তা সম্ভব হয়নি।

শিক্ষকদের অভিযোগ, তদন্ত প্রতিবেদন বিগত ৯ বছরেও বাস্তবায়ন করেননি অধ্যক্ষ। ফলে মোট প্রায় ১১ বছর ধরে সহকারী অধ্যাপক পদ না পেয়ে বঞ্চিত হয়েছেন তিন জন শিক্ষক। ইতোমধ্যে আরও দুই জন শিক্ষক পদোন্নতি পাওয়ার যোগ্যতা অর্জন করেছেন। তারাও পদোন্নতির অপেক্ষায় রয়েছেন।

জেলা শিক্ষা অফিসারের তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রতিষ্ঠার পর নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলার পাঁকা কলেজটি ২০০১ সালে এমপিওভুক্ত হয়। প্রতিষ্ঠানটি সৃষ্টির সময় এবং পরবর্তীকালে বিভিন্ন পদে প্রভাষক নিয়োগ দেওয়া হয়। নিয়োগকাল থেকে বিভিন্ন জটিলতায় প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষা ব্যবস্থা একবারে ভেঙে পড়েছে, যা জেলা শিক্ষা অফিসার ও পরিচালকের পরিদর্শনে উঠে আসে। এর জন্য শিক্ষকদের মধ্যে পারস্পরিক দ্বন্দ্বকে দায়ী করা হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে সহকারী অধ্যাপক পদে পদোন্নতির জন্য কোনও সহযোগিতা করেননি কলেজের অধ্যক্ষ জাকিফা খাতুন।

তদন্ত প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ২০২০ সালে ২ মার্চ শিক্ষা অফিসার জ‌্যেষ্ঠতা নির্ধারণের জন্য পত্র দিলে অনেকদিন পর প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা দেওয়া হয়। প্রতিষ্ঠান সৃষ্টির সময় কোনও প্রকার নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ছাড়াই কমিটির রেজুলেশনের মাধ্যমে চার জন শিক্ষকের নিয়োগপত্র পাঠানো হয়। পরবর্তীতে ওই চার শিক্ষক মো. হোসেন আলী, মো. মকবুল হোসেন, অসীম কুমার দাস ও মো. আশরাফুল আলমকে চাকরি বৈধকরণের জন্য এবং অন্যান্য শূন্য পদে নিয়োগের জন্য ২০০০ সালের ২২ মে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে ওই বছরের ১৭ জুলাই বৈধকরণ ও নতুন নিয়োগ দেওয়া হয়।

তবে মো. আশরাফুল আলমের মাস্টার্সের ফলাফল প্রকাশ না হওয়ায় ফল প্রকাশের পর নিয়োগ বৈধকরণের শর্ত দেওয়া হয়। ফলে বৈধকরণ প্রার্থীদের মধ্যে জ্যেষ্ঠ প্রভাষক থাকেন মো. হোসেন আলী, মো. মকবুল হোসেন, অসীম কুমার দাস। এই তিন জন যোগদান করেন ২০০০ সালের ৪ জানুয়ারি।

তদন্ত প্রতিবেদন অনুযায়ী ২০০০ সালের ৩ জানুয়ারি নিয়োগ এবং ৪ জানুয়ারি যোগদান করা এই শিক্ষকদের বৈধ করা হয় ২০০০ সালের ১৭ জুলাই। বিধি অনুযায়ী এদিন থেকেই জ্যেষ্ঠতা নির্ধারণের বিষয়টি বিবেচিত হবে।

তবে প্রতিবেদনে জ্যেষ্ঠতা নির্ধারণ প্রসঙ্গে বলা হয়, এমপিওভুক্তির তারিখ থেকে জ্যেষ্ঠতা নির্ধারিত হবে। তবে এমপিওভুক্তি একই দিন হলে যোগদানের তারিখ বিবেচনা করতে হবে। আর কোনও শিক্ষকের নিয়োগ নিয়মিত করা হলে নিয়োগের নিয়মিতকরণের তারিখই যোগদানের তারিখ হিসেবে গণ্য করে জ্যেষ্ঠতা গণনা হবে। আর যোগদানের তারিখ একই হলে, জন্ম তারিখ বিবেচনায় জ্যেষ্ঠতা নির্ধারণ করা হবে।

তদন্ত প্রতিবেদনের প্রমাণিত তথ্য অনুযায়ী জ্যেষ্ঠতা নিশ্চিত করে বলা হয়, নিয়োগকালীন সময়ে মো. আশরাফুল ইসলামের শিক্ষাগত যোগ্যতা ছিল এমএসসি ভূগোল ফলপ্রার্থী। কাজেই তিনি সহকারী অধ্যাপকের পদ দাবি করতে পারবেন না। অপরপক্ষে মো. হোসেন আলী, মো. মকবুল হোসেন ও অসীম কুমার দাসের যোগদান আগে হওয়ায় সহকারী অধ্যাপক পদে পদোন্নতির জন্য যোগ্য হন তারা। শিক্ষকরা এই চার শিক্ষকের বৈধকরণসহ প্রভাষক পদে নতুন নিয়োগ দেন ওয়াহিদা খাতুন, মো. আবুল কালাম আজাদ ও মো. মোয়াজ্জেম হোসেনকে।

কলেজের শিক্ষকরা জানান, সরকারি নীতিমালা অনুযায়ী ৫:২ অনুপাতে এই কলেজের মোট ৫ জন প্রভাষক থেকে সহকারী অধ্যাপক পদে পদোন্নতি পাবেন। নতুন করে প্রভাষক ওয়াহিদা খাতুন এবং আবুল কালাম আজাদ পদোন্নতির যোগ্য।

১১ বছর ধরে পদোন্নতি আটকে রাখার বিষয়ে জানতে চাইলে অধ্যক্ষ বলেন, আমি পদোন্নতির জন্য শিক্ষকদের তালিকা পাঠিয়েছিলাম। কিন্তু ওই শিক্ষকরা অভিযোগ করে তা বন্ধ করে দিয়েছেন।

কলেজ অধ্যক্ষ এই বক্তব্য দিলেও প্রভাষক মো. মকবুল হোসেন বলেন, ‘শিক্ষকরা কখনও কোনও অভিযোগ করেননি। তিন জন জ্যেষ্ঠ প্রভাষকের নাম বাদ দিয়ে ঊর্ধতন পর্যায়ে তালিকা পাঠানোর কারণে পদোন্নতি আটকে যায়। এই তিন জনের মধ্যে প্রভাষক আব্দুল করিম সরকার বঞ্চিত থেকেই ২০১৮ সালে অবসরে যান।’

অভিযোগের অন্য বিষয়ে কথা বলতে চাইলে অধ্যক্ষ জাকিফা খাতুন সদুত্তর না দিয়ে পরে আবার কথা বলতে চেয়েছেন।

/টিটি/এমএমজে/

সম্পর্কিত

একমুখী শিক্ষার পথ তৈরি করছি: শিক্ষামন্ত্রী

একমুখী শিক্ষার পথ তৈরি করছি: শিক্ষামন্ত্রী

বেসরকারি অনার্স-মাস্টার্স স্তরের শিক্ষকদের সুখবর দিলেন শিক্ষামন্ত্রী

বেসরকারি অনার্স-মাস্টার্স স্তরের শিক্ষকদের সুখবর দিলেন শিক্ষামন্ত্রী

খুবির ৩ শিক্ষককে চাকরিচ্যুতের সিদ্ধান্ত ‘স্বৈরাচারী ও অযৌক্তিক’

খুবির ৩ শিক্ষককে চাকরিচ্যুতের সিদ্ধান্ত ‘স্বৈরাচারী ও অযৌক্তিক’

প্রমোশনের দাবিতে আমরণ অনশনে সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা

প্রমোশনের দাবিতে আমরণ অনশনে সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা

সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে হবে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা

সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে হবে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা

বিল পাসের দুই দিনের মধ্যে গেজেট করে এইচএসসি’র ফল

বিল পাসের দুই দিনের মধ্যে গেজেট করে এইচএসসি’র ফল

আপাতত সপ্তাহে একদিন ক্লাসের পরিকল্পনা : শিক্ষামন্ত্রী

আপাতত সপ্তাহে একদিন ক্লাসের পরিকল্পনা : শিক্ষামন্ত্রী

মাদ্রাসা শিক্ষাকে আন্তর্জাতিক মানের করতে কাজ করছে সরকার

মাদ্রাসা শিক্ষাকে আন্তর্জাতিক মানের করতে কাজ করছে সরকার

খুবির এক শিক্ষক বরখাস্ত, ২ জনকে অপসারণের সিদ্ধান্ত

খুবির এক শিক্ষক বরখাস্ত, ২ জনকে অপসারণের সিদ্ধান্ত

বিদ্যালয় খুললে তিন ফুট দূরত্ব মেনে ক্লাস

বিদ্যালয় খুললে তিন ফুট দূরত্ব মেনে ক্লাস

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিতে মানতে হবে যে সব বিষয়

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিতে মানতে হবে যে সব বিষয়

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিতে প্রস্তুতির নির্দেশনা জারি

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিতে প্রস্তুতির নির্দেশনা জারি

সর্বশেষ

খুবিতে অনশনরত দ্বিতীয় শিক্ষার্থীও হাসপাতালে

খুবিতে অনশনরত দ্বিতীয় শিক্ষার্থীও হাসপাতালে

বাপা’র সভাপতি মাহবুব, সাধারণ সম্পাদক নাজমুল

বাপা’র সভাপতি মাহবুব, সাধারণ সম্পাদক নাজমুল

একাদশে আসছে পরিবর্তন, কারা খেলছেন?

একাদশে আসছে পরিবর্তন, কারা খেলছেন?

‘করপোরেট গভর্ন্যান্স এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড’ পেলো গ্রামীণফোন

‘করপোরেট গভর্ন্যান্স এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড’ পেলো গ্রামীণফোন

যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা আড়াই কোটি ছাড়ালো

যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা আড়াই কোটি ছাড়ালো

ঘন কুয়াশায় পাটুরিয়া- দৌলতদিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল ফের বন্ধ

ঘন কুয়াশায় পাটুরিয়া- দৌলতদিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল ফের বন্ধ

মেসিকে ছাড়াই জয়রথ ছুটছে বার্সেলোনার

মেসিকে ছাড়াই জয়রথ ছুটছে বার্সেলোনার

বৈদ্যুতিক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের চারজন নিহত হওয়ায় বিদ্যুৎ বিভাগের দুঃখ প্রকাশ

বৈদ্যুতিক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের চারজন নিহত হওয়ায় বিদ্যুৎ বিভাগের দুঃখ প্রকাশ

‘মিয়ানমার তোষণ নীতির কারণে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন ব্যাহত হচ্ছে’

‘মিয়ানমার তোষণ নীতির কারণে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন ব্যাহত হচ্ছে’

ইসরায়েলে দূতাবাস স্থাপন করবে আমিরাত

ইসরায়েলে দূতাবাস স্থাপন করবে আমিরাত

আবরার হত্যা মামলা: দ্বিতীয় তদন্ত কর্মকর্তার সাক্ষ্যগ্রহণ

আবরার হত্যা মামলা: দ্বিতীয় তদন্ত কর্মকর্তার সাক্ষ্যগ্রহণ

সিরিয়া ফেরত জঙ্গি রিমান্ডে

সিরিয়া ফেরত জঙ্গি রিমান্ডে

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

বেসরকারি অনার্স-মাস্টার্স স্তরের শিক্ষকদের সুখবর দিলেন শিক্ষামন্ত্রী

বেসরকারি অনার্স-মাস্টার্স স্তরের শিক্ষকদের সুখবর দিলেন শিক্ষামন্ত্রী

খুবির ৩ শিক্ষককে চাকরিচ্যুতের সিদ্ধান্ত ‘স্বৈরাচারী ও অযৌক্তিক’

খুবির ৩ শিক্ষককে চাকরিচ্যুতের সিদ্ধান্ত ‘স্বৈরাচারী ও অযৌক্তিক’

প্রমোশনের দাবিতে আমরণ অনশনে সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা

প্রমোশনের দাবিতে আমরণ অনশনে সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা

বিদ্যালয় খুললে তিন ফুট দূরত্ব মেনে ক্লাস

বিদ্যালয় খুললে তিন ফুট দূরত্ব মেনে ক্লাস

প্রাথমিকে পেনশন নিষ্পত্তিতে দেরি হলে জবাবদিহি

প্রাথমিকে পেনশন নিষ্পত্তিতে দেরি হলে জবাবদিহি

অবশেষে দারুল ইহসানের সনদধারীদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে মন্ত্রণালয়

অবশেষে দারুল ইহসানের সনদধারীদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে মন্ত্রণালয়

পদোন্নতি পাচ্ছেন ৭২৮৭ জন শিক্ষক

পদোন্নতি পাচ্ছেন ৭২৮৭ জন শিক্ষক

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার প্রস্তুতির নির্দেশনা দু-একদিনের মধ্যেই

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার প্রস্তুতির নির্দেশনা দু-একদিনের মধ্যেই

প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোকে ১০ ফেব্রুয়ারির মধ্যে তথ্য পাঠানোর নির্দেশ

প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোকে ১০ ফেব্রুয়ারির মধ্যে তথ্য পাঠানোর নির্দেশ

সচিবের সঙ্গে প্রাথমিক শিক্ষকদের বৈঠকে যা হলো

সচিবের সঙ্গে প্রাথমিক শিক্ষকদের বৈঠকে যা হলো


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.