সেকশনস

বাংলাদেশের বৈদেশিক ঋণ ৪৪ হাজার মিলিয়ন ডলার

আপডেট : ২৩ নভেম্বর ২০২০, ১৮:২৯

প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে মন্ত্রিপরিষদের বৈঠক, ছবি: ফোকাস বাংলা বাংলাদেশের শুরু থেকে এখনও পর্যন্ত বৈদেশিক ঋণের পরিমাণ ৪৪ হাজার ২৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। এটি জিডিপির ১৩ দশমিক ৩৪ শতাংশ। এই ঋণের মধ্যে ৩৭ শতাংশ বিশ্বব্যাংকের, ২৪ দশমিক ৪৬ শতাংশ এডিবির, জাইকার ১৭ দশমিক ৯ শতাংশ, চীনের ৬ দশমিক ৮১ শতাংশ, রাশিয়ার ৬ দশমিক ১৪ শতাংশ, ভারতের এক দশমিক ৩ এবং অন্যান্য সংস্থা থেকে নেওয়া ঋণের হার ৬ দশমিক ৪ শতাংশ।

সোমবার (২৩ নভেম্বর) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ভার্চুয়াল মন্ত্রিসভা বৈঠকে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ দেশের বৈদেশিক সহায়তা সম্পর্কে  উপস্থাপিত প্রতিবেদনে এ তথ্য তুলে ধরা হয়। বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ‘দেশের অর্থনীতি শক্তিশালী হওয়ায় বৈদেশিক সহায়তায় অনুদানের পরিমাণ ন্যূনতম পর্যায়ে নেমেছে। স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে বৈদেশিক সহায়তায় অনুদানের পরিমাণ ছিল ৮৪ থেকে ৮৬ শতাংশ, বাকিটা ছিল ঋণ। এখন সেই অনুদানের পরিমাণ নেমেছে তিন শতাংশে।’

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘২০০৯-১০ সালে দেশে অনুদান এসেছে ৩০ শতাংশের মতো, ৭০ শতাংশের মতো আসল ঋণ। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে অনুদান আসছে সর্বোচ্চ পাঁচ শতাংশের মতো, আর ঋণ হিসেবে এসেছে ৯৫ শতাংশ।’

‘১৯৭১-৭২ সালে বাংলাদেশের বৈদেশিক সহায়তার আওতায় অনুদান ছিল সর্বোচ্চ ৮৪-৮৫-৮৬ শতাংশ, ঋণ ছিল ৬ থেকে ৮ শতাংশ। ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে অনুদান আরও কমে গেছে, ২/৩ শতাংশের মধ্যে রয়েছে। ৯৭ শতাংশেই আসছে লোন হিসেবে। আমরা আর দানের ওপর নির্ভর করছি না।’

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘রি-পেমেন্টের ক্ষেত্রে কোনোদিনই খেলাপি হয়নি বাংলাদেশ। ’

তিনি জানান, ১৯৯৭-৯৮ সালে বাংলাদেশের বৈদেশিক সহায়তার অর্থছাড় ছিল ৭৪৮ মিলিয়ন ডলার। তখন বাংলাদেশের জিডিপির ৩০ দশমিক ৪৭ শতাংশ ছিল ঋণের পরিমাণ। ২০১৯-২০ সালে বাংলাদেশের অর্থছাড়ের পরিমাণ হচ্ছে সাত হাজার ১২১ মিলিয়ন ডলার, এটা জিডিপির ১৩ দশমিক ৩৪ শতাংশ।

‘১৯৮৯-৯০ অর্থবছরে বাংলাদেশের এডিপি (বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি) ছিল পাঁচ হাজার ১০৩ কোটি টাকা। এরমধ্যে বৈদেশিক সাহায্য ছিল তিন হাজার ২৫৬ কোটি টাকা। এই এডিপির ৬৩ শতাংশ ছিল বৈদেশিক সহায়তা। ২০০৯-১০ অর্থবছরে এডিপির বরাদ্দ ২৮ হাজার ৫০০ কোটি টাকা। এরমধ্যে বৈদেশিক সহায়তা ছিল ১১ হাজার ৩০০ কোটি টাকা। এডিপিতে ফরেন এইডের কন্ট্রিবিউশন ছিল ৩৯ দশমিক ৬৫ শতাংশ।’

‘আর ২০১৮-১৯ অর্থবছরে এডিপির পরিমাণ এক লাখ ৭৬ হাজার ৬২০ কোটি টাকা, এতে বৈদেশিক সহায়তা নির্ধারণ করা হয়েছে ৫১ হাজার ৬৬০ কোটি টাকা। বৈদেশিক সাহায্য বাড়লেও শতকরা হিসাব নেমে এসেছে ২৯ দশমিক ২৫-এ। আমাদের নিজস্ব বিনিয়োগ এত বেড়ে গেছে যে, বাইরের লোন এলেও এটা শতাংশের হারে অনেক নিচে।’

মন্ত্রিপরিষদ সচিব আরও বলেন, ‘বৈদেশিক ঋণ পরিশোধ করছি জিডিপির ৫ দশমিক ৫ শতাংশ। ২০ শতাংশ পর্যন্ত সেফটি রেঞ্জ। আমরা অনেক নিচে আছি।’ ‘আমাদের ঝুঁকি নেই। বৈদেশিক ঋণ যখন জিডিপির ৪০ শতাংশ বা এর বেশি হয়ে যায়, তখন ঝুঁকি থাকে। আমাদের জিডিপির তুলনায় বৈদেশিক ঋণ হলো ১৫ দশমিক ৪৭ শতাংশ।’

/এসআই/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

করোনাকালে এক কোটি কেজির বেশি চা উৎপাদনের রেকর্ড

করোনাকালে এক কোটি কেজির বেশি চা উৎপাদনের রেকর্ড

ঐতিহাসিক গণঅভ্যুত্থান দিবস আজ: রাজনীতিকদের শ্রদ্ধা ও কর্মসূচি

ঐতিহাসিক গণঅভ্যুত্থান দিবস আজ: রাজনীতিকদের শ্রদ্ধা ও কর্মসূচি

গৃহহীনদের স্বপ্ন হলো সত্যি

গৃহহীনদের স্বপ্ন হলো সত্যি

জাতীয় ক্রিকেট দলে খেলবে পুলিশ সদস্যরাও: আইজিপি

জাতীয় ক্রিকেট দলে খেলবে পুলিশ সদস্যরাও: আইজিপি

চাল আমদানিতে এলসি খোলার সময় বেড়েছে

চাল আমদানিতে এলসি খোলার সময় বেড়েছে

আবারও নেমে গেছে তাপমাত্রা, তিন জেলায় শৈত্যপ্রবাহ

আবারও নেমে গেছে তাপমাত্রা, তিন জেলায় শৈত্যপ্রবাহ

মৃত্যু ৮ হাজার ছাড়ালো

মৃত্যু ৮ হাজার ছাড়ালো

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের মাধ্যমে মুজিববর্ষের অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনা

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের মাধ্যমে মুজিববর্ষের অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনা

নেতাকর্মী ও জনপ্রতিনিধিদের সীমারেখা মেনে চলার আহ্বান ওবায়দুল কাদেরের

নেতাকর্মী ও জনপ্রতিনিধিদের সীমারেখা মেনে চলার আহ্বান ওবায়দুল কাদেরের

সিসি ক্যামেরার জালে আটকা অপরাধীরা!

সিসি ক্যামেরার জালে আটকা অপরাধীরা!

‘কারাবন্দি অবস্থায় নারীসঙ্গ জঘন্যতম অপরাধ’

‘কারাবন্দি অবস্থায় নারীসঙ্গ জঘন্যতম অপরাধ’

সর্বশেষ

বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে ৪ জনের মৃত্যুর ঘটনায় তদন্ত কমিটি

বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে ৪ জনের মৃত্যুর ঘটনায় তদন্ত কমিটি

করোনাকালে এক কোটি কেজির বেশি চা উৎপাদনের রেকর্ড

করোনাকালে এক কোটি কেজির বেশি চা উৎপাদনের রেকর্ড

৬ মেছোবাঘের ছানা উদ্ধার

৬ মেছোবাঘের ছানা উদ্ধার

ঐতিহাসিক গণঅভ্যুত্থান দিবস আজ: রাজনীতিকদের শ্রদ্ধা ও কর্মসূচি

ঐতিহাসিক গণঅভ্যুত্থান দিবস আজ: রাজনীতিকদের শ্রদ্ধা ও কর্মসূচি

পাটুরিয়া-দৌলতদিয়ায় ফেরি চলাচল বন্ধ

পাটুরিয়া-দৌলতদিয়ায় ফেরি চলাচল বন্ধ

যশোরে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে পুলিশের জিডিতে নিন্দার ঝড়

যশোরে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে পুলিশের জিডিতে নিন্দার ঝড়

ব্রাজিলে ব্যাপকভাবে কমেছে বলসোনারোর সমর্থন: জরিপ

ব্রাজিলে ব্যাপকভাবে কমেছে বলসোনারোর সমর্থন: জরিপ

শাহবাগে ছুরিকাঘাতে একজন নিহত

শাহবাগে ছুরিকাঘাতে একজন নিহত

পিকে হালদার কাণ্ডে যে ৮৩ জনকে নিয়ে তদন্ত করছে দুদক

পিকে হালদার কাণ্ডে যে ৮৩ জনকে নিয়ে তদন্ত করছে দুদক

সেনাবাহিনীতে চাকরির নামে অর্থ আত্মসাৎ, আটক ৩

সেনাবাহিনীতে চাকরির নামে অর্থ আত্মসাৎ, আটক ৩

আটক হলেন রাশিয়ার বিরোধী দলীয় নেতা নাভালনির স্ত্রী

আটক হলেন রাশিয়ার বিরোধী দলীয় নেতা নাভালনির স্ত্রী

গোপালগঞ্জের মানুষের অভাব থাকবে না: শেখ ফজলুল করিম সেলিম

গোপালগঞ্জের মানুষের অভাব থাকবে না: শেখ ফজলুল করিম সেলিম

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ঐতিহাসিক গণঅভ্যুত্থান দিবস আজ: রাজনীতিকদের শ্রদ্ধা ও কর্মসূচি

ঐতিহাসিক গণঅভ্যুত্থান দিবস আজ: রাজনীতিকদের শ্রদ্ধা ও কর্মসূচি

গৃহহীনদের স্বপ্ন হলো সত্যি

গৃহহীনদের স্বপ্ন হলো সত্যি

চাল আমদানিতে এলসি খোলার সময় বেড়েছে

চাল আমদানিতে এলসি খোলার সময় বেড়েছে

আবারও নেমে গেছে তাপমাত্রা, তিন জেলায় শৈত্যপ্রবাহ

আবারও নেমে গেছে তাপমাত্রা, তিন জেলায় শৈত্যপ্রবাহ

মৃত্যু ৮ হাজার ছাড়ালো

মৃত্যু ৮ হাজার ছাড়ালো

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের মাধ্যমে মুজিববর্ষের অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনা

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের মাধ্যমে মুজিববর্ষের অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনা

‘কারাবন্দি অবস্থায় নারীসঙ্গ জঘন্যতম অপরাধ’

‘কারাবন্দি অবস্থায় নারীসঙ্গ জঘন্যতম অপরাধ’

একজন স্বাস্থ্যকর্মীকে দিয়েই ২৭ জানুয়ারি শুরু হচ্ছে করোনার টিকা প্রয়োগ

একজন স্বাস্থ্যকর্মীকে দিয়েই ২৭ জানুয়ারি শুরু হচ্ছে করোনার টিকা প্রয়োগ


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.