সেকশনস

কালাই রুটি বিক্রি করে মাসে আয় ৬০ হাজার টাকা

আপডেট : ২৪ নভেম্বর ২০২০, ১২:১২

কালাই রুটি বানাচ্ছেন খাইরুল



কালাই রুটি ভোজন রসিকদের কাছে বেশ জনপ্রিয়। মরিচ বাটা, পেঁয়াজ কুচি বা সরিষার তেল দিয়ে বেগুন ভর্তার সঙ্গে গরম কালাই রুটি বেশ জনপ্রিয়। শীতের আগমনে সুস্বাদু কালাই রুটির দোকান গড়ে উঠেছে কুষ্টিয়ার বিভিন্ন স্থানে। অস্থায়ীভাবে ফুটপাতের পাশে গড়ে ওঠা এসব দোকানের চা বিক্রিও বেড়েছে বেশ। দূর-দূরান্ত থেকে মানুষ কালাই রুটি খেতে আসছেন এসব দোকানে।

কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার খাড়ারা গ্রামের ফেরত মোড় নামক স্থানে গিয়ে দেখা যায়, ফুটপাতের পাশে অস্থায়ীভাবে গড়ে উঠেছে একটি কালাই রুটির দোকান। সেখানে খাইরুল ইসলাম নামে একজন রুটি তৈরি করছেন। রুটি তৈরিতে সহায়তা করছেন তার স্ত্রী।

খাইরুল ইসলাম বলেন, ‘আমি আগে স্যালো ইঞ্জিন চালিত পটাং গাড়ি চালাতাম। গাড়ির স্ট্যান্ডের রেললাইনের পাশে এক নারী কালাই রুটি তৈরি করতেন। তা দেখে প্রথম আমি শিখি। সেখান থেকে শিখে পরবর্তীতে আমি নিজেই রুটি তৈরি শুরু করেছি। আমার দোকানে অনেকেই এসে কালাই রুটি খান ও সুনাম করেন।’
তিনি আরও জানান, প্রতিদিন ১০-১২ কেজি আটার রুটি বিক্রি হয়। এককেজি আটায়  ৬-৭টি রুটি হয়। রুটির সঙ্গে বেগুন ভর্তা, পেঁয়াজ, রসুন, ধনিয়ার পাতা ছাড়াও রায় বাটা থাকে। কালাই রুটি দুই রকম তৈরি হয়। এর মধ্যে শুধু কালাই রুটি ৪০ টাকা পিস বিক্রি করা হয়। এছাড়া আরেক রকম ২৫ টাকা পিস বিক্রি করা হয়।
খাইরুল ইসলাম বলেন, প্রায় ৩ বছর ধরে কালাই রুটি বিক্রি করছেন। শীতের ৩-৪ মাস কালাই রুটি বিক্রি হয়। প্রতি মাসে ৫০-৬০ হাজার টাকা রুটি বিক্রি করেন। আর প্রতি দিন ২৫০০ টাকা পর্যন্ত বেচাবিক্রি হয়।

কালাই রুটি খাচ্ছেন লোকজন
কালাই রুটি খেতে আসা আছাদুর রহমান বাবু বলেন, ‘অনেকদিন ধরে শুনছি আমাদের বাড়ি থেকে প্রায় ১০ কিলোমিটার দূরে খাড়ারায় ফেরত মোড়ে  খুব ভালো কালাই রুটি তৈরি করা হয়। তাই আমরা খেতে আসছি। এই রুটি খেয়ে অনেক ভালো লেগেছে।’
মামুনুর রশিদ জানান, মিরপুরের গেট পাড়া থেকে কালাই রুটি খেতে এসেছি। বেগুন ভর্তা আর ধনিয়া পাতা দিয়ে মসলা বানানো অনেক সুস্বাদু। এটা আমি গত বছর খাওয়ার পর এত ভালো লেগেছিল। এ কারণে খেতে এসেছি।
আশরাফুল আলম হিরা নামে একজন বলেন, ‘আমি মিরপুর পৌর এলাকা থেকে কালাই রুটির সন্ধান পেয়ে খেতে এসেছি। এখানে এসে দেখতে পেলাম আমার মতো অনেকে রুটি খেতে এসেছেন। গরম গরম কালাই রুটি খেয়ে বেশ ভালো লাগলো।’

/এসটি/এমএমজে/

সম্পর্কিত

উপহারের ঘর পেয়ে জেলায় জেলায় গৃহহীনদের হাসিমুখ

উপহারের ঘর পেয়ে জেলায় জেলায় গৃহহীনদের হাসিমুখ

খুবির এক শিক্ষক বরখাস্ত, অপর ২ জনকে অপসারণে সিন্ডিকেটে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত

খুবির এক শিক্ষক বরখাস্ত, অপর ২ জনকে অপসারণে সিন্ডিকেটে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত

সুন্দরবনে বাঘের আক্রমণে নিহত দু'জনের  লাশ ভারতে উদ্ধার

সুন্দরবনে বাঘের আক্রমণে নিহত দু'জনের লাশ ভারতে উদ্ধার

ঘর 'আপন' হওয়ার আগে আগলে রাখছেন তারা

ঘর 'আপন' হওয়ার আগে আগলে রাখছেন তারা

খুবির অস্থিতিশীল পরিবেশ প্রসঙ্গে সাবেক ২৭৩ শিক্ষার্থীর উদ্বেগ

খুবির অস্থিতিশীল পরিবেশ প্রসঙ্গে সাবেক ২৭৩ শিক্ষার্থীর উদ্বেগ

বাসের ধাক্কায় প্রাণ গেলো স্ত্রীর, স্বামী আহত

বাসের ধাক্কায় প্রাণ গেলো স্ত্রীর, স্বামী আহত

ঝিনাইদহে ট্রাকচাপায় নারী নিহত

ঝিনাইদহে ট্রাকচাপায় নারী নিহত

অনশনরত খুবির দুই শিক্ষার্থীর সঙ্গে কথা বললেন কে‌সি‌সি মেয়র

অনশনরত খুবির দুই শিক্ষার্থীর সঙ্গে কথা বললেন কে‌সি‌সি মেয়র

পিকনিক বাসের চাপায় মোটরসাইকেল গুঁড়ো, যুবক নিহত

পিকনিক বাসের চাপায় মোটরসাইকেল গুঁড়ো, যুবক নিহত

দুই জেলেকে ‘টেনে নিয়ে গেছে’ বাঘ, নিরুদ্দেশ একজন

দুই জেলেকে ‘টেনে নিয়ে গেছে’ বাঘ, নিরুদ্দেশ একজন

মুজিববর্ষ উপলক্ষে জেলায় জেলায় ঘর পাচ্ছেন গৃহহীনরা

মুজিববর্ষ উপলক্ষে জেলায় জেলায় ঘর পাচ্ছেন গৃহহীনরা

নড়াইলে গৃহহীনদের জন্য নির্মিত হচ্ছে ৩২৫টি বাড়ি

নড়াইলে গৃহহীনদের জন্য নির্মিত হচ্ছে ৩২৫টি বাড়ি

সর্বশেষ

অসুস্থ বিএনপি নেতাকে দেখতে গেলেন মন্ত্রী

অসুস্থ বিএনপি নেতাকে দেখতে গেলেন মন্ত্রী

মাদ্রাসা শিক্ষাকে আন্তর্জাতিক মানের করতে কাজ করছে সরকার

মাদ্রাসা শিক্ষাকে আন্তর্জাতিক মানের করতে কাজ করছে সরকার

উপহারের ঘর পেয়ে জেলায় জেলায় গৃহহীনদের হাসিমুখ

উপহারের ঘর পেয়ে জেলায় জেলায় গৃহহীনদের হাসিমুখ

এতদিনে পাকির আলী হাসলেন

এতদিনে পাকির আলী হাসলেন

লালু প্রসাদ যাদবের স্বাস্থ্যের অবনতি, নেওয়া হচ্ছে দিল্লি

লালু প্রসাদ যাদবের স্বাস্থ্যের অবনতি, নেওয়া হচ্ছে দিল্লি

পরপর তিন বার দল ক্ষমতায় থাকায় অনেকের মাঝে আলস্য এসেছে: তথ্যমন্ত্রী

পরপর তিন বার দল ক্ষমতায় থাকায় অনেকের মাঝে আলস্য এসেছে: তথ্যমন্ত্রী

চীনের উহানে লকডাউন ঘোষণার বর্ষপূর্তি

চীনের উহানে লকডাউন ঘোষণার বর্ষপূর্তি

খুবির এক শিক্ষক বরখাস্ত, অপর ২ জনকে অপসারণে সিন্ডিকেটে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত

খুবির এক শিক্ষক বরখাস্ত, অপর ২ জনকে অপসারণে সিন্ডিকেটে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত

আদালতের মাধ্যমে পরিবারের কাছে ফিরে গেলো সেই সাহসী কিশোরী

আদালতের মাধ্যমে পরিবারের কাছে ফিরে গেলো সেই সাহসী কিশোরী

সিলেট পেলো আরেকটি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম

সিলেট পেলো আরেকটি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম

‘চলচ্চিত্রকে গণতান্ত্রিক আকাঙ্ক্ষা ধারণ করতে হবে’

‘চলচ্চিত্রকে গণতান্ত্রিক আকাঙ্ক্ষা ধারণ করতে হবে’

‘মুক্তিযুদ্ধের চার মূলনীতি না ফেরালে দেশের অস্তিত্ব রক্ষা কঠিন’

‘মুক্তিযুদ্ধের চার মূলনীতি না ফেরালে দেশের অস্তিত্ব রক্ষা কঠিন’

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

উপহারের ঘর পেয়ে জেলায় জেলায় গৃহহীনদের হাসিমুখ

উপহারের ঘর পেয়ে জেলায় জেলায় গৃহহীনদের হাসিমুখ

খুবির এক শিক্ষক বরখাস্ত, অপর ২ জনকে অপসারণে সিন্ডিকেটে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত

খুবির এক শিক্ষক বরখাস্ত, অপর ২ জনকে অপসারণে সিন্ডিকেটে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত

সুন্দরবনে বাঘের আক্রমণে নিহত দু'জনের  লাশ ভারতে উদ্ধার

সুন্দরবনে বাঘের আক্রমণে নিহত দু'জনের লাশ ভারতে উদ্ধার

বাসের ধাক্কায় প্রাণ গেলো স্ত্রীর, স্বামী আহত

বাসের ধাক্কায় প্রাণ গেলো স্ত্রীর, স্বামী আহত

ঝিনাইদহে ট্রাকচাপায় নারী নিহত

ঝিনাইদহে ট্রাকচাপায় নারী নিহত

অনশনরত খুবির দুই শিক্ষার্থীর সঙ্গে কথা বললেন কে‌সি‌সি মেয়র

অনশনরত খুবির দুই শিক্ষার্থীর সঙ্গে কথা বললেন কে‌সি‌সি মেয়র

পিকনিক বাসের চাপায় মোটরসাইকেল গুঁড়ো, যুবক নিহত

পিকনিক বাসের চাপায় মোটরসাইকেল গুঁড়ো, যুবক নিহত

দুই জেলেকে ‘টেনে নিয়ে গেছে’ বাঘ, নিরুদ্দেশ একজন

দুই জেলেকে ‘টেনে নিয়ে গেছে’ বাঘ, নিরুদ্দেশ একজন

মুজিববর্ষ উপলক্ষে জেলায় জেলায় ঘর পাচ্ছেন গৃহহীনরা

মুজিববর্ষ উপলক্ষে জেলায় জেলায় ঘর পাচ্ছেন গৃহহীনরা

নড়াইলে গৃহহীনদের জন্য নির্মিত হচ্ছে ৩২৫টি বাড়ি

নড়াইলে গৃহহীনদের জন্য নির্মিত হচ্ছে ৩২৫টি বাড়ি


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.