সেকশনস

আবাসস্থল ধ্বংস, কক্সবাজারে ১৩ হাতির অস্বাভাবিক মৃত্যু

আপডেট : ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১২:০৪

মৃত হাতি কক্সবাজারে অপরিকল্পিত উন্নয়ন, রোহিঙ্গা ও হাতির অভয়ারণ্য ধ্বংসের কারণে একের পর এক বন্যহাতির অস্বাভাবিক মৃত্যু হচ্ছে। শুধু চলতি মাসেই কক্সবাজার জেলায় ৩টি হাতি মারা গেছে। এ নিয়ে গত দুই বছরে মারা গেছে ১৩টি এশিয়ান বন্যহাতি। এ নিয়ে পরিবেশবাদী সংগঠনগুলোর কর্মকর্তারা উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। তারা বলছেন, রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিতে গিয়ে হাতির আবাসস্থল উজাড়, চলাচলের করিডরে চরমভাবে বাধাগ্রস্থ ও খাদ্য সংকটে পড়েছে হাতিরা। প্রায় লোকালয়ে হানা দেয় বন্যহাতির দল। এ কারণে ফসল রক্ষায় বিদ্যুৎ শক ও গুলি করে হত্যা করা হচ্ছে হাতি।

সারাদেশের মহাবিপন্ন এশিয়ান হাতির ২৬৮টির দুই তৃতীয়াংশের বাস কক্সবাজার ও পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলে। কিন্তু কক্সবাজার ও পার্শ্ববর্তী বনাঞ্চলে রেললাইন, রোহিঙ্গা বসতি, বিভিন্ন প্রকল্প, অবৈধ জবরদখলসহ বিভিন্ন কারণে এসব হাতির নিরাপদ আবাসস্থল ধ্বংস, পর্যাপ্ত খাদ্যাভাব, চলাচলের করিডর চরমভাবে বাধাগ্রস্থ হয়েছে। ফলে এসব হাতি লোকালয়ে হানা দিচ্ছে।

গত ৬ নভেম্বর চকরিয়ার খুটাখালী বনাঞ্চলে একটি বাচ্চা হাতিকে গুলি করে হত্যা করা হয়। ১৬ নভেম্বর রামুর জোয়ারিয়ানালা বনাঞ্চলে গুলিবিদ্ধ হয়ে ৩০ বছর বয়সী স্ত্রী হাতি মারা যায়। আর ১৭ নভেম্বর রামুর দক্ষিণ মিঠাছড়িতে বিদ্যুত শক ও গুলি করে আরও একটি হাতিকে হত্যা করা হয়। একইভাবে গত দুই বছরে কক্সবাজার ও আশপাশের অঞ্চলে অস্বাভাবিকভাবে মৃত্যু হয়েছে ১৩টি বন্যহাতির।

কক্সবাজারে একের পর এক এশিয়ান হাতির মৃত্যুর ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে পরিবেশ বিষয়ক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের নেতারা জানান, নিরাপদ আবাসস্থল তৈরি, খাদ্য সংকট দূর করা, হাতি চলাচলের করিডোর নিরাপদ ও নির্বিঘ্ন রাখা, হাতি হত্যায় জড়িতদের দ্রুত চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনা, মানুষের মধ্যে সচেতনতা তৈরি, বনভূমি দখল রোধ, বনাঞ্চল তৈরিসহ মহাবিপন্ন এশিয়ান হাতি সুরক্ষায় সরকারকে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে। তা নাহলে মানুষের নির্মমতায় দিন দিন বিলুপ্ত হয়ে পড়বে বন্যহাতি।

কক্সবাজার বন ও পরিবেশ সংরক্ষণ পরিষদের সভাপতি দীপক শর্মা দীপু বলেন, ‘কক্সবাজারে অপরিকল্পিত উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ চলছে। বিশেষ করে রেললাইন ও রোহিঙ্গাদের কারণে বন্যহাতির আবাসস্থল ধ্বংস হয়ে গেছে। গভীর বনাঞ্চলেও মানুষেরা অবৈধ দখলে নিয়ে বসতি স্থাপন করেছে। এতে করে চরম খাদ্য সংকট সৃষ্টি হওয়ায় হাতিগুলো লোকালয়ে মানুষের ফসলে হানা দিচ্ছে এবং মানুষের নির্মমতায় মারা যাচ্ছে এশিয়ান হাতি।’

মৃত হাতি

পরিবেশবাদী সংগঠন এনভায়রনমেন্ট পিপলের প্রধান নির্বাহী রাশেদুল মজিদ বলেন, ‘কক্সবাজারে একের পর এক বন্যহাতিকে গুলি করে হত্যা করা হচ্ছে। হাতি ও মানুষের মধ্যে দ্বন্দ্বের কারণে এ অবস্থা সৃষ্টি হচ্ছে। কক্সবাজার অঞ্চলে যেসব বন্যহাতি রয়েছে তারা একটি নির্দিষ্ট এলাকায় বন্দি হয়ে আছে। হাতির আবাসস্থল দিয়ে অপরিকল্পিত রেললাইন ও রোহিঙ্গা বসতি গড়ে উঠায় এ পর্যন্ত ২২টি হাতির কলিডোর বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে হাতিগুলো লোকালয়ে হানা দিচ্ছে এবং এক শ্রেণির দুষ্কৃতিকারিরা হাতিগুলোকে গুলি করে হত্যা করছে। হাতিগুলোকে বাঁচাতে গেলে সরকারকে সঠিক কর্মপরিকল্পনা হাতে নিতে হবে।’

কক্সবাজার পরিবেশ অধিদফতরের উপপরিচালক নাজমুল হুদা জানিয়েছেন, ‘কক্সবাজারে বিভিন্ন এলাকায় হাতি সহ বন্যপ্রাণী হত্যার বিষয়টি ব্যাপক আকার ধারণ করেছে। পাহাড় কাটাসহ বিভিন্ন মানব সৃষ্ট কারণে এসব হাতি ও বন্যপ্রাণীর আবাসস্থল ধ্বংস করা হচ্ছে অবিরত। ফলে তাদের খাদ্য সংকট দেখা দিয়েছে। পাহাড় কাটা রোধসহ বন্যপ্রাণীর অভয়াশ্রম বা আভাসস্থল রক্ষায় পরিবেশ অধিদফতার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে পরিবেশ অধিদফতর।

এ বিষয়ে জানতে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলে কক্সবাজার দক্ষিণ ও উত্তর বিভাগীয় বন কর্মকর্তাদের কোনও বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কক্সবাজার বন বিভাগের এক কর্মকর্তা জানান, চলতি মাসে ৩টি বন্যহাতিকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্টে দেখা গেছে প্রতিটি হাতিকে ৪-৮টি পর্যন্ত গুলি করা হয়েছে। পাশাপাশি বিদ্যুৎ শকের চিহ্নও রয়েছে। ফলে মানুষের এমন নির্মমতায় এশিয়ান হাতি বিলুপ্ত হওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে।

 

/এসটি/

সম্পর্কিত

সংবর্ধনা সভায় ৩১ জানুয়ারি আধাবেলা হরতাল ডাকলেন কাদের মির্জা

সংবর্ধনা সভায় ৩১ জানুয়ারি আধাবেলা হরতাল ডাকলেন কাদের মির্জা

প্রশ্ন তোলার জন্যই বিএনপি নিবার্চনে অংশ নিয়েছে: তথ্যমন্ত্রী

প্রশ্ন তোলার জন্যই বিএনপি নিবার্চনে অংশ নিয়েছে: তথ্যমন্ত্রী

এগিয়ে রেজাউল

এগিয়ে রেজাউল

ফেনী পৌরসভায় শান্তিপূর্ণ নির্বাচন চান সব প্রার্থী

ফেনী পৌরসভায় শান্তিপূর্ণ নির্বাচন চান সব প্রার্থী

কক্সবাজার জেলা হাসপাতালে আগুন: হুড়োহুড়িতে মুমূর্ষু রোগীর মৃত্যু

কক্সবাজার জেলা হাসপাতালে আগুন: হুড়োহুড়িতে মুমূর্ষু রোগীর মৃত্যু

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রথম ধাপে আসছে ১২ হাজার টিকা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রথম ধাপে আসছে ১২ হাজার টিকা

এক নির্বাচনে ঝরে গেলো তিন প্রাণ

এক নির্বাচনে ঝরে গেলো তিন প্রাণ

আবদুল কাদের মির্জাকে নাগরিক সংবর্ধনা

আবদুল কাদের মির্জাকে নাগরিক সংবর্ধনা

আ.লীগের সঙ্গে নির্বাচন হয়নি, হয়েছে রাষ্ট্রযন্ত্রের সাথে: ডা. শাহাদাত

আ.লীগের সঙ্গে নির্বাচন হয়নি, হয়েছে রাষ্ট্রযন্ত্রের সাথে: ডা. শাহাদাত

শুক্রবার ভাসানচরে পৌঁছাবে রোহিঙ্গাদের তৃতীয় দল

শুক্রবার ভাসানচরে পৌঁছাবে রোহিঙ্গাদের তৃতীয় দল

কক্সবাজার সদর হাসপাতালে আগুন

কক্সবাজার সদর হাসপাতালে আগুন

সর্বশেষ

সন্ত্রাসী হামলার আশঙ্কায় সতর্কতার মাত্রা বাড়ালো যুক্তরাষ্ট্র

সন্ত্রাসী হামলার আশঙ্কায় সতর্কতার মাত্রা বাড়ালো যুক্তরাষ্ট্র

কাউন্সিলর সাত্তার কারাগারে, পিবিআই’র রিমান্ড আবেদন

যুবলীগ নেতা জিল্লুর হত্যাকাউন্সিলর সাত্তার কারাগারে, পিবিআই’র রিমান্ড আবেদন

সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৮, পাঁচ জনই মোটরসাইকেল আরোহী

সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৮, পাঁচ জনই মোটরসাইকেল আরোহী

যশোরে হত্যা মামলায় একজনের যাবজ্জীবন

যশোরে হত্যা মামলায় একজনের যাবজ্জীবন

সংবর্ধনা সভায় ৩১ জানুয়ারি আধাবেলা হরতাল ডাকলেন কাদের মির্জা

সংবর্ধনা সভায় ৩১ জানুয়ারি আধাবেলা হরতাল ডাকলেন কাদের মির্জা

নৌকার নির্বাচনি অফিসে আগুন: আ.লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক গ্রেফতার

নৌকার নির্বাচনি অফিসে আগুন: আ.লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক গ্রেফতার

এসএসসি পাস করেননি অর্ধেকের বেশি কাউন্সিলর প্রার্থী

এসএসসি পাস করেননি অর্ধেকের বেশি কাউন্সিলর প্রার্থী

এমসি কলেজে ধর্ষণ ও চাঁদাবাজির পৃথক মামলা একসঙ্গে চলবে না

এমসি কলেজে ধর্ষণ ও চাঁদাবাজির পৃথক মামলা একসঙ্গে চলবে না

মাদারীপুরে শাহেদ হত্যা মামলায় দু’জনের মৃত্যুদণ্ডাদেশ

মাদারীপুরে শাহেদ হত্যা মামলায় দু’জনের মৃত্যুদণ্ডাদেশ

চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে বিজয়ী যারা

চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে বিজয়ী যারা

ইসলামী ব্যাংক ও ঢাকা ওয়াসার মধ্যে গ্রাহকসেবা চুক্তি স্বাক্ষরিত

ইসলামী ব্যাংক ও ঢাকা ওয়াসার মধ্যে গ্রাহকসেবা চুক্তি স্বাক্ষরিত

চট্টগ্রামের মেয়র নির্বাচিত হলেন রেজাউল করিম চৌধুরী

চট্টগ্রামের মেয়র নির্বাচিত হলেন রেজাউল করিম চৌধুরী

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সংবর্ধনা সভায় ৩১ জানুয়ারি আধাবেলা হরতাল ডাকলেন কাদের মির্জা

সংবর্ধনা সভায় ৩১ জানুয়ারি আধাবেলা হরতাল ডাকলেন কাদের মির্জা

প্রশ্ন তোলার জন্যই বিএনপি নিবার্চনে অংশ নিয়েছে: তথ্যমন্ত্রী

প্রশ্ন তোলার জন্যই বিএনপি নিবার্চনে অংশ নিয়েছে: তথ্যমন্ত্রী

এগিয়ে রেজাউল

এগিয়ে রেজাউল

ফেনী পৌরসভায় শান্তিপূর্ণ নির্বাচন চান সব প্রার্থী

ফেনী পৌরসভায় শান্তিপূর্ণ নির্বাচন চান সব প্রার্থী

কক্সবাজার জেলা হাসপাতালে আগুন: হুড়োহুড়িতে মুমূর্ষু রোগীর মৃত্যু

কক্সবাজার জেলা হাসপাতালে আগুন: হুড়োহুড়িতে মুমূর্ষু রোগীর মৃত্যু

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রথম ধাপে আসছে ১২ হাজার টিকা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রথম ধাপে আসছে ১২ হাজার টিকা

এক নির্বাচনে ঝরে গেলো তিন প্রাণ

এক নির্বাচনে ঝরে গেলো তিন প্রাণ

আবদুল কাদের মির্জাকে নাগরিক সংবর্ধনা

আবদুল কাদের মির্জাকে নাগরিক সংবর্ধনা

আ.লীগের সঙ্গে নির্বাচন হয়নি, হয়েছে রাষ্ট্রযন্ত্রের সাথে: ডা. শাহাদাত

আ.লীগের সঙ্গে নির্বাচন হয়নি, হয়েছে রাষ্ট্রযন্ত্রের সাথে: ডা. শাহাদাত

শুক্রবার ভাসানচরে পৌঁছাবে রোহিঙ্গাদের তৃতীয় দল

শুক্রবার ভাসানচরে পৌঁছাবে রোহিঙ্গাদের তৃতীয় দল


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.