X

সেকশনস

‘মধ্যস্বত্বভোগীদের নিবন্ধনের প্রধান ফোকাল পয়েন্ট হতে পারে বিএমইটি’

আপডেট : ২৯ নভেম্বর ২০২০, ২৩:৩৭

ওয়েবিনারে যুক্ত হয়ে বক্তব্য রাখছেন আনিসুল ইসলাম মাহমুদ সাবেক মন্ত্রী, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আনিসুল ইসলাম মাহমুদ মনে করেন, মধ্যস্বত্বভোগীদের নিবন্ধনের প্রধান ফোকাল পয়েন্ট হতে পারে জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরো (বিএমইটি)। রবিবার (২৯ নভেম্বর) রিফিউজি অ্যান্ড মাইগ্রেটরি মুভমেন্ট রিসার্চ ইউনিট (রামরু) আয়োজিত মধ্যস্বত্বভোগীদের নিয়মিতকরণ বিষয়ে এক ওয়েবিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। 

আনিসুল ইসলাম মাহমুদ বলেন, ‘২০১৮ সালে নতুন সংসদ আসার পর ২-৩টি সভার মধ্যেই আমরা সমস্যাটি এনেছিলাম। আমরা সভা করে কিছু নির্দেশনা দিয়েছিলাম। ২০১৯ সালে প্রধানমন্ত্রী আগ্রহের সঙ্গে বলেছেন এবং নির্দেশনা দিয়েছেন যে, মধ্যস্বত্বভোগীদের নিবন্ধন করতে হবে। গত অক্টোবরে আমরা বায়রার সঙ্গে সভা করেছি।  তারা কথা দিয়েছে যে, নিবন্ধনে  যাবে। এই মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী এ বিষয়ে অনেক সচেতন। তিনি বেশকিছু পদক্ষেপও নিয়েছেন। এ জন্য তিনি কমিটিও করেছেন। আমি আশা করবো এটা হবে।’

তিনি বলেন, ‘এই নিবন্ধনের প্রধান ফোকাল পয়েন্ট হতে পারে বিএমইটি। রিক্রুটিং এজেন্সির ১০টি সাব এজেন্ট থাকতে পারে। আমাকেই ঠিক করতে হবে কাকে সাব এজেন্ট হিসেবে রাখবো। নির্ধারণ করার পর তারা বায়রাকে জানাবে এবং রেজিস্ট্রেশন করবে বিএমইটি। যেই লোকগুলো বর্তমানে আছে, তারাই কাজ করুক এবং নিবন্ধন করুক। যাতে আমরা চিহ্নিত করতে পারি। যখন একটা মানুষ টাকা দিয়েও বিদেশে যেতে পারেন না, সেটার ক্ষতি পোষানোর একটা ব্যবস্থা আমাকে করতে হবে।’

আনিসুল ইসলাম মাহমুদ বলেন, ‘আমি মনে করি, উপজেলা পর্যায়ে ইউএনও অফিসকেও এর মধ্যে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘‘আইন করা হলে আমাদের ‘দালাল’ শব্দটি বাদ দিতে হবে। তারা যে কাজগুলো করছে, তাদেরকে দালাল নামে অবহিত করলে অন্য অর্থ মনে হতে পারে। বায়রার অনেক সমালোচনার বাইরে বলতে চাই, রিক্রুটিং এজেন্সি কিন্তু আজকে আমাদের অর্থনৈতিক একটা স্তম্ভ তৈরি করে দিয়েছে। যার ওপর সব ক্রাইসিসের পরও বাংলাদেশ স্থিতিশীল অবস্থায় থাকে।  ২০০৮ সাল এবং বর্তমান মহামারিতে আমাদের যে ক্রাইসিস হয়েছে, সেখানে কিন্তু এই সেক্টর দাঁড়িয়ে ছিল। জুলাই মাসে ২ দশমিক ৬ বিলিয়ন ডলার রেমিট্যান্স এসেছে। আমরা  বলি, এক কোটি মানুষ দেশের বাইরে আছেন। আর যে পরিমাণ রেমিট্যান্স এসেছে, এখানে বায়রার অনেক বড় অবদান আছে। কিন্তু বায়রাকেও এখন দালালদের নিয়মিতকরণ করতে হবে।’

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. আহমেদ মুনিরুছ সালেহীন বলেন, ‘আমাদের প্রথমত মাইগ্রেশনের ন্যারেটিভটাকে পজিটিভ করতে হবে। তার পথে বড় একটা বাঁধা হচ্ছে মধ্যস্বত্বভোগীদের ভূমিকা। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই তারা হয়তো ভালো কাজ করছেন না, কিন্তু তাদের একটি অবদান এই সেক্টরে আছে। আমাদের অবশ্যই রিক্রুটিং এজেন্টদের ভূমিকাকে স্বীকৃতি দিতে হবে। তারা অবশ্যই সম্মানজনক স্বীকৃতি পাওয়ার মতো কাজ করছেন। আমার মতে, রিক্রুটিং এজেন্টরা তাদের প্রতিনিধির নাম বায়রার মাধ্যমে দেবেন এবং সেটা অনুমোদন দেবে বিএমইটি। এটা করলে অবকাঠামোর ভেতরে যে জবাবদিহিতার জায়গা আনার কথা বলা হচ্ছে, তার সবই সম্ভব।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী একাধিকবার বলেছেন যে, দলালাদের দৌড়াত্ম্য কমাতে হবে যেকোনও মূল্যে। এর অর্থ তিনি এটা বলেননি যে, তাদের বাদ দিতে হবে সিস্টেম থেকে। যতদিন না আমরা বিকল্প কিছু করতে পারছি, আমাদের মধ্যস্বত্বভোগী সিস্টেমে থাকতে হবে। আমরা যে তাদের নিবন্ধন করবো, এর জন্য সবচেয়ে বেশি উদ্যোগী হতে হবে বায়রাকে। বায়রাকে পরিচালিত করার জন্য আমরা যে কমিটি করেছি, সেটার কাছ থেকে আমরা রেজাল্ট চাই। কারণ, দিন শেষে কোনও কাজই হবে না, এরকম অবস্থা আমরা কোনোভাবেই কাম্য করি না। আমাদের মন্ত্রীর আন্তরিকতার অভাব নেই। মন্ত্রণালয়ের সাপোর্টের কোনও ঘাটতি নেই।’    

ওয়েবিনারের শুরুতেই মধ্যস্বত্বভোগীদের রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়ার একটি মডেল তুলে ধরেন রামরু’র প্রতিষ্ঠাতা চেয়ার ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. তাসনিম সিদ্দিকী। অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন— সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার শামিম হায়দার চৌধুরী, এরোমা দত্ত, বিএমইটি’র মহাপরিচালক শামসুল আলম, বায়রার মহাসচিব শামীম আহমেদ চৌধুরী, ব্রিটিশ কাউন্সিলের ‘প্রকাশ প্রকল্পের’ পরিচালক গেরি ফক্স, মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মোহাম্মদ শাহিন, প্রকাশ প্রকল্পের সিনিয়র আইবিপি ম্যানেজার শারমিন লিরা প্রমুখ।

 

/এসও/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

ডলার আয় করলে কার্ডে নিতে ঘোষণা দিতে হবে না

ডলার আয় করলে কার্ডে নিতে ঘোষণা দিতে হবে না

‘উচ্চশিক্ষার বিস্তার হয়েছে, এখন প্রয়োজন গুণগত মান নিশ্চিত করা’

‘উচ্চশিক্ষার বিস্তার হয়েছে, এখন প্রয়োজন গুণগত মান নিশ্চিত করা’

ইফুডে যুক্ত হলো কেএফসি-পিৎজা হাট

ইফুডে যুক্ত হলো কেএফসি-পিৎজা হাট

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় স্বরূপে ফিরে আসুক: প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় স্বরূপে ফিরে আসুক: প্রধানমন্ত্রী

হিলিতে অন্যান্য টিকার সঙ্গে করোনার ভ্যাকসিন সংরক্ষণের প্রস্তুতি

হিলিতে অন্যান্য টিকার সঙ্গে করোনার ভ্যাকসিন সংরক্ষণের প্রস্তুতি

ভ্যাকসিনবিষয়ক ‘সুরক্ষা অ্যাপ’ ২৫ জানুয়ারি হস্তান্তর

ভ্যাকসিনবিষয়ক ‘সুরক্ষা অ্যাপ’ ২৫ জানুয়ারি হস্তান্তর

তিন এসপির বদলি ও পদায়ন

তিন এসপির বদলি ও পদায়ন

বাংলাদেশকে নতজানু রাখার ষড়যন্ত্র চলছে: মির্জা ফখরুল

বাংলাদেশকে নতজানু রাখার ষড়যন্ত্র চলছে: মির্জা ফখরুল

স্থানীয় সরকার নির্বাচন: আ. লীগের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহের আহ্বান

স্থানীয় সরকার নির্বাচন: আ. লীগের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহের আহ্বান

শনাক্ত ৫ লাখ ৩০ হাজার ছাড়ালো

শনাক্ত ৫ লাখ ৩০ হাজার ছাড়ালো

ঢামেকে সবার আগে ভ্যাকসিন পাবেন হাসপাতালের স্টাফরা

ঢামেকে সবার আগে ভ্যাকসিন পাবেন হাসপাতালের স্টাফরা

সর্বশেষ

ডলার আয় করলে কার্ডে নিতে ঘোষণা দিতে হবে না

ডলার আয় করলে কার্ডে নিতে ঘোষণা দিতে হবে না

ভেঙে ফেলা হবে আমিনবাজার, সালেহপুর ও নয়ারহাট ব্রিজ

ভেঙে ফেলা হবে আমিনবাজার, সালেহপুর ও নয়ারহাট ব্রিজ

‘উচ্চশিক্ষার বিস্তার হয়েছে, এখন প্রয়োজন গুণগত মান নিশ্চিত করা’

‘উচ্চশিক্ষার বিস্তার হয়েছে, এখন প্রয়োজন গুণগত মান নিশ্চিত করা’

নমুনা দিলেন টেস্ট দলের ক্রিকেটাররা

নমুনা দিলেন টেস্ট দলের ক্রিকেটাররা

ইফুডে যুক্ত হলো কেএফসি-পিৎজা হাট

ইফুডে যুক্ত হলো কেএফসি-পিৎজা হাট

মায়েদের বাঁচাতে তিন চাকার গ্রামীণ অ্যাম্বুলেন্স

মায়েদের বাঁচাতে তিন চাকার গ্রামীণ অ্যাম্বুলেন্স

স্বামীর প্ররোচনায় ভয়ংকর হয়ে ওঠেন রেখা

স্বামীর প্ররোচনায় ভয়ংকর হয়ে ওঠেন রেখা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় স্বরূপে ফিরে আসুক: প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় স্বরূপে ফিরে আসুক: প্রধানমন্ত্রী

লন্ডনে বাঙালির ঘরে ঘরে স্বজন হারানোর আর্তনাদ

লন্ডনে বাঙালির ঘরে ঘরে স্বজন হারানোর আর্তনাদ

নারীর স্নানদৃশ্য ধারণের অভিযোগে ছাত্রলীগ নেতা কারাগারে

নারীর স্নানদৃশ্য ধারণের অভিযোগে ছাত্রলীগ নেতা কারাগারে

খুলনায় নতুন ঘরসহ জমি পাচ্ছে ৯২২ পরিবার

খুলনায় নতুন ঘরসহ জমি পাচ্ছে ৯২২ পরিবার

স্বল্পসুদে ২০৮৯ ক্ষুদ্র-মাঝারি উদ্যোক্তাকে ১১৩ কোটি টাকা ঋণ দিলো এসএমই ফাউন্ডেশন

স্বল্পসুদে ২০৮৯ ক্ষুদ্র-মাঝারি উদ্যোক্তাকে ১১৩ কোটি টাকা ঋণ দিলো এসএমই ফাউন্ডেশন

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

‘উচ্চশিক্ষার বিস্তার হয়েছে, এখন প্রয়োজন গুণগত মান নিশ্চিত করা’

‘উচ্চশিক্ষার বিস্তার হয়েছে, এখন প্রয়োজন গুণগত মান নিশ্চিত করা’

ইফুডে যুক্ত হলো কেএফসি-পিৎজা হাট

ইফুডে যুক্ত হলো কেএফসি-পিৎজা হাট

তিন এসপির বদলি ও পদায়ন

তিন এসপির বদলি ও পদায়ন

খুবির তিন শিক্ষকরে স্বপদে বহালের দাবিতে ৬৬ শিক্ষকের বিবৃতি

খুবির তিন শিক্ষকরে স্বপদে বহালের দাবিতে ৬৬ শিক্ষকের বিবৃতি

করোনায় সাংবাদিক আফজাল মোহাম্মদের মৃত্যু

করোনায় সাংবাদিক আফজাল মোহাম্মদের মৃত্যু

সব ওয়ার্ডে একটি করে কমিউনিটি সেন্টার হবে: তাপস

সব ওয়ার্ডে একটি করে কমিউনিটি সেন্টার হবে: তাপস

পিপলস লিজিংয়ের ২৮০ ঋণখেলাপিকে হাইকোর্টে তলব

পিপলস লিজিংয়ের ২৮০ ঋণখেলাপিকে হাইকোর্টে তলব


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.