সেকশনস

কৃষিকাজে যুক্ত মাত্র ১৫ ভাগ নারী মজুরি পান: গবেষণা

আপডেট : ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ২২:৪০

কৃষিকাজে যুক্ত আছেন এমন ১৫ ভাগের কাছাকাছি নারী মজুরি পান বলে এক গবেষণায় উঠে এসেছে। বৃহস্পতিবার (৩ ডিসেম্বর) মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন (এমজেএফ) আয়োজিত এক ওয়েববিনারে ‘কৃষিতে নারীর কাজের মূল্যায়ন’ শীর্ষক গবেষণাপত্রটি উপস্থাপন করা হয়।

গবেষণাপত্রটি উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক এবং জেন্ডার বিশেষজ্ঞ ড. ইসমত আরা বেগম। তাকে গবেষণার কাজে সহায়তা করেন একই বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম এবং ড. মাহবুব হোসেন।

২০১৯ সালের মাঝামাঝিতে শুরু হওয়া এই গবেষণাতে দেখানোর চেষ্টা করা হয়েছে বাংলাদেশে কৃষিকাজের কতটা নারীর দ্বারা সম্পাদিত হয়। পরিবারের কতটা খাবারের যোগান দেন নারী। গ্রামীণ শ্রমবাজারে নারী কতটা বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন। বিবিএস পরিসংখ্যানে কী গ্রামীণ নারীর কাজকে ঠিকমতো তুলে ধরা হয়েছে? এমন কি কোনও প্রমাণ আছে যে, গ্রামীণ পুরুষরা লাভের আশায় কৃষিকাজ ছেড়ে অন্য পেশায় চলে যাচ্ছেন এবং নারীরা কৃষি-ব্যবস্থাপনায় মূল চালিকাশক্তি হতে চলেছেন?

গবেষণার কারণ হচ্ছে ধান উৎপাদন, গবাদিপশু পালন, হাঁস-মুরগি পালন এবং মাছ চাষে নারীর অংশগ্রহণ কতটা? এটা দেখা যে, কৃষিখাতে নারী শ্রমিক তাদের কাজের পাওনা পাওয়ার ক্ষেত্রে পুরুষের চেয়ে কতটা বৈষম্যের শিকার হন। গ্রামীণ নারী তাদের কাজের কতটা উৎপাদনশীল কাজে এবং কতটা অনুৎপাদনশীল কাজে ব্যয় করেন এবং শ্রম বাজারে প্রবেশের ক্ষেত্রে নারীর বড় বাধাগুলো কী কী?

গবেষণাপত্রে বলা হয়, ‘সবচেয়ে বেশি উদ্বেগের কারণ হচ্ছে, কৃষিতে মজুরিযুক্ত কাজে নারীর সংখ্যা মাত্র ১৫ ভাগের কাছাকাছি। গবাদিপশুর লালন পালন ও খাদ্যশস্য উৎপাদনে নারীর অনেক বেশি অংশগ্রহণ থাকার পরও এত অল্প সংখ্যা দেখে এটাই প্রমাণিত হয় যে, গ্রামীণ জীবনে আনুষ্ঠানিক অর্থনৈতিক খাতে নারীর কাজের পরিধি এখনও খুবই সামান্য। গ্রামের সাপ্তাহিক বাজারে নারীর উপস্থিতি খুব একটা চোখে না পড়লেও, ইদানিং জীবিকার প্রয়োজনে তারা বাজারে আসছেন। যদিও তাদের বিক্রয়লব্ধ অর্থ স্বামী গ্রহণ করেন এবং এই টাকা ব্যয় করার অধিকারও তাদের নেই। ফলে এই কাজে নারীর যে শ্রম ও সময় ব্যয় হলো, তা অবমূল্যায়িতই থেকে গেলো।’

এতে বলা হয়, গ্রামীণ নারীদের অনেকেই মনে করেন, তারা আগের চাইতে অধিক হারে অর্থনৈতিক কাজে অংশ নিতে পারলেও, নিজেদের অর্জিত টাকা ব্যয়ের সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে এখনও তাদের সুযোগ খুব কম, নারীকে কাজ করতে হয় মূলত পারিবারিক শ্রমিক হিসেবে, কাজেই তাদের আয়ের পরিমাণ খুবই সামান্যই রয়ে গেছে।

আরও জানা যায়, দেশে মোট ৫ কোটি ৬৭ লাখ কর্মজীবী মানুষের মধ্যে শতকরা ৪৭.৬ জন কৃষিকাজের সঙ্গে জড়িত। আবার এদের মধ্যে শতকরা ৬৪.৮ জন নারী। অথচ অধিকাংশ ক্ষেত্রে নারীরা জমির মালিক নন। তাই তদারকির দায়িত্বে নয়, বরং তাদের কাজ করতে দেখা যায় জমিতে।

আজকের আলোচনায় আরও উঠে এসেছে, স্যাটেলাইট অ্যাকাউন্ট সিস্টেমের কথা। এটি একটি হিসাব পদ্ধতি, যা দিয়ে ঘরের অ-অর্থনৈতিক সেবামূলক বা গৃহস্থালি কাজ মাপা হয়। এই কাজগুলো কোনও অর্থনৈতিক লেনদেন বা ক্ষতিপূরণ পাওয়ার আশা ছাড়াই গৃহিনীরা করে থাকেন। তাদের এই কাজগুলো উৎপাদনের জাতীয় হিসাবের বাইরে থাকে অথবা জাতীয় আয় পরিমাপের পদ্ধতির (এসএনএ) বাইরে থাকে।

যেহেতু আর্থিক মূল্য ছাড়া কোনও কাজই বাজার অর্থনীতির অর্ন্তভুক্ত হয় না, আর তাই অর্থনীতিবিদরা সাধারণত স্যাটেলাইট অ্যাকাউন্ট সিস্টেমের ওপর নির্ভর করেন। স্যাটেলাইট অ্যাকাউন্ট সিস্টেমের মাধ্যমে নারীর অমূল্যায়িত কাজকে চিহ্নিত করে অর্থনীতিবিদরা জাতীয় আয় পরিমাপের পদ্ধতি বা সিস্টেম অব ন্যাশনাল অ্যাকাউন্টস (এসএনএ) এর কঠিন সীমাবদ্ধ চৌহদ্দি অতিক্রম করতে পারেন। যদিও গ্রামে মেয়েরা অধিক হারে পড়াশোনা করার সুযোগ পাচ্ছেন, এলাকায় কৃষিবিষয়ক তথ্য পাওয়ার ক্ষেত্রে তাদের প্রবেশাধিকার সহজ হয়েছে এবং বিভিন্ন অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে যোগ দেওয়ার লক্ষ্যে সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার পক্ষ থেকে সহয়তা করা হচ্ছে, কিন্তু এরপরও সব কাজের ক্ষেত্রেই নারী ও পুরুষের মধ্যে প্রকট বেতন বা মজুরি বৈষম্য রয়েছে। গ্রামীণ নারীকে ঘরে এবং বাইরে কাজের যে বোঝা বহন করতে হয়, তা পুরুষকে করতে হয় না।

শুধু যে গৃহস্থালি ও সেবামূলক কাজই গ্রামীণ নারীকে শ্রম বাজারে অনেক বেশি হারে প্রবেশে বাধা দেয়, তা নয়। গবেষণায় দেখা গেছে গ্রামীণ নারীর অবদানকে স্বীকার করে নেওয়ার ক্ষেত্রে জেন্ডার অর্থনীতির মাপকাঠির যে তত্ত্বীয় পরিমাপক আছে, তার ভিত্তিতে গ্রামীণ নারীর কাজকে বিচার করা হয়। এর পাশাপাশি তাদের অর্থনৈতিক কাজসমূহকে সিস্টেম অব ন্যাশনাল অ্যাকাউন্টস (এসএনএ) এর মাধ্যমে হিসাব করা হয়।

অথচ এই কাজগুলো কোনও অর্থনৈতিক লেনদেন বা ক্ষতিপূরণ পাওয়ার আশা ছাড়াই গ্রামীণ নারী সংসারে ও সংসারের বাইরে করে থাকেন। তাদের এই কাজগুলো উৎপাদনের জাতীয় হিসাবের বাইরে থাকে বা জাতীয় আয় পরিমাপের পদ্ধতির (এসএনএ) বাইরে থাকে। যেহেতু আর্থিক মূল্য ছাড়া কোনও কাজই বাজার অর্থনীতির অন্তর্ভুক্ত হয় না আর তাই গ্রামীণ নারীর অবৈতনিক ও অমূল্যায়িত গৃহস্থালি, সেবামূলক এবং কৃষিকাজের  মূল্যায়ন করে, জাতীয় জিডিপিতে তা অন্তর্ভুক্ত করা হয় না।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. বিদিশা হক, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতির সহকারী অধ্যাপক শারমিন্দ নিলোর্মী, শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. রোকেয়া বেগম এবং কৃষি মার্কেটিং ডিপার্টমেন্টের মহাপরিচালক মোহাম্মদ ইউসুফ আলোচনায় অংশ নেন।

অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক শাহীন আনাম।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যাঞ্চেলর ড. লুৎফুল হাসান, কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মেসবাহুল ইসলাম এবং প্রধান অতিথি ছিলেন সাংসদ সাবের হোসেন চেীধুরী।

 

/এসআইআর/আইএ/

সম্পর্কিত

পুলিশ পরিচয়ে প্রতারণা, দুই আসামির স্বীকারোক্তি

পুলিশ পরিচয়ে প্রতারণা, দুই আসামির স্বীকারোক্তি

গতানুগতিক পদ্ধতিতে এগিয়ে যাওয়া যাবে না: প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

গতানুগতিক পদ্ধতিতে এগিয়ে যাওয়া যাবে না: প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

রংপুর মেডিক্যালে শীতজনিত রোগে ৭ দিনে ১৭ মৃত্যু 

রংপুর মেডিক্যালে শীতজনিত রোগে ৭ দিনে ১৭ মৃত্যু 

হয়রানির শিকার ভূমি মালিকদের জন্য আইন করছে মন্ত্রণালয়

হয়রানির শিকার ভূমি মালিকদের জন্য আইন করছে মন্ত্রণালয়

ডাকাত সন্দেহে গণপিটুনিতে বৃদ্ধ নিহত

ডাকাত সন্দেহে গণপিটুনিতে বৃদ্ধ নিহত

ফেব্রুয়ারিতে খুলতে পারে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

ফেব্রুয়ারিতে খুলতে পারে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

হাতিয়ায় পল্লী চিকিৎসককে নির্যাতন ও ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় মামলা

হাতিয়ায় পল্লী চিকিৎসককে নির্যাতন ও ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় মামলা

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় নানা পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার: পরিবেশ মন্ত্রী

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় নানা পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার: পরিবেশ মন্ত্রী

হুমায়ুন আজাদ হত্যা মামলার অবশিষ্ট যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শুনানি ২৪ জানুয়ারি

হুমায়ুন আজাদ হত্যা মামলার অবশিষ্ট যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শুনানি ২৪ জানুয়ারি

দীপন হত্যা মামলা: আসামিপক্ষের অবশিষ্ট যুক্তি উপস্থাপন শুনানি আগামীকাল

দীপন হত্যা মামলা: আসামিপক্ষের অবশিষ্ট যুক্তি উপস্থাপন শুনানি আগামীকাল

সর্বশেষ

পুলিশ পরিচয়ে প্রতারণা, দুই আসামির স্বীকারোক্তি

পুলিশ পরিচয়ে প্রতারণা, দুই আসামির স্বীকারোক্তি

বাইডেনের অভিষেকে হামলার আশঙ্কা, যাচাই চলছে নিরাপত্তা কর্মীদের

বাইডেনের অভিষেকে হামলার আশঙ্কা, যাচাই চলছে নিরাপত্তা কর্মীদের

ডিজির ওপর চটলেন স্বাস্থ্য সচিব

ডিজির ওপর চটলেন স্বাস্থ্য সচিব

মুজিববর্ষে প্রধানমন্ত্রীর উপহার: ভোলায় প্রস্তুত ৫২০ ঘর

মুজিববর্ষে প্রধানমন্ত্রীর উপহার: ভোলায় প্রস্তুত ৫২০ ঘর

গতানুগতিক পদ্ধতিতে এগিয়ে যাওয়া যাবে না: প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

গতানুগতিক পদ্ধতিতে এগিয়ে যাওয়া যাবে না: প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

রংপুর মেডিক্যালে শীতজনিত রোগে ৭ দিনে ১৭ মৃত্যু 

রংপুর মেডিক্যালে শীতজনিত রোগে ৭ দিনে ১৭ মৃত্যু 

হয়রানির শিকার ভূমি মালিকদের জন্য আইন করছে মন্ত্রণালয়

হয়রানির শিকার ভূমি মালিকদের জন্য আইন করছে মন্ত্রণালয়

২৫ জানুয়ারির মধ্যে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে যাবে ‘সুরক্ষা’

২৫ জানুয়ারির মধ্যে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে যাবে ‘সুরক্ষা’

এইচএসকোডের জটিলতা কাটিয়ে হিলি দিয়ে চাল আমদানি শুরু

এইচএসকোডের জটিলতা কাটিয়ে হিলি দিয়ে চাল আমদানি শুরু

নির্বাচনকে ‘চর দখলে’ পরিণত করেছে সরকার: সাইফুল হক

নির্বাচনকে ‘চর দখলে’ পরিণত করেছে সরকার: সাইফুল হক

ডাকাত সন্দেহে গণপিটুনিতে বৃদ্ধ নিহত

ডাকাত সন্দেহে গণপিটুনিতে বৃদ্ধ নিহত

ফেব্রুয়ারিতে খুলতে পারে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

ফেব্রুয়ারিতে খুলতে পারে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

হয়রানির শিকার ভূমি মালিকদের জন্য আইন করছে মন্ত্রণালয়

হয়রানির শিকার ভূমি মালিকদের জন্য আইন করছে মন্ত্রণালয়

ফেব্রুয়ারিতে খুলতে পারে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

ফেব্রুয়ারিতে খুলতে পারে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

হুমায়ুন আজাদ হত্যা মামলার অবশিষ্ট যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শুনানি ২৪ জানুয়ারি

হুমায়ুন আজাদ হত্যা মামলার অবশিষ্ট যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শুনানি ২৪ জানুয়ারি

দীপন হত্যা মামলা: আসামিপক্ষের অবশিষ্ট যুক্তি উপস্থাপন শুনানি আগামীকাল

দীপন হত্যা মামলা: আসামিপক্ষের অবশিষ্ট যুক্তি উপস্থাপন শুনানি আগামীকাল

ব্লগার ওয়াশিকুর হত্যা মামলার পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণ ৪ ফেব্রুয়ারি

ব্লগার ওয়াশিকুর হত্যা মামলার পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণ ৪ ফেব্রুয়ারি

১৮ পেশাদার জুয়াড়ি গ্রেফতার

১৮ পেশাদার জুয়াড়ি গ্রেফতার

প্রাথমিকে অনলাইন বদলি শুরু ফেব্রুয়ারিতে

প্রাথমিকে অনলাইন বদলি শুরু ফেব্রুয়ারিতে


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.