সেকশনস

দুই প্রধানমন্ত্রীর ভার্চুয়াল উপস্থিতিতে বাংলাদেশ-ভুটান পিটিএ স্বাক্ষর হবে

আপডেট : ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ২৩:২৬

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং ভুটানের প্রধানমন্ত্রী ড. লোটে টি শিরিং বাংলাদেশ ও ভুটানের মধ্যে অগ্রাধিকারমূলক দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য চুক্তি-পিটিএ স্বাক্ষর হতে যাচ্ছে আগামী রবিবার (৬ ডিসেম্বর)। রাজধানীর রমনায় বাংলাদেশের ফরেন সার্ভিস অ্যাকাডেমিতে (সাবেক রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন-সুগন্ধা) এই চুক্তিস্বাক্ষর অনুষ্ঠিত হবে। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং ভুটানের প্রধানমন্ত্রী ড. লোটে টি শিরিং ভার্চুয়ালি এতে উপস্থিতি থাকবেন এবং বক্তব্য রাখবেন। বাংলাদেশের বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি এবং ভুটানের অর্থনীতি-বিষয়ক মন্ত্রী লোকনাথ শর্মা নিজ নিজ দেশের পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করবেন। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানিয়েছে, ২০২৪ সালে এলডিসি (স্বল্প উন্নত দেশ) থেকে বেরিয়ে উন্নয়নশীল দেশ হবে বাংলাদেশ। এর ফলে সারা বিশ্বেই এলডিসি হিসেবে পাওয়া সব বাণিজ্যিক সুবিধা বন্ধ হয়ে যাবে। এতে বাংলাদেশকে বাণিজ্য ও অর্থনীতিতে নেতিবাচক পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে হবে। সেই নেতিবাচক পরিস্থিতি সামাল দিয়ে ব্যবসা-বাণিজ্য ও অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির গতি ধরে রাখতে বিভিন্ন দেশের সঙ্গে পিটিএ বা এফটিএ স্বাক্ষর করা জরুরি। সেই উদ্যোগের অংশ হিসেবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সঙ্গে এফটিএ বা পিটিও করার বিষয়ে আলাপ আলোচনা হচ্ছে। ইতোমধ্যে ভুটানের সঙ্গে আলোচনা শেষ করে পিটিএ স্বাক্ষরের দিনক্ষণ চূড়ান্ত করেছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের সঙ্গে পিটিএ স্বাক্ষরের জন্য প্রথম রাষ্ট্র ভুটান।

সূত্র জানায়, বাংলাদেশকে স্বাধীন ও সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসেবে প্রথম স্বীকৃতিদানকারী রাষ্ট্র ভুটান। ১৯৭১ সালের ৬ ডিসেম্বর তৎকালীন ভুটান সরকার বাংলাদেশকে এই স্বীকৃতি দেয়। এই দিনটিকে স্মরণীয় করে রাখতেই পিটিএ স্বাক্ষরের জন্য ৬ ডিসেম্বরকে চূড়ান্ত করেছে দুই দেশ।

জানা গেছে, পিটিএ স্বাক্ষরের মধ্য দিয়ে বর্তমান ১০০টি পণ্যের সঙ্গে নতুন আরও ১০টিসহ মোট ১১০টি কোডভুক্ত পণ্য ভুটানে শুল্কমুক্ত সুবিধায় রফতানির সুবিধা পাবে। একইভাবে বর্তমানে ১৮টি পণ্যের সঙ্গে নতুন আরও ১৬টিসহ মোট ৩৪টি কোডভুক্ত পণ্য ভুটান থেকে শুল্কমুক্ত সুবিধায় বাংলাদেশে রফতানির সুযোগ পাবে।

এই সুবিধার আওতায় ভুটান থেকে বাংলাদেশে আসবে যেসব পণ্য তার মধ্যে দুধ, মধু, ফুল, জেলি, সয়াবিন, খনিজ পানি, কচি ভুট্টা (সবজি হিসেবে খাওয়ার জন্য), সিমেন্ট, সাবান ও পার্টিকেল বোর্ড উল্লেখযোগ্য। অপরদিকে, একই সুবিধায় বাংলাদেশ থেকে ভুটানে যাবে যেসব পণ্য সেগুলোর মধ্যে বিভিন্ন প্রকার ফলের রস, গ্রিন টি, মিনারেল ওয়াটার, প্লাইউড, শীতবস্ত্র, বস্ত্র শিল্পের কাঁচামাল উল্লেখযোগ্য বলে জানা গেছে। সূত্র জানায়, ভুটান বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার (ডব্লিউটিও) সদস্য নয়। ইতোপূর্বে বাংলাদেশ শুল্কমুক্ত সুবিধায় যে ১৮টি পণ্য ভুটানকে দিয়েছিল, তা ডব্লিউটিও’র মোস্ট ফেবারিট ন্যাশন (এমএফএন) নীতি অনুসারে সব দেশকে দেওয়ার বাধ্যবাধকতা ছিল। কিন্তু পিটিএ স্বাক্ষর হওয়ার পর সেই বাধ্যবাধকতা আর থাকবে না। পরবর্তীতে আলোচনার মাধ্যমে আরও পণ্য দুই দেশের তালিকায় সংযুক্ত হবে বলেও জানিয়েছে সূত্র।

এ প্রসঙ্গে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি জানিয়েছেন, ভুটানের সঙ্গে অগ্রাধিকারমূলক বাণিজ্য চুক্তি (পিটিএ) স্বাক্ষরের ফলে বাংলাদেশ ও ভুটান উভয় দেশের বাণিজ্য বাড়বে এবং বেশি লাভবান হবে। কারণ, ২০২৪ সালে স্বল্পোন্নত দেশ থেকে নিম্ন-মধ্যম আয়ের দেশের তালিকায় যুক্ত হবে বাংলাদেশ। ফলে উন্নত ও উন্নয়নশীল থেকে স্বল্পোন্নত দেশ হিসেবে বর্তমানে পাওয়া বাণিজ্য সুবিধা বাংলাদেশ পাবে না। সেসব সুবিধা পেতে এফটিএ বা পিটিএ করার কোনও বিকল্প নেই।

বাণিজ্যমন্ত্রী আরও জানান, বাংলাদেশ হচ্ছে ভুটানের দ্বিতীয় রফতানি বাজার। ভারত প্রথম। এ কারণে বাংলাদেশ-ভুটান বাণিজ্যিক ও অর্থনৈতিক সম্পর্ককে বেশি গুরুত্ব দেয় ভুটান। এ কারণেই বাংলাদেশের সঙ্গে পিটিএ স্বাক্ষরের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে ভুটান। একই কারণে বাংলাদেশও অনুরূপ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১২-১৩ অর্থবছরে বাংলাদেশ ও ভুটানের মধ্যে মোট বাণিজ্যের পরিমাণ ছিল ২৬ দশমিক ৫২ মিলিয়ন ডলার। এরমধ্যে বাংলাদেশ এক দশমিক ৮২ মিলিয়ন ডলার মূল্যের পণ্য ভুটানে রফতানি করেছে। এর বিপরীতে ভুটান থেকে আমদানি করা হয়েছে ২৪ দশমিক ০৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের পণ্য; যা ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ৫৭ দশমিক ৯০ মিলিয়ন ডলারে উন্নীত হয়।

 

/আইএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

বঙ্গবন্ধু মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম টিকা নিলেন ভিসি

বঙ্গবন্ধু মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম টিকা নিলেন ভিসি

প্রাথমিকের তদন্ত দায়সারা, কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণের উদ্যোগ

প্রাথমিকের তদন্ত দায়সারা, কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণের উদ্যোগ

কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার প্রথমবার্ষিকী, দুটি দেশকে বঙ্গবন্ধুর বার্তা

কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার প্রথমবার্ষিকী, দুটি দেশকে বঙ্গবন্ধুর বার্তা

শতাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে দেয়াল!

শতাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে দেয়াল!

রাজধানীতে বাসচাপায় একাত্তর টিভির ভিডিও এডিটর নিহত

রাজধানীতে বাসচাপায় একাত্তর টিভির ভিডিও এডিটর নিহত

টিকা নিতে প্রস্তুত তারা

টিকা নিতে প্রস্তুত তারা

ফরিদপুরের সেই ২ ভাইকে জামিন দেননি হাইকোর্ট

ফরিদপুরের সেই ২ ভাইকে জামিন দেননি হাইকোর্ট

স্ক্রিন শেয়ারিংয়ে গুগলের নতুন ফিচার

স্ক্রিন শেয়ারিংয়ে গুগলের নতুন ফিচার

সর্বশেষ

মেয়রপ্রার্থীর কর্মীকে হত্যা চেষ্টা, ছাত্রলীগের ২ নেতার বিরুদ্ধে মামলা

মেয়রপ্রার্থীর কর্মীকে হত্যা চেষ্টা, ছাত্রলীগের ২ নেতার বিরুদ্ধে মামলা

যে কারণে ব্রোকলিতে আগ্রহ বাড়ছে চাষিদের

যে কারণে ব্রোকলিতে আগ্রহ বাড়ছে চাষিদের

টিভিতে আজ

টিভিতে আজ

সৌদি-আমিরাতের কাছে সমরাস্ত্র বিক্রি স্থগিতের সিদ্ধান্ত যুক্তরাষ্ট্রের

সৌদি-আমিরাতের কাছে সমরাস্ত্র বিক্রি স্থগিতের সিদ্ধান্ত যুক্তরাষ্ট্রের

দৌলতপুরে পাট গোডাউনে আগুন, এখনও চলছে ডাম্পিং

দৌলতপুরে পাট গোডাউনে আগুন, এখনও চলছে ডাম্পিং

বঙ্গবন্ধু মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম টিকা নিলেন ভিসি

বঙ্গবন্ধু মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম টিকা নিলেন ভিসি

হাসপাতালে লাতিন আমেরিকার শীর্ষ ধনী কার্লোস স্লিম

হাসপাতালে লাতিন আমেরিকার শীর্ষ ধনী কার্লোস স্লিম

প্রাথমিকের তদন্ত দায়সারা, কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণের উদ্যোগ

প্রাথমিকের তদন্ত দায়সারা, কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণের উদ্যোগ

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১০ কোটি ১৪ লাখ ছাড়িয়েছে

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১০ কোটি ১৪ লাখ ছাড়িয়েছে

কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার প্রথমবার্ষিকী, দুটি দেশকে বঙ্গবন্ধুর বার্তা

কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার প্রথমবার্ষিকী, দুটি দেশকে বঙ্গবন্ধুর বার্তা

সন্ত্রাসী হামলার আশঙ্কায় সতর্কতার মাত্রা বাড়ালো যুক্তরাষ্ট্র

সন্ত্রাসী হামলার আশঙ্কায় সতর্কতার মাত্রা বাড়ালো যুক্তরাষ্ট্র

কাউন্সিলর সাত্তার কারাগারে, পিবিআই’র রিমান্ড আবেদন

যুবলীগ নেতা জিল্লুর হত্যাকাউন্সিলর সাত্তার কারাগারে, পিবিআই’র রিমান্ড আবেদন

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

বঙ্গবন্ধু মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম টিকা নিলেন ভিসি

বঙ্গবন্ধু মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম টিকা নিলেন ভিসি

কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার প্রথমবার্ষিকী, দুটি দেশকে বঙ্গবন্ধুর বার্তা

কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার প্রথমবার্ষিকী, দুটি দেশকে বঙ্গবন্ধুর বার্তা

শতাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে দেয়াল!

শতাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে দেয়াল!

টিকা নিতে প্রস্তুত তারা

টিকা নিতে প্রস্তুত তারা

ভ্যাকসিন নেওয়ার কথা পরিবারকেও জানাইনি: নাসিমা সুলতানা

ভ্যাকসিন নেওয়ার কথা পরিবারকেও জানাইনি: নাসিমা সুলতানা

ভ্যাকসিন নিয়ে অভিজ্ঞতা জানালেন তারা

ভ্যাকসিন নিয়ে অভিজ্ঞতা জানালেন তারা


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.