X
রবিবার, ১৯ মে ২০২৪
৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

শিশুটিকে হত্যা করে ৪০ দিনের চিল্লায় যায় নাসির

গাজীপুর প্রতিনিধি
২০ জানুয়ারি ২০২৩, ২০:২৫আপডেট : ২০ জানুয়ারি ২০২৩, ২০:৫২

গাজীপুরে ‌ধর্ষণের সময় চিৎকার দেওয়ায় ছয় বছরের এক শিশুকে হত্যা করেছিল মুরগির দোকানের কর্মচারী নাসির মিয়া (২৮)। ঘটনার এক বছর দুই মাস পর নাসিরকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। 

বৃহস্পতিবার (১৯ জানুয়ারি) গাজীপুর চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হত্যার ঘটনায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে এই অভিযুক্ত যুবক। পরে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত। শুক্রবার (২০ জানুয়ারি) বিকালে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন গাজীপুর পিবিআইয়ের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাকছুদের রহমান।

হত্যাকাণ্ডের শিকার শিশুটি পুবাইল থানার এক দম্পতির ছেলে। নাসির নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলার সোনাপুর জমিদার হাট গ্রামের কামাল মিয়ার ছেলে। পুবাইলের মাজুখান বাগেরটেক এলাকার বাসিন্দা মো. ফারুকের মুরগির দোকানে কর্মচারী হিসেবে কাজ করতো নাসির।

পিবিআই জানায়, পুবাইলে ২০২১ সালের ২৫ সেপ্টেম্বরে দুপুরে ছয় বছরের এক শিশু নিখোঁজ হয়। পরে বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করেও তার সন্ধান পাওয়া যায়নি। পরদিন উত্তরপাড়া থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায় পুলিশ। এ ঘটনায় শিশুটির নানি অজ্ঞাতদের আসামি করে পুবাইল থানায় মামলা করেন।

হত্যাকাণ্ডের বর্ণনা দিয়ে গাজীপুর পিবিআইয়ের পরিদর্শক ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘উত্তরপাড়ায় মো. ফারুকের মুরগির দোকানে কর্মচারীর কাজ করতো নাসির। ফারুক দোকানে ঠিকমতো সময় দিতো না। নাসির নিজেই মুরগি ও মুরগির খাবার বেচাকেনা করতো। ফিড খেয়ে ফেলার সময় মুরগি তাড়ানোর জন্য খেলনা পিস্তল দিয়ে মুরগিকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়তো। মাঝে মধ্যে তার দোকানে আসতো এবং খেলনা পিস্তলের ছোড়া গুলি কুড়িয়ে আনতো শিশুটি। ফলে শিশুটিকে মাঝে মধ্যে চিপস কিনে দিতো। নাসিরকে “মুরগি চাচ্চু” বলে ডাকতো শিশুটি।’

রফিকুল ইসলাম আরও বলেন, ‘নাসির একই মহল্লায় ভাড়া বাসায় থাকতো। গত ২৫ নভেম্বর বাসায় ল্যাপটপে পর্নো ছবি দেখছিল নাসির। দুপুরে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির সময় শিশুটি তার কক্ষে যায়। তখন নাসির ধর্ষণের চেষ্টা করলে শিশুটি চিৎকার দেয়। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে মুখ চেপে ধরলে শিশুটি মারা যায়। এরপর শিশুর লাশ খাটের নিচে রেখে দরজা লাগিয়ে বাইরে চলে যায়। পরদিন ভোরে লাশ সালাম মুন্সির বাড়ির পাশে ফেলে রেখে যায়। ঘটনার তিন দিন পর এলাকা ছেড়ে চট্টগ্রামে চলে যায় নাসির। দুদিন পর চট্টগ্রাম থেকে ফিরে ৪০ দিনের চিল্লায় চলে যায় নাসির। দীর্ঘদিন তদন্ত শেষে শিশুটিকে হত্যার রহস্য উদঘাটন করেছে পিবিআই। একইসঙ্গে নাসিরকে গ্রেফতার করা হয়।’

নাসির বিকৃত মানসিকতাসম্পন্ন উল্লেখ করে পিবিআইয়ের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাকছুদের রহমান বলেন, ‘ল্যাপটপে পর্নো ছবি দেখে ধর্ষণচেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে শিশুটিকে পাশবিক নির্যাতন করে হত্যাকাণ্ড ঘটায় নাসির। গত সোমবার মাজুখান এলাকা থেকে নাসিরকে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে নাসির হত্যায় জড়িত বলে স্বীকার করে। বৃহস্পতিবার ১৬৪ ধারায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। পরে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত।’

/এএম/এমওএফ/
সম্পর্কিত
গোটা বাংলাদেশকেই কারাগারে পরিণত করা হয়েছে: ইশরাক
ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার জুজুৎসুর নিউটন
মোবাইল আনতে ডিবি কার্যালয়ে মামুনুল হক
সর্বশেষ খবর
মিরপুরে ট্রাফিক বক্সে আগুন দিলো অটোরিকশাচালকরা
মিরপুরে ট্রাফিক বক্সে আগুন দিলো অটোরিকশাচালকরা
অচিরেই জলাবদ্ধতা সমস্যার সমাধান হবে
অচিরেই জলাবদ্ধতা সমস্যার সমাধান হবে
রাজস্ব আদায়ে সব মাইলফলক অতিক্রম করবে: মেয়র তাপস
রাজস্ব আদায়ে সব মাইলফলক অতিক্রম করবে: মেয়র তাপস
রোহিঙ্গা ক্যাম্পে হ্যান্ডগ্রেনেড ও অস্ত্রসহ ৪ আরসা সদস্য আটক
রোহিঙ্গা ক্যাম্পে হ্যান্ডগ্রেনেড ও অস্ত্রসহ ৪ আরসা সদস্য আটক
সর্বাধিক পঠিত
মামুনুল হক ডিবিতে
মামুনুল হক ডিবিতে
‘নীরব’ থাকবেন মামুনুল, শাপলা চত্বরের ঘটনা বিশ্লেষণের সিদ্ধান্ত
‘নীরব’ থাকবেন মামুনুল, শাপলা চত্বরের ঘটনা বিশ্লেষণের সিদ্ধান্ত
ভারতীয় পেঁয়াজে রফতানি মূল্য নির্ধারণ, বিপাকে আমদানিকারকরা
ভারতীয় পেঁয়াজে রফতানি মূল্য নির্ধারণ, বিপাকে আমদানিকারকরা
হিমায়িত মাংস আমদানিতে নীতিমালা হচ্ছে
হিমায়িত মাংস আমদানিতে নীতিমালা হচ্ছে
মোবাইল আনতে ডিবি কার্যালয়ে মামুনুল হক
মোবাইল আনতে ডিবি কার্যালয়ে মামুনুল হক