ইউপি চেয়ারম্যানকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি

Send
দিনাজপুর প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৮:১৬, নভেম্বর ১২, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:১৬, নভেম্বর ১২, ২০১৯

জিয়াউর রহমান জিয়া

দিনাজপুর সদর উপজেলার ৯নং আস্করপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জিয়াউর রহমান জিয়াকে দায়িত্ব থেকে অব্যহতি দেওয়া হয়েছে। সরকারি রাস্তার গাছ কেটে তা বিক্রি করা অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তাকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগ।

জিয়াউর রহমান জিয়া ওই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

সোমবার (১১ নভেম্বর) স্থানীয় সরকার বিভাগের ইপ-১ অধিশাখার উপসচিব ইফতেখার আহমেদ চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে বিষয়টি উল্লেখ করা হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়, অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় জনস্বার্থে তার দ্বারা ইউনিয়ন পরিষদে ক্ষমতা প্রয়োগ প্রশাসনিক দৃষ্টিকোণে সমীচীন নয় মর্মে সরকার মনে করে। সংঘটিত অপরাধমূলক কার্যক্রম পরিষদসহ জনস্বার্থের পরিপন্থী বিবেচনায় স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন ২০০৯ এর ৩৪ (১) ধারা অনুযায়ী তার স্বীয় পদ হতে সাময়িক বহিষ্কার করা হলো।

একইসঙ্গে কেন তাকে স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন, ২০০৯ এর ৩৪ (৪)(ঘ) ধারার অপরাধে চেয়ারম্যান পদ থেকে চূড়ান্তভাবে অপসারণ করা হবে না তার জবাব পত্র প্রাপ্তির ১০ (দশ) কার্যদিবসের মধ্যে প্রেরণের জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফিরুজুল ইসলাম জানান, এখনও চিঠি হাতে পাইনি। তবে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে চিঠি দেখেছি।

আস্করপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জিয়াউর রহমান জিয়া এখনও প্রজ্ঞাপনের কপি পাননি বলে জানান।

এর আগে, মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) দুপুরে দিনাজপুর প্রেসক্লাবের এক সংবাদ সম্মেলনে চেয়ারম্যান জিয়াউর রহমান জিয়া বলেছেন, ‘ইউনিয়ন পরিষদের ১২ জন সদস্যের সঙ্গে সভা করে রেজ্যুলেশন করা হয় এবং পরবর্তীতে উপজেলা পরিষদের রেজ্যুলেশনের মাধ্যমে অনুমোদন নিয়ে ঝড়ে পড়া ও পোকা ধরা গাছ কাটা হয়েছে। গাছ কাসেসব গাছ বিক্রির টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দেওয়া হয়েছে।’

এর আগে, দিনাজপুর সদর উপজেলার ৯নং আস্করপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জিয়াউর রহমান জিয়ার বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও সংবাদ সম্মেলন করেছে আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ ও স্থানীয়রা।

সোমবার (১১ নভেম্বর) দুপুরে দিনাজপুর প্রেস ক্লাবে এই কর্মসূচি পালন করেন তারা। এর আগে জেলা প্রশাসকের কাছে প্রধানমন্ত্রী বরাবর একটি স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। 

সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করে বলা হয়, দল ও প্রশাসনের ছত্রছায়ায় জিয়া চেয়ারম্যান দুর্নীতির মাধ্যমে কয়েক কোটি টাকার মালিক হয়েছেন। তিনি মাদক চোরাকারবারির সঙ্গে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িত। এছাড়াও সরকারি বিধি ভঙ্গ করে অনুমতি ছাড়াই ইচ্ছামতো প্রতিমাসে দুয়েকবার করে ভারতে যান।

অভিযোগে আরও বলা হয়, চেয়ারম্যান সরকারি গাছ কেটে অর্থ আত্মসাৎ, কৃষকদের স্প্রে মেশিন বিতরণ প্রকল্পের ২ লাখ টাকা ও এলজিএসপি’র ৪১ লাখ ১৬ হাজার টাকাসহ প্রায় অর্ধকোটি টাকার প্রকল্পের নিম্নমানের কাজ করে অর্ধেক টাকা আত্মসাৎ করেছেন। এসব দুর্নীতির পরিপ্রেক্ষিতে জিয়া চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ এবং তাকে জরুরিভিত্তিতে চেয়ারম্যান পদ থেকে অপসারণের দাবি জানানো হয়।

 

 

 

/এএইচ/

লাইভ

টপ