তরুণীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, সাবেক স্বামী ও সহযোগী আটক

Send
জয়পুরহাট প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ০৯:৪৩, নভেম্বর ১৭, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০৯:৫৪, নভেম্বর ১৭, ২০১৯

ধর্ষণ

জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলায় এক তরুণীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার সন্ধ্যায় স্থানীয়রা গুরুতর অসুস্থ্ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করেছে। এ ঘটনায় পুলিশ শনিবার রাতেই তার সাবেক স্বামী ও তার এক সহযোগীকে আটক করেছে।

আটক ব্যক্তিরা হলো, ওই তরুণীর সাবেক স্বামী পাঁচবিবি উপজেলার কেশবপুর গ্রামের সাইফুল ইসলামের ছেলে মেহেরুল ইসলাম ও তার সহযোগী ভোজন চন্দ্র বর্মণের ছেলে গোপাল চন্দ্র বর্মণ।

পাঁচবিবি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনসুর রহমান জানান, নির্যানের শিকার গৃহবধূর বাড়ি ফরিদপুর জেলার আলফাডাঙ্গা উপজেলায়। এক বছর আগে ঢাকার একটি গার্মেন্টে কাজ করার সময় মেহেরুলের সঙ্গে তার পরিচয় ও বিয়ে হয়। এক বছর পর মেহেরুল তাকে গোপনে তালাক দিয়ে পাঁচবিবিতে পালিয়ে আসে। এ অবস্থায় ওই তরুণী স্ত্রীর স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য চাপ দিলে মেহেরুল তাকে পাঁচবিবিতে আসাতে বলে। মেহেরুলের প্রস্তাব মেনে ঠিকানা অনুযায়ী শনিবার বিকেলে ওই গৃহবধূ পাঁচবিবিতে আসলে গ্রামে নেওয়ার কথা বলে তাকে স্থানীয় ছোট যমুনা নদীর নির্জন স্থানে নিয়ে দুই সহযোগীসহ ধর্ষণ করে। পরে তাকে সেখানে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা এসে গৃহবধূকে উদ্ধার করে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হপাসপাতালে ভর্তি করে। এ ঘটনায় রাতে অভিযান চালিয়ে মেহেরুল ও তার এক সহযোগীকে পুলিশ আটক করেছে।

 

/জেবি/

লাইভ

টপ