কক্সবাজারে সাড়ে ৬ লাখ মেট্রিক টন লবণ মজুত: ডিসি

Send
কক্সবাজার প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ০০:৫৯, নভেম্বর ২০, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০১:০২, নভেম্বর ২০, ২০১৯

মতবিনিময় সভায় কক্সবাজারের ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মো. আশরাফুল আফসারকক্সবাজারের ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মো. আশরাফুল আফসার বলেছেন, কক্সবাজারে লবণ মিল ও মাঠ পর্যায়ে সাড়ে ৬ লাখ মেট্রিক টন লবণ মজুত রয়েছে যা আগামী তিন থেকে চার মাস দেশে সরবরাহ করা যাবে। চাহিদার চেয়ে বেশি মজুত থাকায় বাজারে সরবরাহও স্বাভাবিক রয়েছে। তাই লবণের দাম বৃদ্ধির কোনও কারণ নেই। কেউ দাম বাড়ানোর অপচেষ্টা করলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৬ টার দিকে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শহীদ এটিএম জাফর আলম সম্মেলন কক্ষে জেলায় দ্রব্যমূল্য স্থিতিশীল রাখার লক্ষ্যে আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় তিনি এ তথ্য জানান।
সভায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. মাসুদুর রহমান মোল্লা, জেলা লবণ মিল মালিক সমিতির সভাপতি মো. নুরুল কবির, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মো. আমিন আল পারভেজ, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এএইচএম মাহফুজুর রহমান, বিসিকের মহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম) ছৈয়দ আহমদ, বাংলাদেশ লবণ মিল মালিক সমিতির সভাপতি নুরুল কবির, কক্সবাজার চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি আবু মোর্শেদ চৌধুরী, ইসলামপুর লবণ মিল মালিক সমিতির সভাপতি শামসুল আলম আজাদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
লবণ মিল মালিক নজির আহমদ জানান, ফ্যাক্টরিতে প্রতিদিন লাখ লাখ প্যাকেট লবণ প্রক্রিয়াজাত হচ্ছে। দেশে লবণ উৎপাদন মৌসুম শুরু হয়ে গেছে। দেশের প্রতিটি লবণ মাঠে এখন প্রতিদিন লবণ উৎপাদন হচ্ছে। লবণ মিলগুলোতে আগামী ১২ দিনের প্রক্রিয়াজাত লবণ তৈরি করা আছে।
বাংলাদেশ লবণ মিল মালিক সমিতির সভাপতি নুরুল কবির জানান, লবণ নিয়ে দেশকে অস্থিতিশীল করতে চাচ্ছে একটি মহল। সিলেটসহ দেশের কিছু কিছু অঞ্চলে লবণের সংকট দেখিয়ে অতিরিক্ত মূল্য আদায় করা হচ্ছে। দেশে লবণের পর্যাপ্ত মজুদ রয়েছে।

 

/ওআর/

লাইভ

টপ