লবণ মজুতের অভিযোগে আট ব্যবসায়ীর কারাদণ্ড

Send
রাজশাহী প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ০২:১১, নভেম্বর ২০, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০২:১৪, নভেম্বর ২০, ২০১৯

ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানরাজশাহী শহরে অতিরিক্ত লবণ মজুতের অভিযোগে আট অসাধু ব্যবসায়ীকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এছাড়া বিভিন্ন ব্যবসায়ীকে ৯৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) সন্ধ্যায় রাজশাহী অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আবু আসলামের নেতৃত্বে টিম নগরীর বিভিন্ন বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়।
ম্যাজিস্ট্রেট আবু আসলাম বলেন, ভাউচার ছাড়া অতিরিক্ত লবণ মজুত ও প্যাকেটের গায়ে মেয়াদ না থাকার অভিযোগে আটজনকে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, ‘রাজশাহীতে লবণের কোনও সংকট নেই। বিভিন্ন কোম্পানির কাছে লবণের পর্যাপ্ত মজুত রয়েছে। আমরা লবণ বাজারজাতকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে কথা বলেছি। তারা আমাদের নিশ্চিত করেছেন রাজশাহীতে পর্যাপ্ত লবণ রয়েছে।
এদিকে রাজশাহীর চারঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ নাজমুল হক চারঘাট বাজারের শ্রীকৃষ্ণ ভাণ্ডারে অভিযান চালিয়ে চড়া মূল্যে লবণ বিক্রির দায়ে নিখিল চন্দ্র সাহা নামে একজনকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। এছাড়া সারদা মোক্তারপুর ট্রাফিক মোড় বাজারে অভিযান চালিয়ে বেশি দামে লবণ বিক্রির দায়ে মোক্তারপুর পাকিয়াইনপাড়া গ্রামের মোশারফের ছেলে মুদি দোকান নান্টু ইসলামকে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে এক বছরের কারাদণ্ড দেন।
এছাড়া পুঠিয়ার বানেশ্বর হাটের পাইকারি ব্যবসায়ীরা লবণ মজুত করছে এমন খবর পেয়ে ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) রুমানা আফরোজ বানেশ্বর হাটে অভিযান পরিচালনা করেন। লবণ মজুত করার সময় এক ভ্যান লবণসহ পাইকারি ব্যবসায়ী মঞ্জুর রহমান ও খুচরা ব্যবসায়ী জহুরুল ইসলাম বাবু নামে দুজনকে আটক করেন। ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে পাইকারি ব্যবসায়ী মঞ্জুর রহমানকে ১ বছরের জেল ও খুচরা ব্যবসায়ী জহুরুল ইসলামকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। এছাড়া রাসেল এন্টারপ্রাইজ নামের লবণ ও ভুসি মালের ব্যবসায়ী মকলেসুর রহমানের গোডাউন সিলগালা করা হয়।

 

 

/ওআর/

লাইভ

টপ