বাস মালিক ও শ্রমিক ফেডারেশনের ফের বৈঠক সকাল ৯টায়

Send
খুলনা প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ০৭:৪৮, নভেম্বর ২২, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০৭:৫৯, নভেম্বর ২২, ২০১৯





বাস ধর্মঘট ঢাকায় বাস-মিনিবাস মালিক সমিতি ও মোটর শ্রমিক ইউনিয়ন ফেডারেশনের বৈঠক শুক্রবার (২২ নভেম্বর) সকাল ৯টায় ফের শুরু হবে। এর আগে বৃহস্পতিবার (২১ নভেম্বর) সকালে শুরু হওয়া বৈঠকটি বিকালে কোনও সিদ্ধান্ত ছাড়াই মুলতবি হয়।

নতুন সড়ক আইন সংশোধনের দাবিতে চলমান পরিবহন ধর্মঘটের বিষয়ে করণীয় ঠিক করতে এই বৈঠকের আয়োজন করা হয়। খুলনা জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি কাজী নূরুল ইসলাম বেবী এসব তথ্য জানান।
কাজী নূরুল ইসলাম বেবী বলেন, ‘আমরা ঢাকায় ফেডারেশনের বৈঠকে সড়ক পরিবহনের নতুন আইনটি সম্পর্কে আলোচনা করছি। আইনের মধ্যে চার পাঁচটি ধারা সংশোধন করা প্রয়োজন হবে। বাতিলের কথা আমরা বলছি না। এই সংশোধনের জন্য কী করা প্রয়োজন, তা নিয়ে আলোচনা করছি।’
তিনি বলেন, ‘খুলনায় জেলা প্রশাসনের সঙ্গে বৈঠকের পর আমরা চালকদের অনুরোধ করেছি, গাড়ি চালাতে। পায়ে ধরিনি, কিন্তু তার চেয়েও বেশি করেছি। কিন্তু চালকরা আমাদের কথা শোনেননি। আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি, চালকরা এটা করে ভুল করছেন। আন্দোলন যদি করতেই হয়, ফেডারেশন থেকে ঘোষণা দিয়ে কঠোরভাবে করা সমীচীন।’
খুলনা-ঢাকা রুটের সুন্দরবন পরিবহনের চালক সফিয়ার মিয়া জানান, চালক আর জনতা আলাদা কিছু নয়। চালকরাও এ দেশের নাগরিক। আর নাগরিকদের কথা বলে চালকদের দমন নিপীড়নের আইন হবে—এই নীতি ঠিক না। আপ-ডাউন একটি ট্রিপ দিয়ে এক থেকে দেড় হাজার টাকা সম্মানি পান একজন চালক। আর আইনের বেড়াজালে পড়ে অন্যায়ভাবে তিনি ৫ লাখ টাকা জরিমানার কবলে পড়বেন, এটা দেশের নাগরিক হিসেবে কারও কাম্য নয়। তাই চালকরা গাড়ি চালানো থেকে বিরত রয়েছেন। জনগণকে এটা উপলব্ধি করতে হবে। চালকদের স্বার্থে জনতাকে দুর্ভোগটুকু সহ্য করা উচিত।

এদিকে, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত খুলনা থেকে বাস চলাচল শুরু হয়নি। চালকরা ধর্মঘট অব্যাহত রেখেছেন। আর ঢাকা থেকে খুলনার উদ্দেশে ছেড়ে আসা দূরপাল্লার বাস সন্ধ্যার পর থেকেই দু-একটি করে খুলনায় ঢুকতে শুরু করেছে। কিন্তু খুলনা থেকে বাস চলাচল এখনও শুরু হয়নি।


/আইএ/

লাইভ

টপ