দুই শিশু সন্তানসহ স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগে স্বামী আটক

Send
রংপুর প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৫:৪৯, ডিসেম্বর ০৮, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:১৪, ডিসেম্বর ০৮, ২০১৯

নিহত গৃহবধূর মা আহাজারি করছেন

রংপুরে দুই শিশু সন্তানসহ স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগে আব্দুর রাজ্জাক নামে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। রবিবার সকালে রংপুর নগরীর বাহার কাছনা এলাকার কাছনার দোলা মহল্লা থেকে লাশ তিনটি উদ্ধার করেছে পুলিশ। রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের হারাগাছ থানার ওসি নাজমুল কাদের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

নিহতরা হলেন, স্ত্রী আছিয়া বেগম রত্না, মেয়ে নেহা (২) ও ৮ মাস বয়সী ছেলে নিশাত।

পুলিশ জানায়, পারিবারিক বিষয় নিয়ে ঝগড়ার জের ধরে স্বামী আব্দুর রাজ্জাক রবিবার সকালে প্রথমে গর্ভবতী স্ত্রীকে এবং পরে মেয়ে নেহা ও ছেলে নিশাতকে শ্বাসরোধে হত্যা করে। এরপর সে নিজেও আত্মহত্যার চেষ্টা করে। এলাকাবাসী বিষয়টি টের পেয়ে পুলিশ ও র‌্যাবকে খবর দেয়। পরে ঘটনাস্থলে এসে পুলিশ নিহত তিন জনের লাশ উদ্ধার করে। র‌্যাব আব্দুর রাজ্জাককে আটক করে রংপুর হাসপাতালে নিয়ে যায়।

খবর পেয়ে নিহত রত্নার মা ও ভাইসহ স্বজনরা ঘটনাস্থলে এসে কান্নায় ভেঙে পড়েন।  

রত্নার বড় ভাই এম এম রশিদ জানান, বোনের সুখের কথা ভেবে তার বিয়ের সময় বিভিন্ন উপহারসামগ্রীসহ নগদ টাকা দিয়েছি। এরপরও বোন জামাই রাজ্জাক আবার একটি অটো কিনে দেওয়ার দাবি জানায়। তারা সব ভাই মিলে ৭০ হাজার টাকা জোগাড় করে তাকে দিয়েছে। এরপর আরও ৩০ হাজার দাবি করলে তারা কয়েক দিন সময় নেয়।

নিহত রত্নার ছোট ভাই বাবু অভিযোগ করে বলেন, ‘রাজ্জাক আমার বোনকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতো। সে দুই সন্তানসহ আমার বোনকে নৃশংসভাবে হত্যা করেছে। আমরা দুই ভাই রাজ্জাকের কঠোর শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।’

হারাগাছ থানার ওসি নাজমুল কাদের জানান, রাজ্জাক তার স্ত্রী ও দুই শিশু সন্তানকে শ্বাসরোধে হত্যা করেছে। র‌্যাব ঘটনাস্থলে এসে রাজ্জাককে আটক করেছে। তারা লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মেনান জানান, ঘাতক রাজ্জাককে র‌্যাব আটক করেছে। সে ঘটনাটি ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার জন্য নিজের গলায় ছুরি চালিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে। তাকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশি পাহারায় তার চিকিৎসা চলছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

/জেবি/এমএমজে/

লাইভ

টপ