ভূরুঙ্গামারীতে হচ্ছে আরও একটি সীমান্তহাট

Send
কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৯:৫৪, জানুয়ারি ১৭, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:৫৬, জানুয়ারি ১৭, ২০২০

কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী উপজেলার চর ভূরুঙ্গামারী ইউনিয়নের ভাওয়ালগুড়ি সীমান্তে আরও একটি সীমান্তহাট স্থাপিত হতে যাচ্ছে। সব প্রক্রিয়া সুসম্পন্ন হলে চলতি বছরের শেষের দিকে আনুষ্ঠানিকভাবে এর কার্যক্রম শুরু হতে পারে। এ লক্ষ্যে শুক্রবার (১৭ জানুয়ারি) প্রস্তাবিত সীমান্তহাটের স্থান পরিদর্শন ও দুই দেশের জেলা প্রশাসক পর্যায়ে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীন এ তথ্য জানিয়েছেন।

বৈঠক সূত্র জানায়, শুক্রবার দুপুরে উপজেলার ভাওয়ালগুড়ি সীমান্তে ১০০২ নম্বর সীমান্ত পিলার এলাকায় এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীনের নেতৃত্বে বাংলাদেশের পক্ষে ছিলেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাফর আলী, কুড়িগ্রাম পুলিশ সুপার মহিবুল ইসলাম খান, বিজিবি ২২ ব্যাটলিয়নের পরিচালক জামাল হোসাইন, এডিএম জিলুফার ইয়াসমিন, উপজেলা চেয়ারম্যান নুরুন্নবী চৌধুরী ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাগফুরুল হাসান আব্বাসী প্রমুখ। ভারতের আসাম রাজ্যের ধুপড়ি জেলার জেলা প্রশাসক অনন্ত লালের নেতৃত্বে ভারতের পক্ষে ছিলেন বিএসএফের ১১০ কোম্পানির সেকেন্ড ইনচার্জ ডিবি নাগ, এ টালহা এডিসি ধুবড়ি ও আগমনি বিএসএফের সিও চিরঞ্জিত দাস  প্রমুখ। বৈঠকে ভূরুঙ্গামারীর চরভূরুঙ্গামারী ইউনিয়নের ভাওয়ালগুড়ি সীমান্ত ও আসামের ধুবড়ি জেলার ছত্রশাল সীমান্তে সীমান্ত হাট স্থাপনে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীন জানান, ‘আমরা উভয় দেশের প্রতিনিধি পর্যায়ে সর্বসম্মতভাবে স্থান নির্বাচনসহ সীমান্তহাট স্থাপনে প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নিয়েছি। উভয় দেশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমোদন সাপেক্ষে সীমান্ত হাটের কার্যক্রম শুরু করা হবে। আশা করছি চলতি বছর নতুন এই সীমান্ত হাটের কার্যক্রম শুরু হতে পারে।’

প্রসঙ্গত, কুড়িগ্রামের রাজীবপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের বালিয়ামারী ও সীমান্তের মেঘালয়ের কালাইয়ের চর সীমান্তে নোম্যান্স ল্যান্ডে একটি সীমান্ত হাট রয়েছে। সপ্তাহে প্রতি বুধবার সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত এ সীমান্তহাটে দুই দেশের ব্যবসায়ীরা পণ্য বেচাকেনা করে থাকেন।

/এনআই/

লাইভ

টপ