স্কুলছাত্রীকে অপহরণ করে ১১ দিন আটকে ধর্ষণের অভিযোগ

Send
বরিশাল প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ২০:০৮, জানুয়ারি ২৭, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:৪৪, জানুয়ারি ২৭, ২০২০

শের ই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ
মাদারীপুরের এক স্কুলছাত্রীকে বরিশালে অপহরণের পর ১১ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। অপহৃত ওই ছাত্রীকে (১৫) রবিবার রাতে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। ধর্ষণ ও অপহরণের অভিযোগে অনিক চৌধুরী নামের এক যুবককে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গ্রেফতারকৃত অনিক যশোর কোতোয়ালি থানার কিসমতনগর নোয়াপাড়া এলাকার কবির উদ্দিন চৌধুরীর ছেলে। এ ঘটনায় গত ১৬ জানুয়ারি অপহৃত ছাত্রীর ভাই বাদী হয়ে অনিকসহ চার জনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই আসাদুজ্জামান খান জানান, মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ওই ছাত্রীকে স্কুলে আসা-যাওয়ার পথে প্রায়ই প্রেম নিবেদনসহ কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছিলো মোটরসাইকেল মিস্ত্রি অনিক। প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় স্কুলছাত্রীকে অপহরণের হুমকি দেয় সে। ওই ছাত্রী গত ১৩ জানুয়ারি বরিশালের গৌরনদী উপজেলায় খালুর বাড়িতে বেড়াতে যায়। ১৫ জানুয়ারি সকাল ৭টার দিকে খালুবাড়ির কাছে বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কে যায় ছাত্রী। এ সময় ওঁৎ পেতে থাকা অনিকের নেতৃত্বে ৪-৫ জন সহযোগী ওই ছাত্রীকে জোর করে মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় অপহৃত স্কুলছাত্রীর খালাতো ভাই বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন।

পুলিশের এই কর্মকর্তা আরও জানান, মোবাইল ফোনের কললিস্টের সূত্র ধরে ২৫ ও ২৬ জানুয়ারি ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ফতুল্লা থানা এলাকা থেকে অপহৃত ছাত্রীকে উদ্ধার ও মামলার প্রধান আসামি অনিককে গ্রেফতার করা হয়।

তিনি জানান, সোমবার দুপুরে বরিশাল অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আসামি অনিককে সোপর্দ করা হলে বিচারক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ভিকটিমকে সকালে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। এর আগে ওই ছাত্রী বিচারকের কাছে ২২ ধারায় জবানবন্দি দেয়।

 

/এফএস/এমওএফ/

লাইভ

টপ