রাঙামাটি ছাত্রলীগ কমিটিকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা একাংশের

Send
রাঙামাটি প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৯:০৯, জানুয়ারি ২৮, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:১২, জানুয়ারি ২৮, ২০২০

রাঙামাটি ছাত্রলীগের একাংশের সংবাদ সম্মেলনরাঙামাটি জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সম্পাদকের বিরুদ্ধে গঠনতন্ত্র বিরোধী কার্যকলাপের অভিযোগ এনে বর্তমান কমিটি অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে বিকল্প আরেকটি কমিটি ঘোষণা করেছে ছাত্রলীগের একাংশ। মঙ্গলবার (২৮ জানুয়ারি) সকালে জেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এই ঘোষণা দেওয়া হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক সুলতান মাহমুদ বাপ্পা বলেন, ‘বর্তমান কমিটি গঠনতন্ত্র অনুসরণ না করে উপজেলা কমিটি বিলুপ্ত করছে। যা তাদের এখতিয়ারের বাইরে। মূলত পছন্দসই প্রার্থী আনতে তারা এই ধরনের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। এছাড়া বর্তমান কমিটির সভাপতি ও সম্পাদকের বিরুদ্ধে টেন্ডারবাজি, মাদক ব্যবসা ও চাঁদাবাজির বিভিন্ন অভিযোগও রয়েছে। যার কয়েকটি মামলা বর্তমানে বিচারাধীন রয়েছে।’

লিখিত বক্তব্যে জানানো হয়, সভায় দুই তৃতীংশের সম্মতিক্রমে বর্তমান কমিটিকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা হলো। একইসঙ্গে জেলা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে সংগঠনের সিনিয়র সহ-সভাপতি সাইফুল আলম রাশেদ ও যুগ্ম সম্পাদক মঈনুদ্দীন শাকিলকে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন জেলা ছাত্রলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি সাইফুল আলম রাশেদ, সহ-সভাপতি পলাশ বড়ুয়া, রুপন দাশ, যুগ্ম সম্পাদক সুলতান মাহমুদ বাপ্পা, মঈনুদ্দীন শাকিল, সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক সুপায়ন চাকমা পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক অপু সিং লেপচা, কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আহাম্মেদ ইমতিয়াজ রিয়াদ, বাঘাইছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. এমরান সহ সংগঠনের বিভিন্ন নেতারা।

রাঙামাটি জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল জব্বার সুজনের কাছে অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি সব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘তারা যেটি করেছে সেটি পুরোপুরি সংগঠনের গঠনতন্ত্র বিরোধী। তাদের যদি আমাদের বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগ থাকে তাহলে তারা সেটি কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগকে অবহিত করবে। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ যদি মনে করে আমরা সংগঠন চালাতে ব্যর্থ তাহলে অন্য যে কাউকে দায়িত্ব দিতে পারে। কিন্তু তারা সংগঠনের গঠনতন্ত্র না মেনে পেশিশক্তির মাধ্যমে দলীয় প্যাড ব্যবহার করে সাধারণ ছাত্রলীগকর্মীদের, আমাদের ভাইদের বিভ্রান্ত তৈরি করার চেষ্টা করছে। আমরা সবাই বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য অনুরোধ করছি।’

এদিকে মঙ্গলবার বিকালে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সুজন ও সম্পাদক প্রকাশের স্বাক্ষর করা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে নতুন ঘোষিত কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সাইফুল আলম রাশেদ, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মঈনউদ্দিন শাকিল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুলতান মাহমুদ চৌধুরী বাপ্পা এবং সহ সভাপতি রূপন দাশ এর সাংগঠনিক পদ স্থগিত করা হয়েছে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, দলীয় শৃঙ্খলাভঙ্গের দায়ে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্র ১৭ (খ) ধারা অনুযায়ী তাদের পদসমূহ স্থগিত করা হলো।

এরপরই সন্ধ্যায় পৃথক আরেকটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে দুপুরে ঘোষিত কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সাইফুল আলম রাশেদ ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মঈনুদ্দিন শাকিল দলীয় শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগে সভাপতি আব্দুল জব্বার সুজন এবং সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ চাকমার সদস্যপদ স্থগিত ঘোষণা করে বলেন, ‘ভবিষ্যতে তাদের যেকোনও সামাজিক, অনৈতিক এবং সংগঠন পরিপন্থী কর্মকাণ্ডের দায়ভার রাঙামাটি জেলা শাখা বহন করবে না।' 

/এফএস/

লাইভ

টপ