পরীক্ষা কেন্দ্রে শিক্ষকের ছোড়া ক্লিপবোর্ডের আঘাতে শিক্ষার্থী আহত

Send
মাদারীপুর প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ২৩:৪৭, ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:৫১, ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০২০

BT New Tempমাদারীপুরে দায়িত্বরত শিক্ষক এসএসসি পরীক্ষার্থীর মাথায় ক্লিপবোর্ড ছুড়ে আঘাত করে জখম করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) সকালে মাদারীপুর শহরের আছমত আলী খান পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।  খবর পেয়ে ওই শিক্ষার্থীর চিকিৎসার ব্যবস্থা নেয় প্রশাসন। এ ঘটনায় নির্ধারিত সময়ের ১০ মিনিট পরে পরীক্ষা শুরু হয়।  অভিযুক্ত শিক্ষকের শাস্তি দাবি করেছে শিক্ষার্থীরা।  

এদিকে অভিযুক্ত শিক্ষক আবুল হোসেনকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করেছে আছমত আলী খান স্কুল অ্যান্ড কলেজ কর্তৃপক্ষ। তিনি সেখানে অতিথি শিক্ষক হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

আহত স্কুল শিক্ষার্থী ও তার সহপাঠী পরীক্ষার্থীরা জানায়, সোমবার সকালে ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং পরীক্ষা দিতে ওই কেন্দ্রে যায় সরকারি ইউনাইটেড ইসলামিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রাকিবুল মৃধা। পরীক্ষা শুরুর পর সে তার খাতায় বিষয় লিখতে দেরি করে। শিক্ষক জানতে চাইলে রাকিবুল জানায়, পরীক্ষার প্রশ্নপত্র দেখে সঠিক বানানে বিষয়ের নাম লিখবে। এতে ওই খাতায় সই না করে শিক্ষক আবুল হোসেন ক্ষিপ্ত হয়ে শিক্ষার্থীর ওপর পরীক্ষার খাতা রাখার ক্লিপবোর্ড ছুড়ে মারেন। বোর্ডটি মাথায় লেগে গুরুতর আহত হয় সে। এ সময় পরীক্ষা কক্ষে শুরু হয় হট্টগোল। খবর পেয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাদারীপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইফুদ্দিন গিয়াস ওই শিক্ষার্থীর প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থা করে নির্ধারিত সময়ের ১০ মিনিট পরে শুরু করেন। সবার পরীক্ষা শেষে রাকিবুলকে অতিরিক্ত ৩০ মিনিট সময় লেখার সুযোগ দেওয়া হয়। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিজ গাড়িতে করে আহত শিক্ষার্থীকে সদর হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা শেষে বাড়ি পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করেন। ওই শিক্ষার্থীর মাথায় তিনটি সেলাই দেওয়া হয়েছে।

শিক্ষার্থীরা বিক্ষুব্ধ হতে পারে এই আশঙ্কায় ঘটনার পরপরই পরীক্ষা কেন্দ্রে অতিরিক্ত পুলিশ অবস্থান নেয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইফুদ্দিন গিয়াস জানান, এই ঘটনায় পর অভিযুক্ত শিক্ষককে পরীক্ষার সব ধরনের দায়িত্ব থেকে স্থায়ীভাবে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।  

/এমএএ/

লাইভ

টপ