দিল্লির সহিংসতার প্রতিবাদে দেশজুড়ে বিক্ষোভ

Send
বাংলা ট্রিবিউন ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৮:৪৩, ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:৫৭, ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০২০

নারায়ণগঞ্জভারতের দিল্লিতে মুসলিমদের ওপর সহিংসতা এবং মুজিববর্ষের অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আমন্ত্রণের প্রতিবাদে দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালিত হয়েছে। মানবন্ধন, প্রতিবাদ মিছিল, বিক্ষোভ সমাবেশসহ নানা কর্মসূচি পালন করেছে বিভিন্ন সংগঠন। শুক্রবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) প্রতিবাদ কর্মসূচি পালিত হয় দেশের বেশ কয়েকটি জেলায়। বিভিন্ন জেলা থেকে বাংলা ট্রিবিউন প্রতিনিধিদের পাঠনো খবরে এই তথ্য জানা গেছে।

নারায়ণগঞ্জে জুমার নামাজের পর বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করে ইসলামী ছাত্রসেনা ও হেফাজতে ইসলাম। নগরীর নিতাইগঞ্জ বাইতুল ইজ্জত জামে মসজিদের সামনে থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে ইসলামী ছাত্রসেনা। মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। একই দাবিতে নগরীর ডি আই টি রেলওয়ে জামে মসজিদের সামনে প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করে হেফাজতে ইসলাম জেলা শাখা। মাওলানা আব্দুল আউয়ালের সভাপতিত্বে এই সমাবেশ হয়। এ সময় তিনি বলেন, ‘মুজিববর্ষের অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে দেশে ঢুকতে দেওয়া হবে না।’

নরসিংদীনরসিংদীতে শুক্রবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) বিকালে তানযিমুল মাদারিসিলি ক্বাওমিয়া বিক্ষোভ মিছিল করেছে। নরসিংদী পৌরসভার সামনে থেকে মিছিলটি শুরু হয়ে শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে নরসিংদী রেলওয়ে স্টেশন যায়। সেখানে এক পথসভা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় সংগঠনটির জেলা সভাপতি হাফেজ মাওলানা শওকত সরকার ও সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল নূরী উপস্থিত ছিলেন।

বরিশালবরিশাল নগরীতে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে টাউন হলের সামনে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে বাসদ জেলা শাখা। সভায় সভাপতিত্ব করেন দলের সদস্য সচিব ডা. মনিষা চক্রবর্তী। এ সময় বক্তব্য রাখেন বরিশাল জেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট হিরন কুমার দাস মিঠু, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের সভাপতি সাগর দাস, শ্রমিক ফ্রন্টের মহানগর সভাপতি বাবুল তালুকদারসহ অন্যান্যরা। এর আগে বাসদ জেলা ও মহানগরের নেতারা নগরীর ফকিরবাড়ি রোডে দলীয় কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ মিছিল করে। নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে টাউন হলের সামনে এসে মিছিলটি শেষ হয়।

খুলনাখুলনা জেলা ইমাম পরিষদের আহ্বানে বিকালে ডাকবাংলা মোড়ে সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল হয়। কর্মসূচি থেকে মুজিব শতবর্ষের অনুষ্ঠানে নরেন্দ্র মোদির আমন্ত্রণ বাতিল করার দাবি জানানো হয়। খুলনা জেলা ইমাম পরিষদ সভাপতি মাওলানা মোহাম্মদ সালেহ এর সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সহ-সভাপতি মাওলানা আসাদুল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা গোলাম কিবরিয়াসহ আরও অনেকে।

দিনাজপুর ইনস্টিটিউট মাঠ থেকে ইমাম-ওলামা মাশায়েখ ও তৌহিদী জনতার ব্যানারে জুমার নামাজ শেষে একটি মিছিল বের হয়। মিছিলটি বাহাদুরবাজার-পৌরসভা-নিমতলা-মর্ডান মোড় হয়ে পুনরায় ইনস্টিটিউট মাঠে গিয়ে শেষ হয়। মিছিল শুরুর আগে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশ হয়। এ সময় বক্তব্য রাখেন সংগঠনটির জেলা সভাপতি মতিউর রহমান কাসেমী, সাধারণ সম্পাদক সোহরাব হোসেন প্রমুখ।

নেত্রকোনায় জুমার নামাজের পর শহরের বড় বাজার জামে মসজিদ থেকে খেলাফত যুব আন্দোলন বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনের সড়কে এসে শেষে হয়। সেখানে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জেলা সভাপতি মৌলানা আব্দুর রহিম, হাবিবুল্লাহ বেলালীসহ বিভিন্ন নেতারা। এসময় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়।

শ্রীমঙ্গলমৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে বাদ জুমা পৌর শহরের কলেজ রোডস্থ শ্রীমঙ্গল জামে মসজিদ থেকে বাংলাদেশ আনজুমানে আল ইসলাহ্ ও তালামীযে ইসলামিয়া বিক্ষোভ মিছিল বের করে।

রাঙামাটিরাঙামাটিতে জুম্মা নামাজ শেষে শহরের পুরাতন বাস স্ট্যান্ড, পুরাতন হাসপাতাল এলাকা ও মাতৃমঙ্গল এলাকার মুসলমান সমাজের ব্যানারে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে পুরাতন বাস স্ট্যান্ড জামে মসজিদের খতিব জসিম উদ্দিন নুরী বলেন, ‘দিল্লির সহিংসতায় জড়িতদের দ্রুত আন্তর্জাতিক আদালতে বিচার করতে হবে।’

প্রসঙ্গত, ভারতের রাজধানী দিল্লির উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় এলাকায় গত ২৩ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হওয়া সহিংসতায় বৃহস্পতিবার মধ্যরাত পর্যন্ত নিহত হন অন্তত ৩৮ জন।

/এনএস/

লাইভ

টপ