রাস্তায় মানুষ কম, টহল দিচ্ছে সেনাবাহিনী, পুলিশ আর প্রশাসন

Send
নীলফামারী প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১১:১০, মার্চ ২৮, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১১:২১, মার্চ ২৮, ২০২০

রাস্তায় সাধারণ মানুষের উপস্থিতি কম


করোনা আতঙ্কে সারাদেশের মানুষই কার্যত গৃহবন্দি। নিতান্ত প্রয়োজন ছাড়া কেউ বাইরে বের হচ্ছেন না। ফলে রাস্তাঘাট অনেকটাই জনমানব শূন্য। এরকমই অবস্থা নীলফামারী সদর, ডোমার, ডিমলা, জলঢাকা, কিশোরীগঞ্জ, সৈয়দপুর ও সদর উপজেলায় রাস্তাঘাটের। এসব এলাকায় রাস্তায় দায়িত্ব পালন করতে দেখা গেছে সেনাবাহিনী, পুলিশ ও জেলা, উপজেলা প্রশাসন।


শুক্রবার (২৭ মার্চ) সকাল থেকে প্রত্যন্ত গ্রামে সব কাঁচাবাজার, মুদি দোকান, ওষুধের দোকান  ছাড়া অন্যান্য সব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। সব মিলিয়ে পুরো এলাকায় নীরব। করোনা প্রতিরোধে মানব দূরত্ব নিশ্চিত করতে কঠোর নজরদারি করছে সেনা সদস্যরা। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে মানুষকে বাইরে না যেতে সেনা, পুলিশ সদস্য ও তথ্য অফিস মাইকিং করে সতর্ক করছে।

এদিকে, জেলার সব মসজিদে শুধু জুমার ফরজ নামাজ আদায় করা হচ্ছে। নফল ও সুন্নত নিজ নিজ বাড়িতে আদায়ের জন্য বলা হয়। মসজিদে লোক সংখ্যাও ছিল খুবই কম। 

রাস্তায় মানুষের উপস্থিতি কম
নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম যেন কেউ বাড়াতে না পারেন সে বিষয়টি তারা নিশ্চিত করছেন। স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে সমন্বয় করেই সেনা সদস্যরা তাদের দায়িত্ব পালন করছেন। জেলা প্রশাসনের ১৩টি ভ্রাম্যমাণ আদালত জেলার বিভিন্ন উপজেলায় কাজ করছে।

পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে শহরে বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া রিকশা, অটোরিকশা ও ভ্যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ করছেন। 
সিভিল সার্জন ডা. রনজিৎ কুমার বর্মন জানান, বিদেশফেরত প্রবাসীদের হোম কোয়ারেন্টিনে রেখে সার্বক্ষণিক নজরদারির মধ্যে রাখা হয়েছে।
জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরী জানান, মেজর এরফানের নেতৃত্বে সেনাদল মাঠে কাজ করছেন। কোথাও যেন জনসমাগম না হয় সে বিষয়ে তারা নজরদারি করছেন। 

 

/এসটি/

লাইভ

টপ