জ্বর-রক্ত বমিতে মৃত যুবকের করোনা ছিল না

Send
নোয়াখালী প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ০৫:৪৯, মার্চ ২৯, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০৬:৩৯, মার্চ ২৯, ২০২০




নোয়াখালীবেগমগঞ্জ উপজেলায় জ্বর ও রক্ত বমিতে মারা যাওয়া যুবক নিলয় চন্দ্র মজুমদারের (২৪) শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি মেলেনি। তার নমুনা পরীক্ষায় ভাইরাসের (কোভিড-১৯) অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছেন সিভিল সার্জন মো. মোমিনুর রহমান। শনিবার (২৮ মার্চ) জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর) থেকে এ প্রতিবেদন দেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

মৃত নিলয় চন্দ্র মজুমদার একই এলাকার আজিজিয়া প্লাজার চতুর্থ তলায় ভাড়া থাকতেন। তার বাবা তপন চন্দ্র মজুমদার। নিলয় মজুমদার ওই ভবনের দন্ত চিকিৎসক ডা. শরীফের সহকারী হিসেবে কাজ করতেন।

সিভিল সার্জন মো. মোমিনুর রহমান বলেন, শুক্রবার বিকালে মৃতের শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআরে পাঠানো হয়েছিল। শনিবার বিকাল ৫টার দিকে আমাদের কাছে রিপোর্ট এসেছে। রিপোর্টে তার শরীরে করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি।

বেগমগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহবুব আলম জানান, নিলয় চন্দ্র মজুমদারের শরীরে করোনার অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি, তাই আজিজিয়া প্লাজাসহ পাবলিক হল এলাকা থেকে লকডাউন অবস্থা তুলে নেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, সাত দিন ধরে জ্বরে ভুগছিলেন নিলয়। তিনি মঙ্গলবার বিকালে মেডিসিন বিশেষজ্ঞ আবদুল আউয়ালকে দেখান এবং তার ব্যবস্থাপত্র অনুযায়ী চিকিৎসা চলছিল। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায়, ওই তরুণের একাধিকবার বমি হয় এবং তার সঙ্গে রক্ত যায়। এসময় পরিবারের সদস্যরা তাকে নোয়াখালী ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে, কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। দেশের বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় ওই তরুণের লাশ থেকে আলামত সংগ্রহ করে, তা ঢাকায় পাঠানো হয়েছিল।


আরও পড়ুন:
জ্বর ও রক্ত বমির পর তরুণের মৃত্যু, নমুনা ঢাকায়

/টিটি/

লাইভ

টপ