করোনার কারণে সবচেয়ে বিপদে নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারগুলো: রাঙ্গা

Send
লিয়াকত আলী বাদল, রংপুর
প্রকাশিত : ০৯:১৮, এপ্রিল ০৯, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০৯:১৮, এপ্রিল ০৯, ২০২০

মশিয়ার রহমান রাঙ্গাকরোনা পরিস্থিতির কারণে নিম্ন মধ্যবিত্ত আর মধ্যবিত্ত পরিবারগুলো সবচেয়ে বিপদে আছে বলে মনে করেন সংসদে বিরোধী দলীয় চিফ হইপ ও জাতীয় পার্টির মহাসচিব মশিয়ার রহমান রাঙ্গা এমপি। তিনি বলেছেন,  ‘শ্রমজীবী মানুষের পাশাপাশি নিম্ন মধ্যবিত্ত ও মধ্যবিত্ত পরিবারগুলো চরম খাদ্য সংকটে পড়েছে। জরুরি ভিত্তিতে উপজেলা থেকে শুরু করে ওয়ার্ড পর্যায়ে ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিক্রির ব্যবস্থা না করলে করোনা ভাইরাস লাগবে না, এমনিতেই মানুষ না খেয়ে মারা যাবে।‘ বুধবার (৮ এপ্রিল) রাতে টেলিফোনে বাংলা ট্রিবিউনের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

জাপা মহাসচিব বলেন, ‘আমি কয়েকদিন ধরে আমার নির্বাচনি এলাকা রংপুর-১ আসন গঙ্গাচড়ায় নিজ বাসায় অবস্থান করছি। আমি তিস্তা নদী বেষ্টিত চরাঞ্চলের বিভিন্ন এলাকাসহ বিভিন্ন গ্রামে ঘুরে দেখছি কী ভয়াবহ অবস্থা। মানুষ অনাহারে অর্ধাহারে মানবেতরভাবে দিন কাটাচ্ছে। কৃষি শ্রমিক সহ নিম্ন আয়ের মানুষের ঘরে খাবার নেই। তারা ১৫ দিন ধরে কর্মহীন অবস্থায় বাসায় পরিবার-পরিজন নিয়ে অনাহারে-অর্ধাহারে দিন কাটাচ্ছে। প্রশাসন ও স্থানীয়ভাবে মানুষের ঘরে ঘরে খাদ্য দেওয়ার কথা বলা হলেও সবাইতো সে সাহায্য পাচ্ছে না।‘

তিনি বলেন, ‘সবচেয়ে বিপদে আছে নিম্ন মধ্যবিত্ত আর মধ্যবিত্ত পরিবারগুলো। যারা নিজেদের অভাব অভিযোগের কথা কাউকে বলতে পারে না। সাহায্যের জন্য কারও কাছে হাত পাততে পারে না। অথচ এদের জন্য আমরা কিছুই করতে পারছি না।‘

জাপা মহাসচিব বলেন, ‘আমি ঘুরে ঘুরে দেখেছি মানুষ অনেক সংকটে রয়েছে। ঘরে ঘরে গিয়ে যে ত্রাণ দেওয়া হচ্ছে, এটি ভালো উদ্যোগ। কিন্তু এসব করে সংকট মোকাবিলা সম্ভব নয়। আমি সরকারের কাছে অনুরোধ জানাবো, সংকট ঘনীভূত হওয়ার আগেই ইউনিয়ন পর্যায়ে ১০ টাকা দরে চাল এবং ডাল বিক্রি করতে। তা না হলে মানুষ করোনা থেকে বাঁচলেও খাবারের অভাবে অনেকেই মারা যেতে পারে। তিনি অবিলম্বে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরাসরি হস্তক্ষেপ কামনা করেন।’

সেই সঙ্গে দেশের এই সংকটকালীন মূহূর্তে দল-মত নির্বিশেষে প্রতিটি এলাকার অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য বিত্তবানদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

 

/এফএস/

লাইভ

টপ