করোনা সন্দেহে শাশুড়িকে রাস্তায় ফেলে গেলেন পুত্রবধূরা

Send
ফেনী প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ০৪:১০, মে ১৯, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০৪:১৪, মে ১৯, ২০২০

ফেনীর সোনাগাজীতে করোনা সন্দেহে অসুস্থ বৃদ্ধা শাশুড়ি ফিরোজা বেগমকে (৭৫) রাস্তায় ফেলে যায় দুই পুত্রবধূ। সোমবার (১৮ মে) উপজেলার মতিগঞ্জ ইউনিয়নের সুজাপুর এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। পরে রাতে স্থানীয়রা ওই বৃদ্ধাকে উদ্ধার করে বাড়িতে পৌঁছে দেয়।

স্থানীয় সমাজের পঞ্চায়েত কমিটির সভাপতি সাহাব উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। স্থানীয়রা জানায়, বৃদ্ধা ফিরোজা বেগম উপজেলার সুজাপুর এলাকার হোসেন আহম্মদের স্ত্রী। তার মোস্তফা ও ওমর ফারুক নামে দুই ছেলে রয়েছে। তারা দুজনই বর্তমানে প্রবাসে আছেন। বাড়িতে দুই পুত্রবধূর সঙ্গে বৃদ্ধা থাকতেন। দীর্ঘদিন ধরে তিনি প্যারালাইসিসসহ কয়েকটি রোগে ভুগছেন। এতদিন পুত্রবধূরা তার সেবাযত্ন করলেও করোনা পরিস্থিতিতে ওষুধপত্র কিনে দেওয়া ও সেবা করা অনেকটা বন্ধ করে দিয়েছেন। বৃদ্ধা ফিরোজা বেগম বউদের কাছে কিছু চাইলে শারীরিকভাবে তাকে লাঞ্ছিত করতো পুত্রবধূরা। গত কয়েকদিন ধরে বৃদ্ধার অসুস্থতা বেড়ে যায়। ঘটনার দিন শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে বড় ছেলে মোস্তফার স্ত্রী পারভিন আক্তার ও লিপি আক্তার মিলে অসুস্থ বৃদ্ধাকে বাড়ির পাশের রাস্তায় ফেলে যায়।

বৃদ্ধা ফিরোজা বেগমের বাড়ির বাসিন্দা আবদুর রব জানান, মহিলাটি কিছুক্ষণ পর হামাগড়ি দিয়ে বাড়িতে চলে যায়। এরপর বিকালে আবারও তারা ফিরোজাকে বাড়ি থেকে ধরে এনে রাস্তায় ফেলে যায়। প্রায় সময় দুই বউ ওই নারীকে লাঞ্ছিত করতো। ঠিক মতো খেতে দিত না।

স্থানীয় সমাজের পঞ্চায়েত কমিটির সভাপতি সাহাব উদ্দিন বলেন, ‘পরে বাড়িতে লোক পাঠিয়ে দুই পুত্রবধূকে ডেকে এনে বিষয়টি সমাধান করা হয়। ওই বৃদ্ধাকে দুই পুত্রবধূর হাতে তুলে দিয়েছে সমাজের লোকজন।’

/এনএস/

লাইভ

টপ