স্ট্রোকে মৃত্যু, তারপরও লাশ পড়ে রইলো বিছানায়

Send
পাবনা প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৩:০৯, মে ২৩, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৩:১৬, মে ২৩, ২০২০

লাশস্ট্রোক করে মারা যাওয়া এক ব্যক্তির মৃতদেহ গোসল ও দাফন করাতে যায়নি কেউ। দীর্ঘ সময় লাশটি পড়েছিল বিছানাতে। ভয়ে কেউ লাশটির কাছে যায়নি। পরিবারের সদস্যরাও দাঁড়িয়েছিলেন বেশ দূরে। খবর পেয়ে স্পথানীয় কয়েকজন গিয়ে ওই ব্যক্তির দাফনের ব্যবস্থা করেন। পাবনা সদর থানার গয়েশপুর ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের ধোপাদহ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

শুক্রবার (২২ মে) সকাল পৌনে ৮টার দিকে স্ট্রোক করে মারা যান নুরুজ্জামান নুরু খান (৫৫)। তিনি দীর্ঘদিন ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপে ভুগছিলেন। মারা যাওয়ার পর ভয়ে কেউ কাছে যায়নি। লাশ পড়ে থাকার খবর পেয়ে গণমাধ্যম কর্মী সনম রহমানের সঙ্গে সেখানে ছুটে যান তহুরা আজিজ ফাউন্ডেশনের পরিচালক সমাজকর্মী দেওয়ান মাহবুব এবং নাট্যকর্মী ও সমাজকর্মী শিশির ইসলাম। আর যাওয়ার সময়ে তাদেরকে দু’টি অত্যাধুনিক পিপিইসহ সুরক্ষার উপকরণ দিয়ে সহযোগিতা করেন জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক শিবলী সাদিক। স্থানীয় ইমাম গোসল করাতে না আসলেও দূর থেকে দাঁড়িয়ে তিনি মাহবুব ও শিশিরকে সব প্রক্রিয়া বলে দেন। এরপর স্থানীয় মসজিদে অল্প কয়েকজনের উপস্থিতিতে জানাজা শেষে দাফন করা হয়। 

বিষয়টি জেলা পুলিশ ও স্বাস্থ্য বিভাগকে অবহিত করেই মরদেহের গোসল, জানাজা ও দাফন সম্পন্ন করা হয়।

মৃতদেহ গোসল ও দাফনের কাজ করায় ওই তিন জনের কাছে ভেড়েনি কোনও মানুষ। কোনও ভ্যানচালকও তাদেরকে ভ্যানে তোলেননি ভয়ে।

তারা বলেন, এটা কোনও যুক্তির কথা হলো না। মানুষটা তো মারা গেছে স্ট্রোকে। এমন অমানবিকতা কখনই কাম্য নয়। সব মানুষকে মানুষের বিপদে আপদে পাশে থাকার আহ্বান জানান তারা। 

 

 

/এসটি/

লাইভ

টপ