খুলনা বিভাগে ১৫ দিনে করোনা শনাক্ত বেড়েছে ৭২ শতাংশ

Send
হেদায়েৎ হোসেন, খুলনা
প্রকাশিত : ১৮:০৩, মে ৩১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:০৩, মে ৩১, ২০২০

খুলনা বিভাগখুলনা বিভাগে গত ১৬ মে পর্যন্ত করোনা শনাক্ত ছিল ৩০১ জন। ১৫ দিন পর ৩১ মে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫১৯ জনে। ১৫ দিনেই এ বিভাগে ২১৮ জন নতুন করে করোনা  শনাক্ত হয়েছেন অর্থাৎ শনাক্ত বৃদ্ধির হার ৭২ দশমিক ৪২ শতাংশ।

গত ১৬ মে করোনা আক্রান্ত রোগী সুস্থ ছিল ৮৯ জন (হার ২৯ দশমিক ৫৬ শতাংশ)। আর ৩১ মে সুস্থ হয়েছেন ২৩০ জন (হার ৪৪ দশমিক ৩১ শতাংশ)। এই হিসেবে ১৫ দিনে সুস্থ হওয়ার সংখ্যা বেড়েছে ১৪১ জন। অর্থাৎ শতকরা হিসেবে ১৫ দিনে ১৪ দশমিক ৭৫ শতাংশ রোগী সুস্থ হয়েছেন।

খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদফতরের স্বাস্থ্য পরিচালকের কার্যালয় থেকে পাওয়া করোনা বিষয়ক প্রতিবেদনে এ চিত্র দেখা গেছে।

প্রতিবেদন বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, ৩১ মে পর্যন্ত এ বিভাগে করোনায় মৃত্যুর হার এক দশমিক ৯২ শতাংশ এবং সুস্থতার হার ৪৪ দশমিক ৩১ শতাংশ। আর আক্রান্তের হার ৩ দশমিক ৬৬ শতাংশ। গত ১৬ মে পর্যন্ত এ বিভাগে মৃত্যু হার ছিল এক দশমিক ৯৯ শতাংশ, সুস্থতার হার ছিল ২৯ দশমিক ৫৬ শতাংশ এবং আক্রান্তের হার ছিল ৪ দশমিক ৬৫ শতাংশ। পাশাপাশি জাতীয়ভাবে ৩১ মে প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, দেশে মৃত্যুর হার এক দশমিক ৩৮ শতাংশ, সুস্থতার হার ২০ দশমিক ৭৪ শতাংশ এবং আক্রান্তের হার ৫ দশমিক ৩৯ শতাংশ।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক রাশিদা সুলতানা জানান, ৩১ মে পর্যন্ত খুলনা বিভাগের ১০ জেলায় করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন ৫১৯ জন। আর মারা গেছেন ১০ জন। এর মধ্যে যশোরে সর্বোচ্চ ১০৪ জন পজিটিভ, চুয়াডাঙ্গায় ৯০ জন, খুলনায় ৭৮ জন ও ৪ জনের মৃত্যু, কুষ্টিয়ায় ৫৮ জন, ঝিনাইদহে ৪৯ জন, সাতক্ষীরায় ৪৫ জন, বাগেরহাটে ২৮ জন ও ২ জনের মৃত্যু, মেহেরপুরে ২৪ জন ও ২ জনের মৃত্যু, নড়াইলে ২২ জন ও একজনের মৃত্যু এবং মাগুরায় ২১ জনের করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়।

 ৩১ মে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী ২৪ ঘণ্টায় ১৯ জন পজিটিভ শনাক্ত এবং দুই জন মারা গেছেন। এর মধ্যে খুলনায় দুই জন পজিটিভ ও একজনের মৃত্যু, সাতক্ষীরায় ৫ জন পজিটিভ, যশোরে ৪ জন পজিটিভ, কুষ্টিয়ায় একজন পজিটিভ এবং মেহেরপুরে সাত জন পজিটিভ ও একজনের মৃত্যু হয়েছে।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের কার্যালয় থেকে গত ১৬ মে প্রকাশিত প্রতিবেদনে মোট আক্রান্ত ছিল ৩০১ জন ও মৃত ছিল ৬ জন। এর মধ্যে যশোরে ছিল সর্বোচ্চ ৯০ জন পজিটিভ, চুয়াডাঙ্গায় ৭৮ জন ও একজনের মৃত্যু, ঝিনাইদহে ৪৩ জন, কুষ্টিয়ায় ২২ জন, খুলনায় ১৯ জন ও ২ জনের মৃত্যু, মাগুরায় ১৯ জন, নড়াইলে ১৫ জন ও একজনের মৃত্যু, বাগেরহাটে ৭ জন পজিটিভ ও একজনের মৃত্যু, মেহেরপুরে ছয় জন ও একজনের মৃত্যু এবং সাতক্ষীরায় দুই জন করোনা পজিটিভ ছিল।

উল্লেখ্য, খুলনা বিভাগে ১০ মার্চ থেকে করোনার হিসাব শুরু হয়। আর ঢাকার রিপোর্টে চুয়াডাঙ্গায় আসা ইতালি প্রবাসী প্রথম করোনা পজিটিভ শনাক্ত হন ১৯ মার্চ। তারপর দ্বিতীয় করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয় ১৩ এপ্রিল খুলনার তাবলিগ ফেরত অবসরপ্রাপ্ত ব্যাংক কর্মকর্তা। আর ২৮ এপ্রিল ১১২ জন পজিটিভ শনাক্ত হয়। প্রথম একশ' হতে সময় লাগে ৩৯ দিন। দুইশ' হয় ১২ দিনে (৯ মে)। আর তিনশ' হয় সাত দিনে (১৬ মে), চারশ' হয় ৮দিনে (২৪ মে) এবং পাঁচশ' হয় ৬ দিনে (৩০ মে)।

 

 

 

/আইএ/

লাইভ

টপ