বাবার বাড়িতে দু’দিন বেশি থাকায় স্ত্রীকে মারধর, লাশ মিললো নদীতে

Send
নীলফামারী প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১০:০৪, জুলাই ০৭, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১০:০৪, জুলাই ০৭, ২০২০

লাশ



নীলফামারীর কিশোরীগঞ্জে শ্যামলী আক্তার (২৪) নামের এক গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে হত্যা অভিযোগে উঠেছে স্বামী আশিকুর রহমানের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় আশিককে  গ্রেফতার করছে পুলিশ।

সোমবার (৬ জুলাই) দুপুর দেড়টার দিকে উপজেলার নিতাই ইউনিয়নের চাড়ালকাটা নদীর বেলতলি ঘাট ব্রিজের নিচ থেকে শ্যামলীর লাশ উদ্ধার করা হয়। ধারণা করা হচ্ছে, তাকে হত্যার পর লাশ নদীতে ফেলে দেওয়া হয়।
তিন বছর আগে নিতাই ইউনিয়নের মৌলভীরহাট গ্রামের আসাদুজ্জামানের মেয়ে শ্যামলীর সঙ্গে বালাপাড়া গ্রামের আশিকুর রহমানের বিয়ে হয়। তাদের একটি সন্তানও আছে।
জানা গেছে, ঘটনার দিন শনিবার (৪ জুলাই) সন্ধ্যা ৭টার দিকে সন্তান নিয়ে শ্যামলী বাবার বাড়ি থেকে স্বামীর বাড়িতে আসেন। বাবার বাড়িতে একদিন থাকার কথা বলে ৩ দিন কেন ছিল এ নিয়ে স্ত্রীকে মারধর করে আশিক। তবে আশিক পুলিশকে জানিয়েছে, মারধর নয়, সন্তানকে রেখে স্ত্রীকে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দিয়েছিল সে। এরপর থেকে তার স্ত্রী নিখোঁজ ছিল। সোমবার দুপুরে তার লাশ চাড়ালকাটা নদীতে পাওয়া যায়।  
নিতাই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফারুকুজ্জামান ফারুক বলেন, ‘বিষয়টি নিয়ে মেয়ের বাবা-মা আমার কাছে এসে অভিযোগ করেছিল। বিষয়টি আমি থানার ওসিকে অবগত করি। এ অবস্থায় নদীতে তার লাশ পাওয়া যায়। এটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড বলে ধারণা করা হচ্ছে।’  
কিশোরীগঞ্জ থানার ওসি এম হারুন অর রশিদ বলেন, ওই গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাটি রহস্যজনক হওয়ায় তার স্বামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। 

 

/এসটি/

লাইভ

টপ