ধর্ষণের ভিডিও প্রকাশের হুমকি দিয়ে ৫ লাখ টাকা দাবি!

Send
ঝিনাইদহ প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১১:১২, জুলাই ১৩, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১১:১২, জুলাই ১৩, ২০২০

ধর্ষণ

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার পূর্ব বালিয়াডাঙ্গা গ্রামের এক প্রবাসীর স্ত্রীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ৫ জনকে আসামি করে কালীগঞ্জ থানায় একটি মামলা হয়েছে। শুক্রবার (১০ জুলাই) ভিকটিম নিজে বাদী হয়ে মামলাটি করেন। তবে পুলিশ এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। 




ভিকটিম জানায়, তার স্বামী বিদেশ যাওয়ার পর তিন মেয়েকে নিয়ে বাড়িতে থাকেন। ৫/৬ মাস ধরে সাঈদ হোসেন নামে একজন মোবাইলে তাকে ফোন দিতো। বিভিন্ন সময়ে ফোনে উত্ত্যক্ত করতো এবং ফোন দেওয়ার বিষয়ে কাইকে বললে তাকে ও তার সন্তানদের মেরে ফেলার হুমকি দিতো। তিনি ভয়ে কাউকে কিছু বলেননি। ৩০ জুন রাতে সাঈদ ফোন দিয়ে তাকে ঘরের বাইরে আসতে বলে। দরজা না খুললে ভেঙে ঘরে ঢুকবে বলে হুমকি দেয়। মান সম্মানের ভয়ে তিনি দরজা খুলতেই ৩-৪ জন তাকে বাড়ির পেছনের একটি আমাবাগানে নিয়ে যায় গিয়ে ধর্ষণ করে এবং মোবাইলে সেই দৃশ্য ধারণ করে। এক পর্যায়ে তিনি অজ্ঞান হয়ে যান। তারা তাকে ফেলে রেখে চলে যায়। ২-৩ ঘণ্টা পর জ্ঞান ফিরলে তিনি ধীরে ধরে উঠে বাড়িতে চলে আসেন।
তিনি আরও বলেন, ‘ঘটনার পরদিন সকালে আমি কাউকে কোনও কিছু জানানোর আগেই তারা আমাকে মোবাইল ফোনে হুমকি দিতে শুরু। যেন আমি কাউকে কিছু না বলি। কাউকে কিছু বললে তারা আমার সন্তানের অনেক ক্ষতি করবে ও ধর্ষণের ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেবে। আমি এই ভয়ে চুপ থাকি। এরপর তারা আমাকে ফোন দিয়ে ৫ লাখ টাকা দাবি করে। না হলে ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেওয়ার ভয় দেখায়।  আমি টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে ওই ভিডিও কয়েককজনকে দেখালে বিষয়টি জানাজানি হয়।’ পরে তিনি ৫ জনকে আসামি করে মামলা করেন। 
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও কালীগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) মতলেবুর রহমান জানান, ভিকটিম গৃহবধূ নিজেই বাদী হয়ে মামলা করেছেন। আসামিরা পলাতক রয়েছে। পুলিশ তাদের গ্রেফতারে চেষ্টা চালাচ্ছে। 



/এসটি/

লাইভ

টপ