খুন্তির ছ্যাঁকা সহ্য করতে না পেরে পালালো শিশু গৃহকর্মী

Send
বরিশাল প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ০১:৫৬, আগস্ট ১৩, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০২:৪৯, আগস্ট ১৩, ২০২০




শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে বরিশাল নগরীর দক্ষিণ আলেকান্দা রিফিউজি কলোনির এক ফ্ল্যাট বাসা থেকে পালিয়ে পুলিশের কাছে আশ্রয় নিয়েছে শিশু গৃহকর্মী আশা (১৩)। নির্যাতনকারী দম্পতির দাপটের কাছে অসহায় আশার পরিবার মামলা করতে রাজী না হওয়ায় বুধবার (১২ আগস্ট) দুপুরে কোতোয়ালি মডেল থানার এসআই আল-আমিন বাদী হয়ে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

আশা নগরীর ব্যাপ্টিস্ট মিশন রোডের ডেভিড বিশ্বাসের মেয়ে। বর্তমানে আশা পুলিশ ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টার রয়েছে। অভিযুক্ত দম্পতি রিফিউজি কলোনির বাসিন্দা বুলবুল বিশ্বাস ও বকুল বিশ্বাস। ঘটনার পরপরই ওই দম্পতি বাসা ছেড়ে পালিয়েছে।

আশা বলে, ওই বাসায় বাবা আমাকে কাজে দেয়। কাজে কোনও ভুল-ত্রুটি হলেই মারধর করা হতো। প্রতিদিন তাদের হাতে মার খেতে হতো। কিছুদিন ধরে আমাকে গরম খুন্তির ছ্যাঁকা ও লোহার রড দিয়ে পেটানো শুরু করে। মঙ্গলবারও আমাকে মারধর এবং খুন্তির ছ্যাঁকা দেয়। তাদের হাত থেকে বাঁচতে আমি রাতে ওই বাসা থেকে পালিয়ে একটি বাসায় যাই। তারা পুলিশে খবর দিলে পুলিশ আমাকে নিয়ে চিকিৎসা করায়।

সে আরও বলে, খাবার চাইলে আমাকে পচা ও বাসি খাবার দিতো। প্রতিদিন যা রান্না হতো, তা আমাকে দেওয়া হতো না। ফ্রিজের বাসি-পচা খাবার আমার জন্য রেখে দিতো।

আশার বাবা বলেন, দুই বছর আগে ওই বাসায় মেয়েকে কাজে দিয়েছিলাম। ছোট আশাকে সন্তানের মতো রাখার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন নির্যাতনকারী দম্পতি। আমার মেয়ের ওপর মারধরের কথা শুনে একাধিকবার আনতে গিয়েছি। তবে বুলবুল বিশ্বাস তার ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে আমাকে ফিরিয়ে দেয়। তাদের হুমকির কাছে আমি অসহায় হয়ে খালি হাতে ফিরে আসি। আমার মেয়ে নির্যাতন সহ্য করতে না পরে মঙ্গলবার রাতে ওই এলাকার এক বাসায় আশ্রয় নিলে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে।

এ বিষয়ে কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি নুরুল ইসলাম জানান, পুলিশের অভিযানের বিষয়টি টের পেয়ে আগেই বাসা থেকে পালিয়েছে অভিযুক্ত দম্পতি। নির্যাতনকারী বুলবুলের প্রভাবে মামলা করতে ডেভিড বিশ্বাস ভয় পাওয়ায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছে। ওই মামলায় তাদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

/টিটি/

লাইভ

টপ