সয়াবিনের দামও বেড়েছে লিটারে ১০ টাকা

Send
নীলফামারী প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৯:৫৮, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:৪৫, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২০

নীলফামারীতে গত এক মাসের ব্যবধানে মরিচ, পেঁয়াজ, আদা ও রসুনের পাশপাশি ভোজ্যতেলের দামও মণপ্রতি বেড়েছে ১ হাজার ৭০০ টাকা পর্যন্ত। ভোক্তাদের অভিযোগ, পাইকারি বাজারে তেলের দাম বাড়িয়েছেন বড় ব্যবসায়ীরা। জেলা শহরের বড় বাজারের মুদির দোকানদার ও পাইকার ব্যবসায়ী আবু সাইদ মিলন জানান, আন্তর্জাতিকভাবে ভোজ্যতেলের মূল্য বৃদ্ধির প্রভাব পড়েছে স্থানীয় বাজারে।

জেলা শহরের স্টেশন সড়কের পাইকারি ব্যবসায়ী তাপস কুমার ভৌমিক জানান, গত এক মাস আগে পরিবেশক পর্যায়ে প্রতিমণ সুপার পাম (৩৭ কেজি ৩২০ গ্রাম) সয়াবিন তেল বিক্রি হয়েছিল ২২০০-২৩০০ টাকা। এই হিসেবে প্রতি কেজির দাম পড়ে ৬২ টাকা ১৬ পয়সা। শুক্রবার (১৮ সেপ্টেম্বর) তা বিক্রি হয়েছে ৮২ টাকা ৪৩ পয়সা। যার মণপ্রতি দাম বেড়েছে ৩ হাজার ৫০ টাকা। প্রতিমণে দাম বেড়েছে ৭৫০ টাকা।

এদিকে, গত এক মাসে সিটি সয়াবিন, সিটি সুপার ও সিটি পাম প্রতি ড্রাম (১৮৫ কেজি) তেলের দাম ছিল ১৫ হাজার ৮০০ টাকা। যার প্রতি কেজির দাম ছিল ৮৫ টাকা ৪০ পয়সা। শুক্রবার বিক্রি হচ্ছে প্রতিকেজি ৯৪ দশমিক ৪৯ পয়সা। এতে কেজিতে দাম বেড়েছে প্রায় ১০ টাকা। বর্তমানে এক ড্রাম সিটি গ্রুপের সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ১৭ হাজার ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা। পরিবেশক পর্যায়ে ড্রামজাত সয়াবিনের মূল্য বেড়ে যাওয়ায় বোতলজাত তেলের দাম ইতোমধ্যে বাড়িয়েছে কোম্পানিগুলো।



 

/এএইচ/

লাইভ

টপ
X