১৪ দিন পর মারা গেলেন সেই মা

Send
নীলফামারী প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১০:২২, সেপ্টেম্বর ২০, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১০:২২, সেপ্টেম্বর ২০, ২০২০

লাশ



মেয়ের গোসলের ছবি নেওয়ার প্রতিবাদকে কেন্দ্র করে হামলার শিকার নুরজাহান বেগম (৪০) ১৪ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর মারা গেছেন। শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তার মৃত্যু হয়। ময়নাতদন্ত শেষে সন্ধ্যায় পারিবারিক কবরস্থানে তার দাফন করা হয়। এ ঘটনায় নুরজাহানের ছেলে শাহ আলম বাদী হয়ে ১০ জনকে আসামি করে স্থানীয় থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন। ডিমলা থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম এ তথ্য জানিয়েছেন।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, নীলফামারীর ডিমলার গয়াবাড়ী ইউনিয়নের সুটিবাড়ী গ্রামের আমিন মিয়া ও নুরজাহান বেগম দম্পতির মেয়ের গোসল করার সময় প্রতিবেশী আব্দুল খালেকের বখাটে ছেলে সজিব (১৯) মোবাইলে ভিডিও ধারণ করছিল। ঘটনাটি মেয়েটি দেখে চিৎকার দিলে সজিব উল্টো ঢিল ছুড়ে মারে। এ ঘটনায় মা নুরজাহান বেগম প্রতিবাদ করলে আব্দুল খালেকের স্ত্রী খদেজা বেগমসহ পরিবারের লোকজন লাঠি দিয়ে তাকে বেধড়ক মারধর করে। পরে তাকে এলাকাবাসী উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। ১৪ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর শনিবার ভোরে তিনি মারা যান।

এ ঘটনায় ডিমলা থানায় হওয়া হত্যা মামলায় সজিবকে গ্রেফতার করে পুলিশ। অন্য আসামিরা পালিয়ে গেছে। আজ রবিবার (২০ সেপ্টেম্বর) তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হবে।
ডিমলা থানার ওসি জানান, মামলার এজাহার নামীয় সব আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

 

/এসটি/

লাইভ

টপ