ভোটার নেই দুই ইউনিয়ন পরিষদে

Send
বরিশাল প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৫:১০, অক্টোবর ২০, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৫:৫০, অক্টোবর ২০, ২০২০



বরিশাল জেলার বাকেরগঞ্জ ও উজিপুরের দুটি ইউনিয়নে এবং সদর উপজেলার চড়বাড়িয়া ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। বাকেরগঞ্জের কলসকাঠী ইউনিয়ন এবং উজিরপুরের সাতলা ইউনিয়ন পরিষদের উপ-নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি তেমন ছিল না। তবে সদর উপজেলার চড়বাড়িয়া ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের উপ-নির্বাচনে সকাল থেকে প্রচুর সংখ্যক ভোটার দেখা গেছে।

নির্বাচিত দুই চেয়ারম্যানের মৃত্যুজনিত কারণে কলসকাঠী এবং সাতলা ইউনিয়ন পরিষদে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। কলসকাঠী ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডের ৯টি কেন্দ্রে এবং সাতলার ৯টি ওয়ার্ডের ৯টি কেন্দ্রে সকাল ৮টায় একযোগে ভোটগ্রহণ শুরু হয়।

কলসকাঠীর ধাবরকাঠী বি কে ইউনিয়ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট শুরুর আগে বিএনপি প্রার্থীর পোলিং এজেন্ট অফিস ভাঙচুর করে কর্মী-সমর্থকদের তাড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীর কর্মীর বিরুদ্ধে। জাতীয় পার্টির প্রার্থীর পোলিং এজেন্টও তাড়িয়ে দেওয়া হয়। কলসকাঠী ইউনিয়নে মোট ভোটার ১৯ হাজার ৭৪ জন। এখানে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আওয়ামী লীগের ফয়সাল ওয়াহিদ মুন্না তালুকদার, বিএনপির শওকত হোসেন হাওলাদার এবং জাতীয় পার্টির এমএ বাছেদ হাওলাদার বাচ্চু।

উজিরপুরের সাতলা ইউনিয়ন পরিষদের উপ-নির্বাচনে ৯টি কেন্দ্রের কোথাও ভোটারের তেমন উপস্থিতি নেই। এখানে বিএনপির প্রার্থী না থাকায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী খায়রুল বাশার লিটন একচেটিয়া প্রভাবে দুই স্বতন্ত্র প্রার্থী আক্তারুজ্জামান বিশ্বাস ও রিয়াজ মোল্লা সব কেন্দ্রে পোলিং এজেন্ট দিতে পারেননি। এই ইউনিয়নে মোট ভোটার ২০ হাজার ৯৬৩জন।

দুই ইউনিয়ন ভোটরশূন্য হলেও সদর উপজেলার চড়বাড়িয়া ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডে সদস্য পদে উপ-নির্বাচনে ভোটারদের দীর্ঘ লাইন দেখা গেছে। ভোট শুরুর আগে এই কেন্দ্রে উপস্থিত সব ভোটারের মধ্যে সদস্য প্রার্থী মো. মোকসেদ আকনের পক্ষে মাস্ক বিতরণ করা হয়। মোকসেদ আকন ছাড়াও এখানে সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন মাসুদ হোসেন হাওলাদার, মামুন হোসেন আকন এবং মো. বাদল হাওলাদার। এই কেন্দ্রে মোট ভোটার ১ হাজার ৭২৬ জন।


 

/এএইচ/

লাইভ

টপ