X
শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২
১৬ আশ্বিন ১৪২৯

৪ সাংবাদিককে পেটালেন আ.লীগ নেতার ছেলে  

লালমনিরহাট প্রতিনিধি
১৩ আগস্ট ২০২২, ০০:২৭আপডেট : ১৩ আগস্ট ২০২২, ০০:২৭

পেশাগত দায়িত্ব পালন শেষে ফেরার পথে লালমনিরহাটে চার সাংবাদিককে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার (১২ আগস্ট) সন্ধ্যায় সদর উপজেলার পঞ্চগ্রাম ইউনিয়নের দিনাদুলি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

হামলায় আহত সাংবাদিকরা হলেন দৈনিক প্রথম আলোর জেলা প্রতিনিধি আবদুর রব সুজন, যমুনা টিভির আনিসুর রহমান লাডলা, এখন টেলিভিশনের মাহফুজুল ইসলাম বকুল ও যমুনা টিভির ক্যামেরাপারসন আহসান হাবীব। 

আহত সাংবাদিকরা অভিযোগ করেন, পঞ্চগ্রাম ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি আজিজার রহমানের বড় ছেলে সাহেদ আলী মন্ডলের নেতৃত্ব ২০/২২ জনের একটি দল এ হামলা চালায়।

আহতদের লালমনিরহাট সদর ১০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এরমধ্যে লাডলার কপালে সেলাই পড়েছে এবং বকুলের হাতের জোড়া ফেটে গেছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক।

মারধরের শিকার আবদুর রব সুজন বলেন, পঞ্চগ্রাম ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি আজিজার রহমানের ছেলে ও দেউতিরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের নৈশপ্রহরী সুলতান হোসেন মন্ডলের বিরুদ্ধে গত ৭ আগস্ট প্রতিবেশীর স্ত্রীকে নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার অভিযোগ ওঠে। সুলতান ওই ইউনিয়নের যুবরীগ নেতা। এ বিষয়ে খোঁজ নিতে সরজমিনে আমিসহ চার সাংবাদিক মোটরসাইকেলে পঞ্চগ্রামের দিনাদুলি এলাকায় যাই। সেখানে সুলতানের বাবা ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি আজিজার রহমানের সঙ্গে আমাদের কথা হয়। 

তিনি আরও বলেন, কাজ শেষে ফেরার পথে সুলতান মন্ডলের ভাই ও আজিজার রহমানের বড় ছেলে সাহেদ আলী মন্ডলের নেতৃত্বে ২০/২২ জনের একটি দল আমাদের ওপর হামলা চালায়। এ সময় আমাদের সঙ্গে থাকা ট্রাইপড, ক্যামেরা, হেলমেট ভাঙচুর করা হয়। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় শহরে এসে হাসপাতালে ভর্তি হই। 

তবে হামলার বিষয়টি কৌশলে এড়িয়ে পঞ্চগ্রাম ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি আজিজার রহমান বলেন, ‘সাংবাদিকের ওপর হামলা কারা করেছে সে বিষয়ে খোঁজ চলছে। হামলাকারী আমার ছেলে হলেও তার বিচার হোক। তবে আমি সাংবাদিকদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করিনি।’ 

জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের প্রশাসক মতিয়ার রহমান বলেন, ‘আমি আহতদের অবস্থা দেখতে হাসপাতালে গিয়েছিলাম। ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখজনক। ইতোমধ্যে ওই ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক বসুনিয়াকে প্রধান করে তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। প্রতিবেদন পেলে দোষীদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

সদর থানার ওসি এরশাদুল আলম বলেন, হামলার বিষয়ে পুলিশ সুপার আবিদা সুলতানাও জানেন। তিনি এ বিষয়ে সার্বিক খোঁজ নিচ্ছেন। অভিযোগ পেলেই অপরাধীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় নেওয়া হবে বলে জানান তিনি। 

 

/টিটি/
সম্পর্কিত
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
তাঁত বোর্ডে দুর্নীতি: কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা
তাঁত বোর্ডে দুর্নীতি: কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা
স্কুলছাত্র লাবন হত্যার রহস্য উদঘাটন
স্কুলছাত্র লাবন হত্যার রহস্য উদঘাটন
বেনাপোল সীমান্তে ৭ পিস্তল উদ্ধার, যুবক আটক
বেনাপোল সীমান্তে ৭ পিস্তল উদ্ধার, যুবক আটক
কর্ণফুলীতে নিখোঁজ ব্যবসায়ীর সন্ধান মেলেনি
কর্ণফুলীতে নিখোঁজ ব্যবসায়ীর সন্ধান মেলেনি
এ বিভাগের সর্বশেষ
স্কুলছাত্র লাবন হত্যার রহস্য উদঘাটন
স্কুলছাত্র লাবন হত্যার রহস্য উদঘাটন
বেনাপোল সীমান্তে ৭ পিস্তল উদ্ধার, যুবক আটক
বেনাপোল সীমান্তে ৭ পিস্তল উদ্ধার, যুবক আটক
কর্ণফুলীতে নিখোঁজ ব্যবসায়ীর সন্ধান মেলেনি
কর্ণফুলীতে নিখোঁজ ব্যবসায়ীর সন্ধান মেলেনি
রোহিঙ্গা ইয়াবা ব্যবসায়ীসহ ২ জন গ্রেফতার
রোহিঙ্গা ইয়াবা ব্যবসায়ীসহ ২ জন গ্রেফতার
লাইভ চলাকালে সাংবাদিকের ওপর হামলা: আসামি বিএমডিএ কর্মচারীর পদোন্নতি
লাইভ চলাকালে সাংবাদিকের ওপর হামলা: আসামি বিএমডিএ কর্মচারীর পদোন্নতি