জটিলতায় ‘পাফ ড্যাডি’, উজ্জ্বলকে ছাড়াই চলছে শুটিং!

Send
বিনোদন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২০:০৫, জানুয়ারি ২৬, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৪:৫৯, জানুয়ারি ২৭, ২০২০

মূল নির্মাতা উজ্জ্বলের সেটে পরীমনি ও আজাদ আবুল কালামগেলো বছর এপ্রিলের দিকে খবর আসে টিভি নাটক, সিনেমার পর থ্রিলার ঘরানার ওয়েব সিরিজে হাত দিচ্ছেন নির্মাতা মাসুদ হাসান উজ্জ্বল। পরিকল্পনা মতো কাজও শুরু করেন, সঙ্গে কাস্টিং আর সেট চমক। দ্রুত সময়ের মধ্যে ‘পাফ ড্যাডি’ নামের এই সিরিজের বেশিরভাগ শুটিংও শেষ করেন বলে জানা গেছে।
গত বছরের এমন খবরের পর মাঝে লম্বা সময় চুপচাপ। উজ্জ্বল ব্যস্ত হয়ে ওঠেন তার মুক্তি প্রতীক্ষিত নতুন ছবি ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’ নিয়ে। তবে ‘পাফ ড্যাডি’র স্থিরতায় নতুন বাতাস লাগে গেলো দুদিন ধরে। শুরু হয় শুটিং। চরিত্রগুলো একই, তবে বড় খটকার জন্ম দেয় নির্মাতার চেয়ার নিয়ে। কারণ, এবার সেই চেয়ারে উজ্জ্বল নয়, দেখা মিলছে অন্য কারও!
জানা গেছে, বিরতি শেষে সিরিজটির এই পর্যায়ের শুটিং করছেন তরুণ নির্মাতা-অভিনেতা সহিদ উন নবী!
শুরু হয়েছে ২৩ জানুয়ারি থেকে। আজ (২৬ জানুয়ারি) সিলেটে হচ্ছে ‘পাফ ড্যাডি’র কাজ। শুটিংয়ে অংশ নিয়েছেন পরীমনি, সজলসহ অন্যান্য শিল্পী।
চলমান শুটিংয়ের একটি দৃশ্যে সজল ও পরীমনিবিষয়টি নিয়ে মাসুদ হাসান উজ্জ্বলের মুখোমুখি বাংলা ট্রিবিউন। তিনি বললেন, ‘আমি আসলে সিনেমাটা নিয়ে ব্যস্ত আছি। ২৮ ফেব্রুয়ারি ছবিটি মুক্তি দিচ্ছি। এখনও অনেক কাজ বাকি। ফলে কাগজে-কলমে লিখেই কাজটির বাকি অংশ থেকে নিজেকে ছাড়িয়ে নিলাম। কারণ, নানাবিধ কারণে প্রিয় এই সিরিজটি করতে গিয়ে কালক্ষেপণ হচ্ছিলো। যেটা আমি আর নিতে পারছিলাম না।’
উজ্জ্বল জানান, ১০ পর্বের এই সিরিজের প্রায় পুরোটাই শেষ করেছেন তিনি। বাকি শুধু প্যাচওয়ার্ক। এরমধ্যে ৯ পর্ব জমাও দিয়েছেন প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান বঙ্গ’র কাছে।  
তাহলে শুধু ১০ ভাগের প্যাচওয়ার্কের জন্য কেন নির্মাতা বদল! কেনই বা সোশ্যাল মিডিয়ায় দুদিন ধরে সংশ্লিষ্টরা শেয়ার করছেন, ‘পাফ ড্যাডি- আ ওয়েব সিরিজ বাই সহিদ উন নবী’! তবে কি নতুন করে পুরো সিরিজ শুট হচ্ছে? নাকি এসবের পেছনে রয়েছে অন্য কোনও রহস্য।
এসব বিষয়ে জানতে চাওয়া হয়েছিলো কলাকুশলীদের কাছে। অনেকেই প্রশ্নটি ‘ফরোয়ার্ড’ করেছেন পরিচালক বা প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান বঙ্গবিডির দিকে।

বিষয়টি নিয়ে সহিদ উন নবী বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘এটা আসলে পুরোপুরি বঙ্গবিডির বিষয়। তাদের অ্যাসাইনে আমি যুক্ত হয়েছি। মাসুদ হাসান উজ্জ্বল ২০-৩০ শতাংশ কাজ করেছেন। যা আসলে সেভাবে কিছু হয়নি। তাই সেখান থেকে কিছু ফুটেজ রেখে বাকি পুরোটাই নির্মাণ আমি করছি।’
নবী জানান, আগে ১০ পর্বের নির্মাণ হওয়ার কথা হলেও এখন তা ৭ পর্বে শেষ করা হবে।
মাসুদ হাসান উজ্জ্বলকিন্তু শুরুতেই তো মাসুদ হাসান উজ্জ্বল বাংলা ট্রিবিউনকে জানালেন, ৯০ ভাগ কাজই শেষ করেছেন। জমা দিয়েছেন নয়টি পর্ব! এদিকে সহিদ উন নবী কথা বলছেন ঠিক উল্টো—কিছুই হয়নি!
এর বিপরীতে উজ্জ্বলের ভাষ্য এমন, ‘আমি যা বলছি কাগজে-কলমে কথা বলছি। আমার কাছে ৯ পর্ব হ্যান্ডওভারের ডকুমেন্টস আছে। শুধু তা-ই নয়, এই কাজের পুরো মেধাস্বত্ব আমার। আমি ছাড়া, এর কোনও অস্তিত্ব নেই। বাকিটা সময় বলে দেবে।’

কিন্তু যেটুকু করেছেন, সেটুকুও তো কিছু হয়নি—বলছিলেন নবী। জবাবে উজ্জ্বল স্থিরকণ্ঠে এটুকুই বললেন, ‘এসব মেধাহীনদের কাছ থেকে ভব্যতা আশা করার কোনও মানে হয় না। আমি তো যার-তার সঙ্গে বিতর্কে জড়াতে পারি না। তাই আর বাড়ালাম না।’
এই সিরিজের নাম ভূমিকায় অভিনয় করছেন আজাদ আবুল কালাম। আর পরীমনিকে দেখা যাবে ‘টিনা’ নামের এক চিত্রনায়িকার চরিত্রে।
পুরনো তথ্য হিসেবে এতে আরও অভিনয় করছেন পীযূষ বন্দ্যোপাধ্যায়, শহীদুজ্জামান সেলিম, বিজরী বরকতুল্লাহ, ইন্তেখাব দিনার, মৌটুসী বিশ্বাসসহ মোট ৬২ জন অভিনয়শিল্পী।
সিরিজটি সম্পর্কে এর চিত্রনাট্যকার ও পরিচালক মাসুদ হাসান উজ্জ্বল গেলো বছর বলেছিলেন, ‘এটি পলিটিক্যাল থ্রিলার ঘরানার কাজ। তবে পলিটিক্স এখানে সরাসরি থাকছে না। আছে প্রচ্ছন্নভাবে। ক্ষমতা, আসক্তিসহ বিভিন্ন থ্রিলিং উপাদান রয়েছে এতে।’
এই পর্যায়ের শুটিংয়ে পরীমনি ও সহিদ উন নবীঅন্যদিকে কাজটি করা প্রসঙ্গে একই সময়ে পরীমনি তখন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেছিলেন, ‘আসলে আমার কাছে ওয়েব সিরিজ মানে স্মার্ট ডিল। যেটা হয়তো সবাই আদায় করতে পারে না। এরপর হঠাৎ মাসুদ হাসান উজ্জ্বলের অফারটি পাই। প্রোগ্রাম করে আমাদের বসা হয়। কথা হয় সিরিজ নিয়ে। মাসুদ হাসান উজ্জ্বলকে আমার কাছে গুড টিচার বলে মনে হয়েছে।’

/এম/এমএম/এমওএফ/

লাইভ

টপ