ডয়চে ভেলের টকশো ‌‘খালেদ মুহিউদ্দীন জানতে চায়’

Send
বিনোদন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৪:০৭, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৪:৫০, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২০

সংবাদ সম্মেলনে অতিথিরা জার্মানির পাবলিক ইন্টারন্যাশনাল ব্রডকাস্টার ‘ডয়চে ভেলে’ থেকে শুরু হতে যাচ্ছে ইউটিউবভিত্তিক লাইভ টকশো।
অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করবেন প্রতিষ্ঠানটির বাংলা টিমের প্রধান খালেদ মুহিউদ্দীন। আর টকশোটির নাম দেয়া হয়েছে ‘খালেদ মুহিউদ্দীন জানতে চায়’। এটি মূলত দেশের রাজনীতি, অর্থনীতি, রাষ্ট্র ও সমাজের বিভিন্ন সমস্যার ওপর ভিত্তি করে পরিচালিত হবে।
বুধবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় প্রেসক্লাবের আব্দুস সালাম হলে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান সাংবাদিক খালেদ মুহিউদ্দীন নিজেই।
সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘আমি নিজেকে সাংবাদিকই মনে করি। আমার পক্ষে কোনও প্রশ্নের উত্তর দেওয়াটা একটু কঠিন। কিন্তু প্রশ্ন আমি করতে চাই। প্রশ্ন করাটা আমার পছন্দের জায়গা। ডয়েচে ভেলেতে এ অনুষ্ঠানটি আগে কখনও হয়নি, এটা একদমই নতুন। আমরা ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে প্রতি শুক্রবার এই লাইভ টকশো করবো।’
আরও বলেন, ‘জার্মানির বন-এ প্রতিষ্ঠানটির সদর দফতরের স্টুডিও থেকে সরাসরি সঞ্চালনা করবো অনুষ্ঠানটি। প্রথমে আমরা ঢাকা থেকে অতিথিদের সম্পৃক্ত করবো এবং পরবর্তীতে পুরো পৃথিবীর যেকোনও প্রান্ত থেকে সম্পৃক্ত করার ব্যবস্থা করবো। এটাকে সফল করতে হলে সবার সহযোগিতা দরকার। যত বেশি মানুষ এই অনুষ্ঠানটি দেখবেন, মূল্যায়ন করবেন- ততো বেশি সফলতা আসবে।’
ডয়চে ভেলের এশিয়ার প্রধান দেবারতি গুহ বলেন, ‘‘আমাদের বর্তমানে যে ইউটিউব চ্যানেল আছে সেখানে সাধারণত বিজ্ঞানভিত্তিক অনুষ্ঠানগুলো দিয়ে থাকি। কিন্তু এবার আমরা আনছি একটি নতুন ইউটিউব চ্যানেল। যেখানে ‘খালেদ মুহিউদ্দীন জানতে চায়’ অনুষ্ঠানটি প্রচার করবো। ডয়চে ভেলে আছে মানবাধিকার এবং বাক-স্বাধীনতার পাশে। বিশেষ করে বর্তমান এই সময়ে শুধু দক্ষিণ এশিয়া নয়, ইউরোপের বিভিন্ন দেশে উগ্রপন্থী মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে, বাক-স্বাধীনতা হস্তক্ষেপ করছে যত্রতত্র। এই সময়ে ডয়চে ভেলের ডিজিটাল এবং সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আমরা মানুষের আরও কাছে যেতে চাই।’’
জার্মান এমবাসির পলিটিকাল এটাশে ইনসে দরশাখ বর্গ বলেন, ‘সংবাদ ও একাডেমিক কার্যক্রমের জন্য ডয়েচে ভেলেকে ধন্যবাদ। তারা যে কাজটি করছে, আশা করি এটা অসাধারণ অনুষ্ঠান হতে যাচ্ছে। আমি অবশ্যই প্রথম পর্বটি দেখব।’
সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন ডয়চে ভেলের বাংলাদেশ প্রতিনিধি হারুন উর রশীদ স্বপন প্রমুখ।
ছবি: সাজ্জাদ হোসেন

/এইচএন/এমএম/

লাইভ

টপ