অর্ণবের পুরনো সুরের ওপর অমিতাভ রেজার নতুন গান (ভিডিও)

Send
বিনোদন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৮:৩৩, মে ০৯, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০০:৩৮, মে ১০, ২০২০

অর্ণব, চঞ্চল চৌধুরী ও অমিতাভ রেজাজনপ্রিয় সিনেমা ‘আয়নাবাজি’র সূত্র ধরে তৈরি হচ্ছে বিশেষ ওয়েব সিরিজ ‘ঘরে বসে আয়নাবাজি’। এ খবর সবারই জানা। নতুন খবর হলো, এই সিরিজে ব্যবহার হচ্ছে বিশেষ একটি গান। যেটি তৈরি হলো অর্ণবের পুরনো সুরের রেশ ধরে। 

অর্ণবের গাওয়া ও সুরে ‘আয়নাবাজি’ সিনেমায় ‘এই শহর আমার’ শিরোনামে একটি গান ছিল। সিরিজে ব্যবহার করার জন্য সেই পুরনো সুরের ওপর নতুন কথা বসিয়েছেন নির্মাতা অমিতাভ রেজা নিজেই। আর কণ্ঠ দিয়েছেন তারই নির্মাণ সহকারী সিবাত তাজওয়ার।

অমিতাভ রেজা বলেন, ‘আমরা পুরনো গানটির সুরের জনপ্রিয়তা এখানেও কাজে লাগাতে চেয়েছি। কিন্তু চলমান করোনাকালের পরিস্থিতির কারণে কথাগুলো বদলে ফেলতে হয়েছে। গানটি গাওয়ার বিষয়ে আমরা প্রফেশনাল কাউকে বিরক্ত করতে চাইনি এখন। কারণ, সেই সুযোগ ও সময়টাও নেই। ফলে আমার সহকারীকে দিয়ে কণ্ঠ দিয়েছি। সবচেয়ে বড় কথা হলো, এই গানটি এখন সবার জন্য উন্মুক্ত। যে কেউ কভার করতে পারবেন এটি। কারণ, এটা আশা জাগানিয়া গান।’ 
শনিবার (৯ মে) বেসরকারি সংস্থা ব্র্যাক ও ‘আয়নাবাজি’র ফেসবুক পেইজে প্রকাশিত ‘এই শহর আমার’ শিরোনামের নতুন গানটির বক্তব্য এমন—একদিন সব আবার ঠিক হয়ে যাবে। গানটির দৃশ্যজুড়ে উঠে এসেছে ঢাকা শহরের করোনাকালের চোখজুড়ানো সব চিত্র।
এর আগে প্রকাশিত টিজারে দেখা যায়, অমিতাভ রেজা ‘আয়নাবাজি’র আয়না, হৃদি আর সাবেরকে সঙ্গে নিয়ে শুটিং করছেন। এটি দেখার পর সিরিজটি নিয়ে কৌতূহল সৃষ্টি হয়েছে দর্শকমনে। সেই কৌতূহলের পালে নতুন হাওয়া যুক্ত হলো ‘এই শহর আমার’ প্রকাশের মধ্য দিয়ে।


নাসিফ ফারুকের গল্পে এই সিরিজের তিনটি পর্ব উন্মুক্ত হবে শিগগিরই। করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে এবং সুরক্ষা বজায় রাখতে করণীয় সম্পর্কে সচেতনতা তৈরি করাই এটি নির্মাণের মূল উদ্দেশ্য।


প্রযোজক জিয়াউদ্দিন আদিল বলেন, ‘সংস্কৃতির একটা দায়বদ্ধতা থাকে। করোনার এই সংকটের সময়ে আয়নাবাজি চলচ্চিত্রের দলটি সচেতনতা তৈরির দায়বোধ থেকে এ উদ্যোগ নিয়েছে। এতে যুক্ত হওয়ার জন্য ব্র্যাক এবং অস্ট্রেলিয়ান এইডকে ধন্যবাদ।’
ব্র্যাকের অন্যতম পরিচালক মৌটুসি কবির বলেন, ‘যে সংকটের মধ্য দিয়ে আমরা যাচ্ছি, সেখানে সবচেয়ে বড় প্রয়োজন মানুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি। আয়নাবাজির দর্শকপ্রিয় চরিত্রগুলোর মাধ্যমে আরও সহজ আর পরিচিত উপায়ে জনগণের কাছে মানুষের জন্য জরুরি তথ্য পৌঁছে দেওয়ার জন্য আমাদের এ উদ্যোগ।’
‘ঘরে বসে আয়নাবাজি’ সিরিজে প্রতিটি পর্বের দৈর্ঘ্য হচ্ছে প্রায় ৮ মিনিট। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আয়না কীভাবে প্রতিকূলতাকে জয় করে আর সেখানে প্রতিবেশী এবং নিকটজনেরা কীভাবে সাহায্য করতে এগিয়ে এসেছে, সেটাই এই সিরিজে প্রকাশিত হবে।

এখানেও আয়না চরিত্রে চঞ্চল চৌধুরীর রহস্যময় অভিনয় মানুষকে মুগ্ধ করবে বলে প্রত্যাশা করেন সংশ্লিষ্টরা।

/এমএম/এমওএফ/

লাইভ

টপ