জন্মদিন থেকে শিক্ষকের ভূমিকায় দীপংকর দীপন

Send
মাহমুদ মানজুর
প্রকাশিত : ০০:১০, মে ২২, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৫:০৫, মে ২২, ২০২০

দীপংকর দীপন

শিরোনামটা কনফিউজিং হচ্ছে! কিন্তু এর বিকল্পও নেই। তবে বিস্তারিত গেলে পরিষ্কার হবে নিশ্চয়ই

আজ (২২ মে) ‘ঢাকা অ্যাটাক’-খ্যাত নির্মাতা দীপংকর দীপনের জন্মদিন। কততম, সে আলাপ পরে। তার আগে নতুন খবর হলো, এদিন থেকে এই অ্যাকটিভ নির্মাতা শুরু করছেন শিক্ষকতা। অন্তর্জাল ইশকুলে তিনি আগ্রহীদের শেখাবেন অনস্ক্রিন বা পর্দায় কেমন করে অভিনয় করতে হয়। আর এটি শুরুর দিন হিসেবে তিনি বেছে নিয়েছেন নিজের জন্মদিনটিকে।
তার ভাষায়, ‘জন্মদিন মানেই আমার কাছে বিশেষ। তবে এবারের দিনটি আরও বিশেষ হয়ে ধরা দিচ্ছে। কারণ, বহুদিনের লালিত পরিকল্পনার বাস্তবায়ন ঘটবে আজই।’
কিন্তু কততম জন্মদিনে পা ফেলছেন এই নির্মাতা? জবাবে দারুণ চতুরতা, ‘১৫। না না। এটা আমার ১৯তম। কারণ, ১৮-এর নিচে গেলে তো নাবালক বলবে সবাই। আমি মনে করি এটা আমার নাবালক থেকে সাবালক হওয়ার বছর!’
কিন্তু একগাদা সিনেমার পরিকল্পনা মাথায় রেখে, একাধিক ছবির শুটিং স্থগিত রেখে হঠাৎ অভিনয় শেখানোর শিক্ষকতাকে বেছে নেওয়ার কারণ কী জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে নাটক ও নাট্যতত্ত্বে পড়ুয়া এই নির্মাতার! নিজের খেয়ে বনের মোষ তাড়ানোর মতো ঘটনা নয় কি!
দীপন তার সিদ্ধান্তে আত্মবিশ্বাসী। প্রশ্নকর্তার নেতিবাচক প্রতিক্রিয়াকে লাই না দিয়ে বললেন একটানে, ‘‘দেখুন বাংলায় ‘স্ক্রিন অ্যাকটিং’ নিয়ে কোনও টিউটোরিয়াল নেই। সেই অভাব মেটাবার লক্ষ্যে অনেক দিন ধরেই ‘মেথড অ্যাকটিং ও চলচ্চিত্র অভিনয়ের সহজ পাঠ’ শিরোনামের একটি বই লিখছি আমি। বলতে পারেন সেই লেখারই চুম্বক অংশ তুলে ধরতে চাই ভিজ্যুয়ালি।’’
উদাহরণ টেনে যুক্ত করেন, ‘টিভি-সিনেমায় কাজ করতে গিয়ে মনে হয়েছে, অনেক নতুন অভিনেতা-অভিনেত্রী আছেন যারা আসলে অভিনয়টা শিখতে চায়। শেখাটা দরকারও। এমনকি অনেক প্রতিষ্ঠিত শিল্পীকেও আমি ভুল উচ্চারণে সংলাপ বলতে দেখেছি। বারবার যেটা আমার মনোবেদনার কারণ হয়েছে। মনে হয়েছে, এসব শেখানোর, ধরিয়ে দেওয়ার বুঝি কেউ নেই, কিছু নেই! সেখান থেকেই এই উদ্যোগ।’
না, এই নতুন শিক্ষকতার মোড়কে দীপংকর দীপন নিজের অর্থনৈতিক মুক্তির কথা ভাবছেন না মোটেও। তিনি চাইছেন, নিজের জানার পরিধিটা খানিক ছড়িয়ে দিতে। তার মতে, এর জন্য মোক্ষম সময় এখনই- গৃহবন্দি করোনাকাল। যা শুরুর জন্য শুভদিন হিসেবে বেছে নিয়েছেন নিজের জন্মদিনটিকে।
দীপংকর জানান, আজ (২২ মে) রাত সাড়ে ১০টায় ‘ব্যাক এন্ড’ নামের নতুন ইউটিউব চ্যানেল থেকে প্রথম টিউটোরিয়াল ভিডিওটি উন্মুক্ত করবেন। দৈর্ঘ্য থাকবে ২০ মিনিটের মতো। আর সপ্তাহে প্রকাশ হবে একটি করে ভিডিও। যেগুলো তৈরির কাজেই এখন রাত-দিন এক করে ফেলেছেন এই নির্মাতা।
তিনি নিশ্চিত, এই ভিডিওগুলো ভাইরাল হবে না। শেয়ার, কমেন্ট, লাইকের সংখ্যাও থাকবে হাতেগোনা। প্রশংসা কিছু এলেও বিপরীতে থাকবে সমালোচনাও! তবু তিনি শতভাগ ভালোবাসা নিয়েই অভিনয় শেখানোর এই শিক্ষকতাটুকু করতে চান।
বললেন, ‘আমি জানি এটা জনপ্রিয় কোনও বিষয় না। ধুমধাম প্রচুর লাইক পড়বে না। রাতারাতি সাবস্ক্রিপশন বাড়বে না আমার চ্যানেলের। কিন্তু যারা পর্দার জন্য অভিনয় শিখতে চান, তাদের জন্য এই ভিডিওগুলো কাজে আসবে। তাদের ভালোবাসাটুকুই আমার জন্য যথেষ্ট।’
দীপন জানান, অন্তর্জালে তার এই ক্লাসগুলো হবে একেবারে ডিটেইল। বিভিন্ন সিনেমার ফুটেজ ধরে ধরে তিনি বিশ্লেষণ করবেন এই টিউটোরিয়ালে। কিন্তু এই গৃহবন্দি সময় ফুরালে ইশকুলটার কী হবে! নিজের শুটিং নিয়ে ঢাকা-সুন্দরবন ছুটবেন নাকি ঘরে বসে টিউটোরিয়াল গোছাবেন?

টিউটোরিয়ালের দৃশ্যে স্থান পাবে বিখ্যাত সব ছবির ফুটেজদীপন জানান, ইশকুলটি তিনি আর বন্ধ করছেন না। এটা চলবে। এর জন্য, চলতি সময়ে তিনি প্রচুর খাটছেন। সব স্বাভাবিক হওয়ার আগেই বেশক’টি পর্ব তৈরি করে রাখছেন। যেগুলো সপ্তাহে একটি করে বছরব্যাপী উন্মুক্ত করা সম্ভব।

তার ভাষায়, ‘দেখুন আগ্রহটাই বড় কথা। এই ইশকুলটি কনটিনিউ করতে চাইলে সুন্দরবনের বাঘের সামনে বসেও সম্ভব! না চাইলে, ঘরে শুয়ে-বসে সিনেমা দেখেও দারুণ সময় কাটানো সম্ভব। এটা আসলে নির্ভর করে আগ্রহের ওপর। জন্মদিন বলে বলছি না, আমি নিজেকে নিয়ে জন্ম থেকেই আত্মবিশ্বাসী!’
এদিকে ‘ব্রাক এন্ড’ নামের নতুন এই অন্তর্জাল ইশকুলের কাজ গোছানোর পাশাপাশি দীপংকর দীপনকে ভাবতে হচ্ছে স্থগিত হওয়া তার একাধিক সিনেমার প্রজেক্ট নিয়েও। যার প্রতিটিই বড় বাজেটের এবং স্পর্শকাতরও বটে। শুটিংয়ের শেষ পথে স্থগিত হওয়া তার দুটি সিনেমার একটি ‘অপারেশন সুন্দরবন’। যেটির শুটিং বাকি মাত্র ৪ দিনের। অন্যদিকে ‘ঢাকা ২০৪০’ ছবিটির জন্য সময় বরাদ্দ ছিল গেল ১৫ এপ্রিল থেকে। পরিকল্পনা পর্যায়ে রয়েছে আরও চারটি ছবি। এসব নিয়ে দুশ্চিন্তার কারণ নিশ্চয়ই রয়েছে।
দীপন বললেন, ‘পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে দুটো ছবির কাজ অল্প সময়ের মধ্যে শেষ করে ফেলতে পারবো। অপেক্ষা এখন সিনেমার জন্য নয়, ভালো একটা পরিস্থিতির। আমরা আবারও স্বাভাবিক পৃথিবীতে প্রাণভরে নিশ্বাস নিতে চাই। এটাই প্রথম প্রত্যাশা।’
শুভ জন্মদিন, দীপংকর দীপন। ভালোয় কাটুক আপনার সাবালক সময়।

/এমএম/এমওএফ/

লাইভ

টপ