চিঠি দিয়েই ১৯ সংগঠনের মঞ্চে মিশা

Send
বিনোদন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৬:৪১, আগস্ট ১৫, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০২:০৮, আগস্ট ১৬, ২০২০

হঠাৎই মঞ্চে মিশানানা আয়োজনে বিএফডিসিতে পালন করা হলো বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম প্রয়াণবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস। এতে সকালে চলচ্চিত্রের ১৯টি সংগঠনের ব্যানারে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

বেলা ১১টা থেকে বিএফডিসির জহির রায়হান কালার ল্যাবের সামনে শুরু হয় ১৯ সংগঠনের পক্ষ থেকে আলোচনা সভা। তবে সেখানে অনেকটা চমকের মতোই হাজির হয়েছেন ১৯ সংগঠন থেকে ‘অবাঞ্ছিত’ হওয়া বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর।

ছিলেন চিত্রনায়ক শাকিব খান, নায়ক রিয়াজ, ওমর সানী, অনন্ত জলিল, সাইমন সাদিক, নায়িকা নূতন, রোজিনা, মৌসুমী, নিপুণ ও অপু বিশ্বাসের মতো শিল্পীরা । প্রযোজক সমিতির সভাপতি খোরশেদ আলম খসরু, সাধারণ সম্পাদক শামসুল আলম ও ১৯ সংগঠনের নেতারাও উপস্থিত ছিলেন। সঞ্চালনায় ছিলেন বাংলাদেশ পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার।

মঞ্চে মিশার উপস্থিতি সবার নজর কাড়ে। এ সময় সবার সঙ্গে হাসিমুখে কথা বলেন তিনি।

মিশা সওদাগর বলেন, ‘এখানে যারা হাজির তারা তো সবাই আমার ভাই। অনেকে আছে আমার ছেলের মতোও। এফডিসির সিনেমায় আমি অভিনয় করে মিশা সওগাদার হয়েছি। এই এফডিসিই আমারই ঘরবাড়ি। এই এফডিসি হচ্ছে বঙ্গবন্ধুর তৈরি। এখানে বঙ্গবন্ধুর শোক দিবসের আয়োজনে আমি থাকবো না, এটা তো ভাবাই যায় না। বঙ্গবন্ধুর এফডিসিতে আমরা সবাই একসঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করবো। আমাদের মধ্যে যে ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে আশা করি সেটা শিগগিরই সমাধান হয়ে যাবে।’

তবে কি ১৮ সংগঠনের সঙ্গে মিশার ঝামেলা মিটে গেল- অনুষ্ঠান শেষে এমন প্রশ্নটি করা হয় বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক পরিবেশক সমিতির সভাপতি খোরশেদ আলম খসরুর কাছে। তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আসলে আমরা দয়ার্দ্র জাতি। শত্রুও যখন বাড়ির দরজায় পা দেয় আমরা দরজা খুলে দেই। আর মিশা সওদাগর তিন দিন আগে আমাদের কাছে চিঠি দিয়েছেন। সেখানে তিনি দুঃখ প্রকাশ করে বলেছেন, ১৯ সংগঠনের দেওয়া চলচ্চিত্র নির্মাণ নীতিমালা তিনি বিনা শর্তে মানতে রাজি। এবং আমাদের সঙ্গে থাকতে চান। আমরা তার চিঠিটি নিয়ে দ্রুতই বসব। সবার কাছে গ্রহণযোগ্য হলে সমস্যা নাই। তবে জায়েদ খান ছাড় পাবেন না।’মঞ্চে শিল্পীরা

যদি জায়েদ খান একই ধরনের চিঠি দেন তাহলে আপনারা কী করবেন- এমন জিজ্ঞাসায় খসরু বলেন, ‘হয়তো তার চিঠি নিয়েও আমাদের বসতে হবে। তবে জায়েদের বিষয়টি আলাদা।’

এর আগে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর ও সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানকে বয়কট করে চলচ্চিত্র পরিবারের আওতায় থাকা ১৮টি সংগঠন। চলচ্চিত্রের স্বার্থেই তাদের বয়কট করা হয় বলে এর আগে সংবাদ সম্মেলন করে জানায় সংগঠনগুলোর নেতারা। জুলাই মাসে মাঝামাঝি করা সেই সম্মেলনে বলা হয়, আগামীতে ১৮ সংগঠনের কোন সদস্য মিশা জায়েদের সঙ্গে কোন কাজ করতে পারবে না। করলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। শিল্পী সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে মিশা-জায়েদের পদত্যাগ না করা পর্যন্ত আলোচনায়ও বসা হবে না। পরবর্তী সময়ে আরও একটি সংগঠন বিএফডিসিতে তৈরি হওয়ায় এখন সংগঠনের সংখ্যা ১৯টি।সাইমন, রিয়াজ, অপু ও নিপুণ

/এম/

লাইভ

টপ
X