এবার বাজেয়াপ্ত হলো তাদের ক্রেডিট কার্ড

Send
বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত : ২০:৫৪, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:৫৬, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২০

দীপিকা, সারা, রাকুল ও শ্রদ্ধা২৬ সেপ্টেম্বর টানা পাঁচ ঘণ্টা জেরার পর বলিউড অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোনের মুঠোফোন জব্দ করে ভারতের নার্কোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি)। রেখে দেওয়া হয় শ্রদ্ধা কাপুর, সারা আলি খান ও রাকুল প্রীত সিংহের ফোনও।

এবার বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে তাদের ক্রেডিট কার্ড। পাশাপাশি খতিয়ে দেখা হচ্ছে তারকাদের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট স্টেটমেন্টও। ইতোমধ্যেই তাদের ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে টাকার লেনদেনের খোঁজ নেওয়া হয়েছে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানাচ্ছে, মূলত মাদক বিক্রেতার সঙ্গে আর্থিক কোনও লেনদেন হয়েছে কিনা, তা দেখার জন্যই এই রাস্তা বেছে নিয়েছে এনসিবি।

এদিকে এনসিবির প্রধান রাকেশ আস্থানা দিল্লি থেকে মুম্বাই চলে এসেছেন। দফায় দফায় তাদের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকও সেরেছেন। পাশাপাশি যাদের জেরা করা হয়েছে, তাদের এখনই ‘অপরাধী’ তকমা না দেওয়ার নির্দেশ জারি করেছেন।
অন্যদিকে গ্রেফতারের তালিকা বাড়ছে। করণ জোহরের ডান হাত হিসেবে পরিচিত ধর্ম প্রডাকশনের অন্যতম প্রযোজক ক্ষিতিজ রবি প্রসাদকে জিজ্ঞাসাবাদের পর ২৬ সেপ্টেম্বর গ্রেফতার করেছে এনসিবি।
তাই অনেকে মনে করছেন, স্মরণকালে কাঁপুনি ধরানো এমন সময় আগে দেখেনি বলিউড।
জানা যায়, সেদিন দু’দফায় দীপিকার সঙ্গে কথা বলেছে এনসিবি। তার প্রাক্তন ম্যানেজার কারিশমা প্রকাশকে দীপিকার মুখোমুখিও করা হয়েছিল। জেরার সময় তিনবার কান্নায় ভেঙে পড়েছিলেন দীপিকা। আর তাতে তদন্ত কর্তাদের কাছ থেকে কড়া ভাষা শুনেছেন তিনি।

জানা যায়, ২০১৭ সালের বিতর্কিত হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটের কথা স্বীকার করেছেন দীপিকা। তবে তিনি জানিয়েছেন, নিজে মাদক নেননি এবং হোয়াটসঅ্যাপে ‘মাল হ্যায় ক্যা’ বলে তিনি যে বার্তা পাঠিয়েছিলেন, সেটা মাদক নিয়ে নয়।
এছাড়া শ্রদ্ধা, সারা ও রাকুলও মাদকের কথা অস্বীকার করেছেন।

উল্লেখ্য, গত ১৪ জুন মুম্বাইয়ের নিজ অ্যাপার্টমেন্টে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায় বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতকে। এরপরই ওঠে ঝড়। পরিবার থেকে দাবি করা হয়, তাকে হত্যা করা হয়েছে। অনেকে বলেন, তাকে আত্মহত্যায় বাধ্য করা হয়েছে।
সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু তদন্তে একযোগে কাজ করছে সিবিআই, ইডি ও এনসিবি। এতেই খোঁজ পাওয়া যায় মাদক সংশ্লিষ্টতার। সুশান্তের বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তী ও তার ভাইকে মাদকের অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়। সুশান্তের ম্যানেজার জয়া সাহাকে জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে আসে মাদক মাফিয়াদের নাম। একের পর এক নাম আসতে থাকে বলিউড তারকাদের। প্রায় ৫০ জনের মতো বলিউড সংশ্লিষ্টদের নাম এখন এনসিবির হাতে।

সূত্র: ইয়াহু, জি-নিউজ

/এম/

লাইভ

টপ