২০ ঘণ্টা পর বক্তব্য বদলালেন অনন্ত (ভিডিও)

Send
বিনোদন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৮:৪৫, অক্টোবর ১১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:৫১, অক্টোবর ১১, ২০২০

ধর্ষণ নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যের পর পরোক্ষভাবে ক্ষমা চাইলেন আলোচিত-সমালোচিত চিত্রনায়ক অনন্ত জলিল। প্রত্যাহার করে নিলেন প্রকাশিত ভিডিও থেকে পুরনো বক্তব্য।
গতকাল (১০ অক্টোবর) রাত ৯টার দিকে ধর্ষক ও ধর্ষিত নারীদের উদ্দেশ করে নিজের ফেসবুক পেজে বক্তব্য দিয়ে একটি ভিডিও প্রকাশ করেন এই তারকা। সেখানে ধর্ষণের কারণ হিসেবে উল্লেখ করেন নারীদের অশালীন পোশাক!
তার মতে, ধর্ষকরা অশালীন পোশাক দেখে উদ্বুদ্ধ হয়।
এই বক্তব্য প্রকাশের পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তার বিরুদ্ধে সোচ্চার হন তারকাসহ সাধারণ মানুষ। অনেকটা প্রতিবাদের মুখে ভিডিও থেকে নারীদের উদ্দেশে বলা অংশটুকু কেটে বাকি ভিডিওটি পুনরায় পোস্ট করেন অনন্ত। আগের ভিডিওটি মুছে ফেলেন। পাশাপাশি নতুনটির ক্যাপশনে ক্ষমা চেয়ে লেখেন, ‌‘সাম্প্রতিক সময়ে দেশে ধর্ষণ, বিশেষ করে শিশু ধর্ষণ ও ধর্ষণ-পরবর্তী হত্যার মতো ঘৃণ্য অপরাধ বেড়েই চলেছে। এই অপরাধের সঙ্গে জড়িত অপরাধীর দ্রুততম সময়ে বিচার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করার বিকল্প কিছু নেই। আমরা চাই, নারী-পুরুষের সৌহার্দ্যপূর্ণ সমঝোতামূলক সম্পর্ক, শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার সম্পর্ক। গতকালের (১০ অক্টোবর) ভিডিওতে আমি মূলত মেয়েদেরকে শালীনতা বজায় রাখার জন্য বলতে চেয়েছি।’
এই নায়ক-প্রযোজক আরও বলেন, ‘অনেকেই বিষয়টিকে পজিটিভভাবে নিয়েছেন আবার অনেকেই নেগেটিভভাবে নিয়েছেন। আমি কোনও বিতর্কে জড়াতে চাই না। তাই আমি উক্ত বিষয়টি কারেকশন করে দিলাম। কেউ ভুল বুঝে থাকলে ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন।’
গতকাল প্রকাশিত বিতর্কিত ভিডিওটিতে অনন্ত জলিল ধর্ষকদের উদ্দেশে বলেন, ‘যারা ধর্ষণ করছো, তোমরা অমানুষ। তোমাদের তুই করে বলা উচিত। তোমাদের স্ত্রী কন্যাকে কেউ যদি ধর্ষণ করে কেমন লাগবে তোমাদের? তোমার হয়তো ভালোই লাগবে, না হলে অন্যের মা-বোনকে তো রেপ করতে পারতে না।’
সংশোধিত ভিডিও বার্তা:

এরপর মেয়েদের উদ্দেশে কথা বলেন অনন্ত। বলেন, ‌‘একজন ভাই হিসেবে তোমাদের কিছু কথা বলতে চাই। তোমরা যারা সিনেমা, টেলিভিশন দেখে তাদের মতো অশালীন কাপড় পরে বের হও, নিজেকে খুব মডার্ন ভাবো? এইসব ড্রেস-আপ দেখে চেহারার দিকে না তাকিয়ে বখাটেরা তোমার ফিগারের দিকে তাকায়, এরপর বিভিন্ন মন্তব্য করে, এবং রেইপ করার চিন্তা তাদের মাথায় আসে। এটা কি মডার্ন ড্রেস? না, অশালীন ড্রেস। এটা মডার্ন ড্রেস হতে পারে না। মডার্ন ড্রেস হবে যেখানে ফেস দেখা যাবে, যেটা আল্লাহতায়ালা দিয়েছেন। কিন্তু যে বডিটা আছে সেখানে শালীনভাবে পোশাক পরতে হবে। নিজেকে পাশের একজন ভদ্র মেয়ের কাছে জিজ্ঞাসা করে দেখো, তোমাকে কত বাজে লাগে দেখতে।’
এমনকি নারীদের টিশার্ট পরার কারণে ‘ইজ্জত শেষ’ হয়ে যায় বলেও মন্তব্য করেন এই পোশাক ব্যবসায়ী।

/এম/এমএম/এমওএফ/

লাইভ

টপ