X
শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২
১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

পশ্চিমবঙ্গকে ‘বঞ্চনা’ নিয়ে তৃণমূল-বিজেপির বাগযুদ্ধ

রক্তিম দাশ, কলকাতা
২১ জুলাই ২০২২, ২১:৪৭আপডেট : ২১ জুলাই ২০২২, ২২:৪০

অর্থনৈতিকভাবে মোদি সরকার পশ্চিমবঙ্গকে বঞ্চনা করছে, এমন দাবি আগেও জানিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে ২১ জুলাই-এর মঞ্চ থেকে এবার সরাসরি দিল্লি গিয়ে আন্দোলনের ডাক দিলেন তৃণমূল নেত্রী। ১০০ দিনের কাজের টাকা দেওয়া হচ্ছে না বলে সরব হন তিনি। দরিদ্র মানুষের টাকা কেন আটকে দেওয়া হচ্ছে, সেই প্রশ্ন ছুড়ে দিয়ে মমতা বলেছেন, বাংলা থেকে দিল্লি যাবেন এর প্রতিবাদ জানাতে। প্রয়োজনে ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখানো হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি। নেত্রীর প্রশ্ন, ‘বাংলা এমন কী করেছে, যে অর্থনৈতিক বাধা দিচ্ছে কেন্দ্র?’

বৃহস্পতিবার ধর্মতার মঞ্চ থেকে মমতা ফের বলেন, ১০০ দিনের কাজের টাকা বন্ধ করে দিয়েছে। গরীব মানুষ, যারা কাজ করেন, তাদের সাত মাস টাকা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। অবিলম্বে সেই টাকার আর্জি জানিয়েছেন তিনি। সেই সঙ্গে কেন্দ্রকে হুঁশিয়ারি দিয়ে মমতা দাবি করেন, অর্থনৈতিকভাবে বাধা দিয়ে বাংলাকে আটকে রাখা যাবে না। প্রয়োজনে দিল্লি গিয়ে ঘেরাও করা হবে।

মমতা কেন্দ্রকে তোপ দেগে বলেন, ভোট দিইনি বলে খাবার দেবেন না? মনে রাখবেন, সব রাজনৈতিক দল আপনাদের ভয় পায়, কিন্তু আমরা পাই না। শুধু ১০০ দিনের কাজ নয়, বাংলায় আবাস যোজনা, রাস্তা তৈরির কাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ করেছেন মমতা।

একুশের মঞ্চে থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তোপের পাল্টা সুকান্ত মজুমদার মুখ্যমন্ত্রীকে মিথ্যাভাষণ বন্ধ করার কড়া বার্তা দিলেন। বৃহস্পতিবার এই প্রসঙ্গে সাংবাদিক বৈঠকে বিজেপি রাজ্য সভাপতি বলেন, ‘কেন্দ্র টাকা পাঠাবে, সেই টাকা চুরি হবে এমনটি চলতে পারে না। কেন্দ্রের টাকা নিলে যে প্রকল্পের যা নাম তাই দিতে হবে। দ্বিচারিতা বন্ধ করুন। প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা এর মধ্যে কোন শব্দটা বাংলা নয়। কেন্দ্র টাকা পাঠায়, রাজ্য সরকার হিসেবে দিতে পারেনি।’

এরপর তিনি বলেন, ‘উনি দিল্লি আসতেই পারেন ওটাতো পশ্চিমবঙ্গ নয় যে তাকে কেউ ইট-পাটকেল মারবে। আমরাও তৃণমূলের পঞ্চায়েত প্রধান আর তাদের বাড়ির ছবি নিয়ে গ্রামে গ্রামে ঘুরে প্রচার করবো কেন্দ্রের পাঠানো টাকা পঞ্চায়েত প্রধানের বাড়ি ঘেরাও করে উদ্ধার করুন।’

একুশের মঞ্চে থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, চব্বিশে মানুষ বড়লোক প্রধানমন্ত্রী চায় না। গরীবের প্রধানমন্ত্রী চায়। এই মন্তব্যের জবাব দিয়ছেন বালুরঘাটের বিজেপি সাংসদ। তিনি বলেন, ‘মুখ্যমন্ত্রীর পরিবারের সম্পতির হিসাব দেখলেই বোঝা যায় উনি কতো গরীব। ৭০ সালের কাছাকাছি রাজনীতিতে এসেছেন মমতা। আর এখন তার পরিবার বিপুল সম্পত্তির মালিক। ফলে বোঝাই যাচ্ছে কীভাবে কী হচ্ছে। তবে প্রধানমন্ত্রী গরীবের প্রধানমন্ত্রী বলেই ৮০  কোটি মানুষকে ফ্রিতে রেশন দিয়েছেন। এমনকি ফ্রিতে বুস্টার ডোজ দেওয়া হচ্ছে। অর্থনীতিবিদদের নিষেধ উপেক্ষা করেই পেট্রোল-ডিজেলের দাম দুবার কমানো হয়েছে। শুধু সাধারণ মানুষের কথা ভেবে।’ সুকান্তের মতে, গরীবের সরকার নরেন্দ্র মোদি সরকার।

মুখ্যমন্ত্রী দাবি করেছেন, বিজেপি পশ্চিমবঙ্গের সরকার ভাঙতে চাইলেও পারবে না। সুকান্ত এর উত্তরে বলেন, ‘বিজেপি কোনও সরকার ভাঙে না। রাজ্যের সরকার নিজেরাই ভাঙবে। হরিশ চ্যাটার্জী স্ট্রিট আর হরিশ ব্যানার্জী স্ট্রিটের মধ্যে ভাগ হয়ে গেছে। ছাব্বিশ পর্যন্ত এই সরকার টিকবে না আগেই তো বলেছি।’

তার ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য, মমতা ও অভিষেকের দ্বন্দে যে কোনও সময় ভেঙে যেতে পারে তৃণমূল সরকার।

এদিন মুখ্যমন্ত্রীর তোপ, ‘মুড়িতেও জিএসটি? বিজেপির বন্ধু মুড়ি খাবেন না? মুড়িতে কত জিএসটি? মানুষ খাবে কী? আমাদের মুড়ি ফিরিয়ে দাও, নইলে বিজেপি বিদায় নাও। পরিষ্কার কথা, মুড়ি খেয়ে থাকি।’ এই প্রসঙ্গে সুকান্ত বলেন, “উনি নাটক করা বন্ধ করুন। কোন প্যাকেটজাত দ্রব্য ছাড়া জিএসটি বসানো হয়নি। প্যাকেটজাত নয়, এমন মুড়িতে কোনও জিএসটি বসানো হচ্ছে না। উনি মুড়ি চাইলেন আর বিয়ের তত্ত্ব সাজানো ট্রেতে মুড়ি এসে গেলো? মানুষ এতো বোকা নয়। সব ‘প্ল্যান্টেড’।”

এদিন হাওড়ার ঘুসুড়িতে বিষমদ খেয়ে মৃতদের বাড়ি যান সুকান্ত মজুমদার। তিনি মৃতদের পাশে থাকার আশ্বাস দিয়ে রাজ্য সরকারের কাছে ক্ষতিপূরণের দাবি করেন। সুকান্ত বলেন, ‘মদের টাকা যায় কালীঘাটে। সেই কারণে একের পর এক মদ থেকে মৃত্যু ঘটছে তা সত্বেও প্রশাসন চুপ। পুলিশ সব জেনেও কিছুই করছে না। কারণ পুলিশও কাটমানি পাচ্ছে।’

এরপরই রাজ্যের কাছে মৃতদের পরিবারের জন্য আর্থিক সাহায্যের দাবি করেন সুকান্ত। তিনি বলেন, ‘মদ খেয়ে এতগুলো মানুষ মারা গেলেন, পরিবারগুলো অসহায় হয়ে গেলো। সরকারের অন্তত ১৫ লাখ করে টাকা দেওয়া উচিত।’

/এএ/
পাহাড় থেকে বৃদ্ধের মরদেহ উদ্ধার
পাহাড় থেকে বৃদ্ধের মরদেহ উদ্ধার
সার্বিয়াকে হারিয়ে নকআউটে সুইসরা
সার্বিয়াকে হারিয়ে নকআউটে সুইসরা
ব্রাজিলকে হারিয়ে দিলো ক্যামেরুন
ব্রাজিলকে হারিয়ে দিলো ক্যামেরুন
‘এত উন্নয়ন হয়েছে, প্রবাসীরা দেশে ফিরে নিজের গ্রামই চিনবেন না’
‘এত উন্নয়ন হয়েছে, প্রবাসীরা দেশে ফিরে নিজের গ্রামই চিনবেন না’
সর্বাধিক পঠিত
আঙুলের অপারেশনে শিশুর মৃত্যু, গোসলের সময় দেখা গেলো পুরো পেটে সেলাই
আঙুলের অপারেশনে শিশুর মৃত্যু, গোসলের সময় দেখা গেলো পুরো পেটে সেলাই
শাহবাগে প্রাইভেটকারের ধাক্কায় মৃত্যু দুর্ঘটনা নয়, হত্যাকাণ্ড: রমনা ডিসি
শাহবাগে প্রাইভেটকারের ধাক্কায় মৃত্যু দুর্ঘটনা নয়, হত্যাকাণ্ড: রমনা ডিসি
তারেক রহমানকে ‘বেয়াদব’ বললেন ওবায়দুল কাদের
তারেক রহমানকে ‘বেয়াদব’ বললেন ওবায়দুল কাদের
বিএনপির সমাবেশে খালেদা জিয়ার যোগদান নিয়ে যা বললেন তথ্যমন্ত্রী
বিএনপির সমাবেশে খালেদা জিয়ার যোগদান নিয়ে যা বললেন তথ্যমন্ত্রী
খালেদা জিয়া মুক্ত, জামিন দেওয়ার কী আছে: আইনমন্ত্রী
খালেদা জিয়া মুক্ত, জামিন দেওয়ার কী আছে: আইনমন্ত্রী