সাহস থাকলে ইশতেহারে ৩৭০ ধারা ফিরিয়ে আনার ঘোষণা দিন: বিরোধীদের মোদির চ্যালেঞ্জ

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ২২:১২, অক্টোবর ১৩, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:১৪, অক্টোবর ১৩, ২০১৯

কাশ্মিরের স্বায়ত্তশাসন ও বিশেষ অধিকার বাতিলে কংগ্রেস ও এনসিপির সমালোচনার ঘটনায় পাল্টা আক্রমণ করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। রবিবার তিনি বিরোধীদের উদ্দেশ্যে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে বলেছেন, সাহস থাকলে নির্বাচনি ইশতেহারে ৩৭০ ধারা ফিরিয়ে আনার ঘোষণা দেন। টাইমস অব ইন্ডিয়া এখবর জানিয়েছে।

রবিবার ২১ অক্টোবর মহারাষ্ট্রের বিধানসভা নির্বাচনের পূর্বে প্রথম সমাবেশে ভাষণ দেন মোদি। ভাষণে তিনি বলেন, জম্মু ও কাশ্মির শুধু ভূখণ্ড নয়, ভারতের মুকুট। মোদি জনগণকে আশ্বস্ত করেন, পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে চার মাসের বেশি সময় লাগবে না। অথচ এই পরিস্থিতি ৪০ বছরের বেশি সময় ধরে বিরাজ করছে।

মোদি অভিযোগ করেন, বিরোধিরা ৩৭০ ধারা নিয়ে রাজনীতি করছে এবং প্রতিবেশী দেশের মতো একইভাবে কথা বলছে। ৩৭০ ধারা বাতিলের মতো সিদ্ধান্তকে নিয়ে কংগ্রেস ও এনসিপির রাজনীতিকরণ অপ্রত্যাশিত ও দুঃখজনক। জম্মু-কাশ্মির নিয়ে তারা যে বক্তব্য দিয়েছে তাদের দলের নেতারাই মানেন না।

নরেন্দ্র মোদি আরও বলেন, আমি তাদের চ্যালেঞ্জ দিচ্ছি, যদি সাহস থাকে তাহলে রাজ্য ও ভবিষ্যত নির্বাচনের ইশতেহারে ৩৭০ ধারা ও ৩৫এ ধারা ফিরিয়ে আনার ঘোষণা দেন। যে ধারা বাতিল করেছে মোদির সরকার। পারলে ৫ আগস্টের সিদ্ধান্ত বাতিলের কর্মসূচি দিন।

বিরোধীদের উদ্দেশে মোদি বলেন, কুমিরের কান্না বন্ধ করুন।

উল্লেখ্য, ৫ আগস্ট ভারত অধিকৃত কাশ্মিরের স্বায়ত্তশাসন বাতিল করে অঞ্চলটিকে দুই টুকরো করে দেয় দিল্লি। ওই দিন সকাল থেকে কার্যত অচলাবস্থার মধ্যে নিমজ্জিত হয় দুনিয়ার ভূস্বর্গ খ্যাত কাশ্মির উপত্যকা। এই পদক্ষেপকে কেন্দ্র করে কাশ্মিরজুড়ে মোতায়েন করা হয়েছে বিপুলসংখ্যক অতিরিক্ত সেনা। ঘটনার আগেরদিন থেকে ইন্টারনেট-মোবাইল পরিষেবা বন্ধ রাখা হয়। গ্রেফতার করা হয়েছে সেখানকার বিপুলসংখ্যক স্বাধীনতাপন্থী ও ভারতপন্থী রাজনৈতিক নেতাকে।

/এএ/

সম্পর্কিত

লাইভ

টপ
X