বিক্ষোভে উত্তাল লন্ডন: ‘জনসন আমাদের প্রধানমন্ত্রী নন’

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৭:৫৫, ডিসেম্বর ১৪, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:২৭, ডিসেম্বর ১৪, ২০১৯

যুক্তরাজ্যের সাধারণ নির্বাচনের ফল প্রত্যাখ্যান করে লন্ডনে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের বিরুদ্ধে ব্যাপক বিক্ষোভ হয়েছে। নির্বাচনে কনজারভেটিভ দলের নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জিত হলেও বিক্ষুব্ধরা জনসনকে প্রধানমন্ত্রী মানতে নারাজ। শুক্রবার (১৩ ডিসেম্বর) স্থানীয় সময় রাতে লন্ডনের শত শত বিক্ষোভকারী নির্বাচনি ফল প্রত্যাখ্যান করে তাকে ক্ষমতা থেকে সরে যাওয়ার আহ্বান জানান। উল্লেখ্য, বরিস জনসনের দল রেকর্ড সংখ্যক আসন নিয়ে ক্ষমতায় এলেও লন্ডনে তারা লেবার পার্টির সঙ্গে পেরে ওঠেনি। 

ব্রিটেনের ৬৫০টি আসনের আইনপ্রণেতা নির্বাচন করতে বৃহস্পতিবার (১২ ডিসেম্বর) সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিশ্চিতে ৩২৬টি আসন লাগে। জনসনের কনজারভেটিভ পার্টি পেয়েছে ৩৬৫টি আসন। তবে লন্ডনের বাস্তবতা ভিন্ন। সেখানকার ৭৩ আসনের ৪৯টিই পেয়েছে লেবার পার্টি। কনজারভেটিভরা পেয়েছে মাত্র ২১টি আসন।

শুক্রবার রাতে লন্ডনের বিক্ষোভকারীরা ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন ডাউনিং স্ট্রিটের বাইরে থেকে মিছিল নিয়ে ট্রাফালগার স্কয়ার হয়ে থিয়েটার ডিস্ট্রিক্টের সড়কে অবস্থান নেয়। এতে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। বিক্ষোভকারীরা ‘বরিস জনসন আমার প্রধানমন্ত্রী নন’, ‘বরিস তুমি সরে দাঁড়াও’  স্লোগানে চারপাশ প্রকম্পিত করে তোলে। সে সময় বিপুল পরিমাণ পুলিশের উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে।

লন্ডনের বাইরেও প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ হয়েছে।  গ্লাসগোতেও বিক্ষোভকারীরা ‘জনসন, আমার প্রধানমন্ত্রী নন’ বলে শ্লোগান তুলেছে। 

/এইচকে/বিএ/

লাইভ

টপ