ট্রাম্পের পরিকল্পনা সমর্থন করছে ওমান, বাহরাইন ও আমিরাত!

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ০০:৫২, জানুয়ারি ২৯, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০০:৫৪, জানুয়ারি ২৯, ২০২০

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প মঙ্গলবার তার বহুল আলোচিত ও বিতর্কিত মধ্যপ্রাচ্য শান্তি পরিকল্পনা উন্মোচন করেছেন। মঙ্গলবার এই পরিকল্পনার গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার ফিলিস্তিনকে উন্মোচন অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানানো হয়নি। তবে এতে প্রতিনিধি পাঠিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের তিন মুসলিম দেশ ওমান, বাহরাইন ও সংযুক্ত আমিরাত। হোয়াইট হাউসে উন্মোচন অনুষ্ঠানে ট্রাম্প বলেছেন, দেশ তিনটি তার পরিকল্পনা সমর্থন করছে। এজন্য তিনি দেশগুলোকে ধন্যবাদ দিয়েছেন। মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক সংবাদমাধ্যম মিডল ইস্ট আই এখবর জানিয়েছে।

হোয়াইট হাউসে উন্মোচন অনুষ্ঠানে প্রতিনিধি পাঠিয়েছে এই তিন দেশ। ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুও ধন্যবাদ জানিয়েছেন অনুষ্ঠানে দেশগুলোর প্রতিনিধিরা উপস্থিত হওয়ার জন্য।

উল্লেখ্য, ঐতিহাসিকভাবেই মধ্যপ্রাচ্যের শান্তি প্রশ্নে যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান ইসরায়েল-ঘেঁষা। বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার এক বছরের মধ্যে ২০১৭ সালের ৬ ডিসেম্বর জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী স্বীকৃতির ঘোষণা দেন। এর পরে ইসরায়েলের সঙ্গে আর কোনও শান্তি আলোচনায় মার্কিন মধ্যস্ততা মানবে না বলে ঘোষণা দেয় ফিলিস্তিনিরা। 

ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস বারবার চুক্তিটির বিরোধিতা করে আসছেন। মঙ্গলবার ট্রাম্প তাকে শান্তির পথ বেছে নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, এই পথে সবগুলো পদক্ষেপে ফিলিস্তিনকে সহযোগিতা করবে যুক্তরাষ্ট্র।


 

আরও পড়ুন: ‘মধ্যপ্রাচ্য শান্তি’ পরিকল্পনা প্রকাশ করলেন ট্রাম্প


 

নেতানিয়াহু নিশ্চিত করেছেন, ট্রাম্পের এই পরিকল্পনার আওতায় ফিলিস্তিনি শরণার্থীরা ইসরায়েলে নিজেদের ভূখণ্ডে ফেরার অধিকার পাবে না। একই সঙ্গে জর্ডান উপত্যকায় ইসরায়েলের সার্বভৌমত্ব মেনে নেওয়া হয়েছে।

ফিলিস্তিনের কর্মকর্তারা আশঙ্কা করছেন, ট্রাম্পের এ পরিকল্পনা পশ্চিম তীর, পূর্ব জেরুজালেম এবং গাজায় স্বাধীন রাষ্ট্র গড়ার ফিলিস্তিনিদের আশা গুঁড়িয়ে দেবে। তারা বলছেন, ফিলিস্তিনিদেরকে ওয়াশিংটনে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। আর ফিলিস্তিনিদেরকে ছাড়া কোনও শান্তি পরিকল্পনাই ফলপ্রসূ হতে পারে না।

 

/এএ/

সম্পর্কিত

লাইভ

টপ