লিবিয়া ও সিরিয়া পরিস্থিতি নিয়ে এরদোয়ান-ট্রাম্প ফোনালাপ

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ২২:৪৪, ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:৪১, ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২০

লিবিয়া ও সিরিয়া পরিস্থিতি নিয়ে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ানের সঙ্গে কথা বলেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। শনিবার দুই নেতার মধ্যে এ ফোনালাপ অনুষ্ঠিত হয়। তুর্কি সরকারের যোগাযোগ দফতর থেকে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।
দুই নেতার আলোচনায় আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক বিষয়াদি ছাড়াও দ্বিপাক্ষিক অর্থনৈতিক সম্পর্কের মতো বিষয়গুলো স্থান পায়।

ফোনালাপে লিবিয়ায় শান্তি ও স্থিতিশীলতা পুনঃপ্রতিষ্ঠার প্রয়োজনীয়তার ওপর জোর দেন দুই নেতা। অবিলম্বে সিরিয়ার ইদলিব সংকট নিরসনের উপায় নিয়েও আলোচনা করেন তারা। উভয়েই এ ব্যাপারে একমত হন যে, ইদলিবে আসাদ বাহিনীর হামলা গ্রহণযোগ্য নয়।

এর আগে গত ১২ ফেব্রুয়ারি তুরস্কের পার্লামেন্টে দেওয়া ভাষণে সিরিয়া পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলেন এরদোয়ান। এ সময় তুর্কি সেনাদের ওপর হামলার প্রতিশোধ হিসেবে যেকোনও স্থানে আসাদ বাহিনীকে তাড়া করার হুঁশিয়ারি দেন তিনি। এরদোয়ান বলেন, তুরস্কের আর একজন সেনাও যদি আক্রান্ত হয় তাহলে আসাদ বাহিনীর ওপর হামলা চালাবে আঙ্কারা। যেকোনও মূল্যে স্থল কিংবা আকাশপথে; যেকোনও স্থানে এ হামলা চালানো হবে। ফেব্রুয়ারির শেষ নাগাদ আসাদ বাহিনীকে ইদলিবের তুর্কি পর্যবেক্ষণ চৌকির বাইরে সরিয়ে দিতে আঙ্কারা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

ইদলিবের আকাশপথ বেশ কয়েক বছর ধরে নিয়ন্ত্রণ করছে আসাদের প্রধান পৃষ্ঠপোষক রাশিয়া। তবে এ মাসে আসাদ বাহিনী ১৩ তুর্কি সেনাকে হত্যার পর পাল্টা জবাব হিসেবে সিরিয়ার শতাধিক স্থাপনায় হামলা চালায় তুরস্ক। পাল্টা আঘাত অব্যাহত রাখার হুঁশিয়ারি দেন এরদোয়ান। এ নিয়ে মস্কোর সঙ্গেও আঙ্কারার সম্পর্কে টানাপড়েন তৈরি হয়।

আঙ্কারায় ক্ষমতাসীন দল একে পার্টির সমাবেশেও এ নিয়ে কথা বলেন এরদোয়ান। এদিন তিনি বলেন, তুর্কি সেনাদের ওপর হামলার জন্য আসাদ বাহিনীকে চড়া মূল্য দিতে হবে। সূত্র: আনাদোলু এজেন্সি, ডন।

/এমপি/এমওএফ/

লাইভ

টপ