বোরকা বিতর্কে তসলিমার সমালোচনায় মুখ খুললেন এ আর রাহমান

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ০৯:৫৭, ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:০১, ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২০

মেয়ে খাতিজা রহমানের বোরকা পরা নিয়ে বাংলাদেশের নির্বাসিত লেখিকা তসলিমা নাসরিনের সমালোচনায় এবার মুখ খুলেছেন ভারতের জনপ্রিয় সংগীতবিদ এ আর রাহমান। তসলিমার নাম উল্লেখ না করে তিনি বলেছেন, মেয়ে খাতিজা রহমান নিজের ইচ্ছেতেই বোরকা পরে। তাকে কেউ বাধ্য করেনি। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি এখবর জানিয়েছে।

অস্কার জয়ী এ আর রাহমান বলেছেন, ‘নানা ভাষা, নানা মত, নানা পোশাকের দেশ ভারত। স্বাধীন দেশের নাগরিক হিসেবে সবাই স্বাধীনভাবে খেতে-পরতে-চলতে পারেন। আমার মেয়েও তাই। তারপরেও গত একবছর ধরে ওর বোরকা পরা নিয়ে বিতর্ক চলছে। ও কিন্তু নিজের ইচ্ছেয় এই পোশাক পরে।’

১১ ফেব্রুয়ারি তসলিমা নাসরিন খাতিজার কালো বোরকা পরিহিত একটি ছবি টুইটারে প্রকাশ করেন। তিনি লেখেন, ‘আমি এ আর রাহমানের গান অনেক পছন্দ করি। কিন্তু যখনই আমি তার প্রিয় মেয়েকে দেখি, আমার দম বন্ধ হয়ে আসে। শিক্ষিত ও সংস্কৃতিমনা পরিবারেও যে খুব সহজে মগজধোলাই করা যায়, তা জানা সত্যিকার অর্থেই হতাশার।’

টুইটারে না থাকা খাতিজা তসলিমার সমালোচনার জবাব দিতে ইনস্টাগ্রামকেই বেছে নেন। ইনস্টাগ্রামে তার ৩৩ হাজারের বেশি ফলোয়ার রয়েছে। ১৪ ফেব্রুয়ারি তসলিমার সমালোচনার জবাব দেন। তসলিমার একটি টুইটের স্ক্রিনশট পোস্ট করে খাতিজা লিখেছেন, ‘দেশে অনেক কিছুই ঘটছে এবং সব মানুষ উদ্বিগ্ন এক নারী কী পোশাক পরেছেন তা নিয়ে।’

এ আর রাহমানের মেয়ে পোস্টের শেষে সরাসরি তসলিমা নাসরিনকে লিখেছেন, ‘প্রিয় তসলিমা নাসরিন, আমার পোশাকে আপনার নিঃশ্বাস বন্ধ হয়ে আসে বলে দুঃখ প্রকাশ করছি। কিছু মুক্ত বাতাস গ্রহণ করুন। কারণ, এতে আমার নিঃশ্বাস বন্ধ হয় না। বরং আমি যে অবস্থান নিয়েছি এতে গর্বিত ও ক্ষমতায়িত অনুভব করি। আপনাকে পরামর্শ দিচ্ছি, গুগলে খোঁজ নিয়ে দেখুন, সত্যিকার নারীবাদ কী। কারণ, নারীবাদ কখনও অন্য নারীকে অপদস্থ বা বিষয়টিতে তার বাবাকে জড়িয়ে আনা নয়।’

খাতিজার পোস্টের পরেও তসলিমা নাসরিন বোরকা নিয়ে সমালোচনা অব্যাহত রাখেন। যদিও পরের টুইটগুলোতে খাতিজার নাম উল্লেখ করা হয়নি। তবে তাকে ব্যঙ্গ করে তসলিমা লিখেছেন ‘বোরকাওয়ালিরা ক্ষমতাশালী। যুদ্ধ হলো শান্তি। স্বাধীনতা মানে দাসত্ব। অজ্ঞতাই শক্তি।’

আল্লা রাখা রাহমান মেয়ের বোরকা পরা নিয়ে আরও বলেন, ‘আমাদের থেকেই উত্তরাধিকার সূত্রে ধর্ম-সংস্কৃতি-ঐতিহ্য পেয়েছে খাতিজা। এগুলো ওর রক্তে মেশা। ফলে, জোর করে নয়, স্ব-ইচ্ছায় খাতিজা বেছে নিয়েছে এই পোশাক। আমরা কেউ ওকে জোর করিনি। এটা বোধহয় সবাই জানেন না, বোরকা শুধু ধর্মের বা জাতির প্রতীক নয়। দেশের সংস্কৃতিরও প্রতীক। যা আমার মেয়ে নিজের ইচ্ছেতে গায়ে তুলেছে। তারপরেও কেন এটি নিয়ে এত সমালোচনা!’

এর আগে এক সাক্ষাৎকারে রাহমান আরও বলেছিলেন, ‘মেয়ের কাছে পরে জানতে চেয়েছি, আদৌ কি ইচ্ছের বিরুদ্ধে এই পোশাক পরছ? মেয়ের জবাব ছিল, আমি নিজের ইচ্ছেতেই এই পোশাক পরছি। কারও জোরাজুরিতে নয়। আমি জানি আমি কী করছি, কী পরছি। তাই নিয়ে একটুও চিন্তিত নই। আমার মনে হয়, দেশের আরও অনেক সমস্যা রয়েছে। সেদিকে মাথা ঘামালে বেশি উপকার হবে দেশবাসীর, দেশের সবার। আমি জবাব দিয়েই দিয়েছি। তোমার কাউকে কিছু বলার থাকলে বলতে পারো।’

/এএ/

লাইভ

টপ