মার্কিন বিমান হামলায় নিহতরা বেসামরিক নাগরিক: সোমালিয়ার আইনপ্রণেতা

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১০:৪২, মার্চ ১২, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১০:৪৭, মার্চ ১২, ২০২০

সোমালিয়ার দক্ষিণাঞ্চলে যুক্তরাষ্ট্রের এক বিমান হামলায় আল শাবাব যোদ্ধা নয় বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশটির এক আইনপ্রণেতা। এছাড়া নিহতদের পরিবারের সদস্যরাও কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরাকে জানিয়েছে, তারা আল শাবাবের যোদ্ধা ছিলেন না।

গত সোমবার সোমালিয়ার রাজধানী মোগাদিসু থেকে ৯৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত জানালে শহরের কাছে বিমান হামলা চালায় যুক্তরাষ্ট্র। ওয়াশিংটনের দাবি এই হামলায় জঙ্গিগোষ্ঠী আল শাবাবের পাঁচ সদস্য নিহত হয়েছে।

তবে নিহতরা একটি মিনিবাসে করে রাজধানী মোগাদিসুর দিকে যাচ্ছিলেন বলে জানিয়েছে তাদের স্বজনেরা। ওই ঘটনায় বাবাকে হারানো আবদুল্লাহি আবদুর রহমান আলি বলেন, ‘আমেরিকানরা মিথ্যা বলছে। তারা আমার বৃদ্ধ পিতাকে হত্যা করেছে। তার বয়স ৭০ বছর, বেশি নড়াচড়াও করতে পারতো না। লাঠির সাহায্য ছাড়া হাঁটতেও পারে না। তিনি আল শাবাবের কেউ নন’। ক্ষুব্ধ এই তরুণ বলেন, ‘তারা বেসামরিক মানুষ হত্যা করেছে কারণ তারা জানে কেউ তাদের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেবে না’।

অন্য নিহতদের মধ্যে ১৩ বছরের এক ছেলে শিশু রয়েছে বলে জানিয়েছেন তার এক আত্মীয়। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ছবিতে দেখা গেছে হামলার পর মৃতদেহগুলো এমনভাবে পুড়েছে যে সেগুলো আর শনাক্তের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। এছাড়া ধ্বংস হয়ে যাওয়া গাড়িতে রক্তের ছোপও লেগে থাকতে দেখা গেছে।  

আল কায়েদা সমর্থিত জঙ্গিগোষ্ঠী আল শাবাবকে ২০১১ সালে হটিয়ে দেওয়ার পর থেকে সোমালিয়া নিয়ন্ত্রণ করছে মোগাদিসু সরকার। ওই শহরে মার্কিন সেনা ঘাঁটিও রয়েছে।

সোমালিয়ার পার্লামেন্টের সদস্য মাহাদ ধোরেও নিশ্চিত করেছেন মার্কিন ড্রোন হামলায় নিহতরা বেসামরিক নাগরিক। তিনি বলেন, ‘তারা বেসামরিক মানুষ হত্যা করেছে। সন্ত্রাসী হত্যার কথা বলে তারা আসলে সত্যিটা বলছে না। এসব মানুষ আমার সংসদীয় আসনের’। তিনি বলেন, ‘বেসামরিক মানুষেরা চরম মূল্য দিচ্ছে। একদিকে তারা আল শাবাবের হাতে নিপীড়িত হচ্ছে অন্যদিকে মার্কিন ড্রোন তাদেরই হত্যা করছে’। তিনি বলেন, ‘এই ধরনের হামলা ব্যবহার করে দলে নিয়োগ ও প্রচারণা চালানোর সুযোগ পাচ্ছে আল শাবাব’।

মার্কিন সেনাবাহিনীর পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এই বছর সোমালিয়ায় প্রায় ২৫টি বিমান হামলা চালিয়েছে ওয়াশিংটন। আর গত বছর ওয়াশিংটনে হর্ন অব আফ্রিকায় ৬০টি বিমান হামলা চালিয়েছে।

সাম্প্রতিক হামলার পর আফ্রিকায় মার্কিন সেনা মুখপাত্র ক্রিস কার্নস বলেন, আমাদের বিমান হামলার মূল লক্ষ্য হলো সন্ত্রাসবাদ বিরোধী যুদ্ধ মোকাবিলা এবং সোমালিয়ায় শান্তি, স্থিতিশীলতা ও নিরাপত্তা আনায় সহায়তা করা।

/জেজে/

লাইভ

টপ