সন্ত্রাসী হামলার পর তুরস্কে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ: ইরান

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ২১:১৩, মার্চ ৩১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:২১, মার্চ ৩১, ২০২০

তুরস্কে প্রাকৃতিক গ্যাস রফতানি বন্ধ করে দিয়েছে ইরান। তেহরানের দাবি তুরস্কের অভ্যন্তরে সন্ত্রাসী হামলায় পাইপলাইন ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ায় এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবারের এই হামলার জন্য নিষিদ্ধ ঘোষিত কুর্দিস্তান ওয়ার্কাস পার্টিকে (পিকেকে) দায়ী করেছেন ইরানের এক কর্মকর্তা। ইরানের বার্তা সংস্থা আইআরএনএ জানিয়েছে, হামলার ক্ষয়ক্ষতি মেরামতে তিন-চার দিন সময় লাগতে পারে। এরপরই গ্যাস রফতানি স্বাভাবিক হতে পারে।

মঙ্গলবার ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের খবরে বলা হয়, ‘আজ সকালে ইরানের বাজারগান সীমান্তবর্তী এলাকায় তুরস্কের সীমানায় প্রাকৃতিক গ্যাস সরবরাহের পাইপলাইনে সন্ত্রাসী হামলা চালানো হয়। এতে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ হয়ে গেছে’। ক্ষতিগ্রস্থ পাইপলাইনটি দিয়ে ইরান থেকে প্রতি বছর ১০ বিলিয়ন কিউবিক মিটার প্রাকৃতিক গ্যাস আমদানি করে তুরস্ক।  

ইরানের প্রাকৃতিক গ্যাস কোম্পানির পরিচালক মেহদি জামসিদি ডানা জানান, অতীতেও বেশ কয়েকবার লাইনটি হামলার শিকার হয়েছে। তিনি বলেন, ‘পিকেকে সন্ত্রাসীরা এই হামলা চালায় বলে ধারণা করা হয়ে থাকে’।

এদিকে হামলার কথা নিশ্চিত করেছে তুর্কি কর্তৃপক্ষও। দেশটির রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা আনাদোলু জানিয়েছে, আগরি প্রদেশে এই হামলার পর অগ্নিনির্বাপণকর্মীরা আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছে। সেনাবাহিনী ওই এলাকার নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে জানিয়ে বার্তা সংস্থাটি বলেছে, এই ঘটনায় তদন্ত শুরু হয়েছে।

উল্লেখ্য, তুরস্কে নিষিদ্ধ ঘোষিত পিকেকে গ্রুপকে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী বিবেচনা করে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়নও। ১৯৮০’র দশক থেকে পিকেকে ও তুরস্কের সেনাবাহিনীর মধ্যকার সংঘর্ষে প্রায় ৪০ হাজার মানুষের প্রাণহানি হয়েছে।

/জেজে/

লাইভ

টপ