উত্তর প্রদেশ থেকে একই ট্রাকে ফিরলো মৃত ও জীবিত শ্রমিক, ঝাড়খণ্ডের ক্ষোভ

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৭:০০, মে ১৯, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১২:২০, মে ২০, ২০২০

উত্তরপ্রদেশ থেকে খোলা ট্রাকে করে মৃত ও জীবিত শ্রমিকদের একসঙ্গে পাঠানোর ঘটনায় ক্ষোভ জানিয়েছেন ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেন। একে ‘অমানবিক’ বলে উল্লেখ করে তিনি বলেছেন, এর মধ্য দিয়ে জীবিত ও মৃত সবাইকেই অমর্যাদা করা হয়েছে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

শনিবার ভোরে উত্তর প্রদেশের অরাইয়ায় দুটি ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে মৃত্যু হয় ২৬ জন অভিবাসী শ্রমিকের। তাদের মধ্যে অনেকেই ঝাড়খণ্ড এবং পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা ছিলেন। রবিবার ঝাড়খণ্ড ও পশ্চিমবঙ্গের কমপক্ষে ১৭ জনের মৃতদেহ একটি ট্রাকে তোলা হয়। সেই ট্রাকেই কয়েকজন আহত শ্রমিককেও নিজেদের বাড়িতে পাঠানো হচ্ছিল। খবর পেয়ে রবিবার রাতে নবাবগঞ্জের কাছে ট্রাকটি আটকায় প্রয়াগরাজ পুলিশ। তারপর পৃথক গাড়ির বন্দোবস্ত করা হয়। প্রয়াগরাজের আইজি রেঞ্জ জানান, মৃতদেহগুলি আলাদাভাবে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত শববাহী যানে করে পাঠানো হয়েছে এবং জীবিত শ্রমিকদের জন্য আলাদা একটি গাড়ির বন্দোবস্ত করা হয়েছে।

একসঙ্গে মৃত ও জীবিত শ্রমিকদের বহনকারী ট্রাকটির ছবি ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়লে তা নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা শুরু হয়। ক্ষোভ জানিয়ে টুইট করেছেন ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী সোরেনও।

টুইটারে তিনি লিখেছেন, ‘চাইলেই আমাদের শ্রমিকদের সঙ্গে এমন অমানবিক আচরণ এড়ানো যেতো। আমি উত্তরপ্রদেশ সরকার ও নিতিশ কুমার সাহেবের (বিহারের মুখ্যমন্ত্রী) কাছে অনুরোধ জানাচ্ছি, তিনি যেন ঝাড়খণ্ড সীমান্ত পর্যন্ত মৃতদেগুলো পৌঁছে দিতে যথাযথ যানবাহনের ব্যবস্থা করেন। সেখানে থেকে সম্মানের সঙ্গে তাদেরকে বোকারোতে নিয়ে আসার ব্যবস্থা আমরা করব।’

/এফইউ/বিএ/

লাইভ

টপ