চীনের পেশিশক্তির নীতির প্রভাব ভারতের ওপর পড়বে: মার্কিন কূটনীতিক

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৮:৫৭, মে ২৮, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৪:৫২, মে ২৯, ২০২০

চীনের নতুন পেশিশক্তি নীতির প্রভাব ভারতসহ অন্য দেশগুলোর সঙ্গে তাদের সম্পর্কের ওপর পড়বে বলে মনে করেন এক ঊর্ধ্বতন মার্কিন কূটনীতিক। বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে যুক্তরাষ্ট্রের পূর্ব এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল বিষয়ক সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডেভিড স্টিওয়েল বলেছেন, চীনের নেওয়া ব্যবস্থার প্রভাব শুধু তাদের নিজেদের ওপর নয়, বরং পুরো অঞ্চলে পড়তে যাচ্ছে। ভারতীয় বার্তা সংস্থা প্রেস ট্রাস্ট অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে এসব কথা জানানো হয়েছে।

 

বাণিজ্য, করোনাভাইরাসের উৎপত্তিসহ বেশ কয়েকটি বিষয় নিয়ে চীনের সঙ্গে উত্তেজনাপূর্ণ সম্পর্কে জড়িয়ে আছে যুক্তরাষ্ট্র। সম্প্রতি স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল হংকংয়ের জন্য চীনের নতুন নিরাপত্তা আইন নিয়েও উদ্বেগ প্রকাশ করে আসছে ওয়াশিংটন। এছাড়া দক্ষিণ চীন সমুদ্রে বেইজিংয়ের সামরিক উপস্থিতি নিয়ে আপত্তি আছে মার্কিন প্রশাসনের।

বুধবার সংবাদ সম্মেলনে মার্কিন সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডেভিড স্টিওয়েল বলেন, চীনের পেশিশক্তি নীতির প্রভাব দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় পড়তে যাচ্ছে। এর প্রভাব প্রতিবেশী ভারত ও অন্য দেশগুলোর ওপরও পড়তে যাচ্ছে। নতুন এই পেশিশক্তি ও আগ্রাসী নীতি প্রতিরক্ষা মন্ত্রীদের কাজ আরও কঠিন করে তুলতে যাচ্ছে।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি লাদাখের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখাকে কেন্দ্র করে ভারত ও চীনের মধ্যে উত্তেজনা ব্যাপকভাবে বেড়েছে। চীন সেখানে ভারতীয় এলাকায় ঢুকে পড়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ভারতের পানিসীমা ও আকাশসীমা লঙ্ঘনেরও অভিযোগ উঠেছে বেইজিংয়ের বিরুদ্ধে। লাদাখ ও উত্তর সিকিমে দুই দেশই সেনা ও সমরাস্ত্রের সংখ্যা উল্লেখযোগ্য পরিমাণে বাড়িয়েছে। লাদাখের কাছে বিমানঘাঁটিও তৈরি করেছে চীন। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে তিন বাহিনী প্রধানের সঙ্গে বৈঠক করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কমান্ডারদের নিয়ে বৈঠকে মিলিত হয়েছেন ভারতের সেনাপ্রধান। এছাড়া চীন ও ভারতের মধ্যকার বিদ্যমান উত্তেজনায় দুই দেশের মধ্যে মধ্যস্থতার প্রস্তাব দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

/জেজে/বিএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

লাইভ

টপ