মাস্কের বিকল্প হিসেবে নেকাব পরার অনুমোদন

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৭:১৬, জুন ০১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:৩৭, জুন ০১, ২০২০

মাস্কের বিকল্প হিসেবে নেকাব পরার অনুমোদন দিয়েছে সৌদি আরব। টুইটারে দেওয়া এক পোস্টে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের হেলথ কল সেন্টারের পক্ষ থেকে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। সোমবার এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম সৌদি গেজেট।

টুইটারে দেওয়া পোস্টে বলা হয়, নারীদের জন্য নেকাব  ও পুরুষদের জন্য শেমাগ (এক ধরনের পাগড়ি) মাস্কের বিকল্প হিসেবে গণ্য হবে।

এগুলো পরার সময় অবশ্য এটি দিয়ে নাক, মুখ ভালোভাবে ঢেকে নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছে সৌদি হেলথ কল সেন্টার কর্তৃপক্ষ।

শেমাগ মূলত এক ধরনের আরব শাল যা সাধারণত শিরস্ত্রাণ হিসেবে ব্যবহার করা হয়। আর মুসলিম নারীরা পর্দা হিসেবে মুখ ঢাকতে নেকাব পরে থাকেন।

একজন টুইটার ব্যবহারকারী প্রশ্ন করেছিলেন, মাস্কের বদলে শেমাগ দিয়ে নাক-মুখ ঢাকা কী যথেষ্ট নয়? পরে এক টুইটে এ ব্যাপারে নিজেদের অবস্থান জানায়  কর্তৃপক্ষ।

মাস্কের বিকল্প হিসেবে নেকাব বা শেমাগ পরার এ অনুমোদন নাগরিকদের স্বস্তি দেবে বলে মনে করা হচ্ছে। কেননা, করোনার এই সময়ে মাস্ক খুব সহজলভ্য নয়। অনেকের কাছে ব্যক্তিগত সংগ্রহে থাকা মাস্কও শেষ হতে বসেছে।

উল্লেখ্য, করোনা মোকাবিলায় বাইরে বের হতে মাস্ক পরার নিয়ম জারি করেছে সৌদি সরকার। এছাড়া সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কথা বলা হয়েছে। শরীরের তাপমাত্রা পরিমাপেও কোনও প্রতিবন্ধকতা তৈরি করা যাবে না। এসব নিয়ম না মানলে মোটা অঙ্কের জরিমানার মুখোমুখি হতে হবে। সূত্র: সৌদি গেজেট।

/এমপি/

লাইভ

টপ